আলমডাঙ্গায় ট্রেনের ধাক্কায় শিশুর মৃত্যু

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় রেললাইনের ওপরে সেলফি তোলার সময় ট্রেনের ধাক্কায় হুসাইন (১১) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে আলমডাঙ্গা শহরের লাল ব্রিজের ওপর বেনাপোল এক্সপ্রেসের ট্রেনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত হুসাইন আলমডাঙ্গা উপজেলার কুমারী ইউনিয়নের কামালপুর গ্রামের ফারুক হোসেনের ছেলে।
জানা গেছে, আলমডাঙ্গার উপজেলার কুমারি ইউনিয়নের কামালপুর গ্রামের সৌদি প্রবাসী ফারুক হোসেনের ছেলে হুসাইন (১২) ফুফাতো ভাইদের সাথে নিয়ে ঘুরতে বের হয়। সন্ধ্যায় আগে ৬টার দিকে তারা তিনজন রেলব্রিজের ওপর উঠে আলমডাঙ্গা পশুহাট থেকে কালিদাসপুরের দিকে যাচ্ছিলো। ব্রিজের মাঝামাঝি পৌঁছুলে হঠাৎ বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেন চলে আসে। এসময় দুজন পানিতে লাফ দিয়ে প্রাণে বেঁচে গেলেও ট্রেনের ধাক্কায় মাথায় আঘাত পেয়ে পানিতে পড়ে হুসাইনের মৃত্যু হয়।
প্রত্যক্ষদর্শীসূত্রে জানা যায়, হুসাইন তার দুই ফুফাতো ভাইয়ের সাথে বৃহস্পতিবার বিকেলে লালব্রিজ এলাকায় ঘুরতে আসে। সন্ধ্যা ৬টার দিকে তারা তিনজন লালব্রিজ পার হচ্ছিলো। এ সময় বেনাপোল থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনটি ব্রিজের ওপর এসে পড়লে তার দুই ফুফাতো ভাই ব্রিজ থেকে কুমার নদের পানিতে লাফিয়ে পড়ে। এ সময় ট্রেনের ধাক্কায় হুসাইনের মাথায় আঘাত লাগলে মাথা রক্তাক্ত জখম হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়।
সংবাদ পেয়ে আলমডাঙ্গা ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পানি থেকে লাশ উদ্ধার করে। রেলওয়ে পুলিশ লাশের সুরতহাল রিপোর্ট শেষে পরিবারের নিকট হস্তান্তর করেছে। একমাত্র পুত্রকে হারিয়ে প্রবাসী ফারুক হোসেনের পরিবারে এখন শোকের মাতম চলছে।
এদিকে লালব্রিজে মাঝে মধ্যেই এমন দুর্ঘটনা ঘটতে থাকায় সচেতন মহল ব্রিজের দুই পাশে গেট অথবা সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালনে লোক নিয়োগের জন্য কর্তৃপক্ষের নিকট দাবি জানিয়েছেন।
আলমডাঙ্গা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিকেলে হুসাইনসহ কয়েকজন লালব্রিজে ঘুরতে যায়। ব্রিজের ওপর রেললাইনের ওপরে সেলফি তুলছিলো তারা। এ সময় হটাৎ খুলনা থেকে ছেড়ে আসা ঢাকামুখী ‘ঈদ স্পেশাল’ ট্রেনটি ব্রিজের ওপর চলে আসে। এতে ট্রেনের ধাক্কায় ব্রিজের নিচে পড়ে যায় হুসাইন। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। আলমডাঙ্গা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন মাস্টার মোখলেসুর রহমান বলেন, ৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে লাল ব্রিজের নিচ থেকে হুসাইনের মরদেহ উদ্ধার করি। মরদেহটি রেলওয়ে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে। চুয়াডাঙ্গা রেলওয়ে ফাঁড়ির এসআই মাসুদ রানা বলেন, লাল ব্রিজের ওপরে কয়েকজন মিলে সেলফি তুলছিলো। এ সময় ঈদ স্পেশাল ট্রেনের ধাক্কায় ব্রিজের নিচে পড়ে হুসাইনের মৃত্যু হয়।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More