আলমডাঙ্গায় হাসপাতালের জমি পরিদর্শনকালে এমপি ছেলুন জোয়ার্দ্দার

হাসপাতাল প্রতিষ্ঠায় যেনো বিঘ্ন সৃষ্টি না হয়
আলমডাঙ্গা ব্যুরো: আলমডাঙ্গায় প্রস্তাবিত ২০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার জন্য বিভিন্ন স্থানে জমি দেখলেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন। গতকাল শুক্রবার বিকেলে তিনি বাস্তবায়ন পরিষদের সদস্য ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের ইঞ্জিনিয়ারদের সাথে নিয়ে বন্ডবিল, উত্তরা ফিলিং স্টেশনের পেছনে ও হাউসপুর এলাকায় কিছু জমি পরিদর্শন করেন। পরে বণিক সমিতির কার্যালয়ে বাস্তবায়ন পরিষদের উপদেষ্টা ও আহ্বায়ক কমিটির যৌথসভা অনুষ্ঠিত হয়।
এসময় তিনি বলেন, আলমডাঙ্গার ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের জন্য ৩টি জায়গা পরির্দশন করা হয়েছে। একটা জিনিস মাথায় রাখতে হবে এ সড়ক ওই সড়ক করে যেনো হাসপাতাল প্রতিষ্ঠায় বিঘœ না হয়। আমাদের সবাইকে এক জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকতে হবে যে, হাসপাতাল করতে হবে। তিনি সম্ভাব্য জায়গা সম্পর্কে বলেন, আলমডাঙ্গার হাউসপুর এলাকার ৭টি ইউনিয়নের ব্যাপক জনগোষ্ঠী স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত রয়েছে। এসময় তিনি জমি ক্রয়ে টাকা উত্তোলনের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন।
যৌথসভায় ২০ শয্যা বিশিষ্ট আলমডাঙ্গা হাসপাতাল বাস্তবায়ন পরিষদের আহ্বায়ক বণিক সমিতির সভাপতি আরেফিন মিয়া মিলনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপদেষ্টা পৌর মেয়র হাসান কাদির গনু, স্বাস্থ্য প্রকৌশলী অধিদপ্তর (এইচইডি)’র খুলনা সার্কেল-৪ তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী কাজী শামসুল আলম, কুষ্টিয়া বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আফসার আলী, আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম, চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর জেলার সহকারী প্রকৌশলী মো. রাজিব সরদার, উপসহকারী প্রকৌশলী হাসান আল মামুন, সাবেক বণিক সমিতির সভাপতি হাজি সমসের মল্লিক, হাজি রফিকুল ইসলাম, রবিউল ইসলাম পকু, বণিক সমিতির সাবেক সহ-সভাপতি হাজি মোহাম্মদ আলী, ইটভাটা ব্যবসায়ী হাজি ঠান্ডু রহমান মিয়া, আদিব উদ দোজা ক্যাবল মিয়া, ঠিকাদার ব্যবসায়ী আজিবার রহমান, বৃহত্তর কাপড় ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু মুসা, হজ এজেন্সি ব্যবসায়ী হাজি আহমদ আলী, স্বাস্থ্য বিভাগের সাবেক উপ পরিচালনক ডা. একরামুল হক, প্রভাষক রোকনুজ্জামান বাবলু, মিজানুর রহমান তরফদার, ইমাম মাওলানা আব্দুল কাদের, ঠিকাদার ব্যবসায়ী সিরাজুল ইসলাম, ২০ শয্যা বিশিষ্ট আলমডাঙ্গা হাসপাতার বাস্তবায়ন পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক বণিক সমিতির ক্যাশিয়ার আলাউদ্দিন, হার্ডওয়ার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি বিশিষ্ঠ শিক্ষানুরাগী আলহাজ লিয়াকত আলী লিপু মোল্লা। ২০ শয্যা বিশিষ্ট আলমডাঙ্গা হাসপাতার বাস্তবায়ন পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেনের উপস্থাপনায় উপস্থিত ছিলেন আলমডাঙ্গা সরকারি ডিগ্রী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ কৃষিবীদ গোলাম সরোয়ার মিঠু, পাইলট বহুমুখী সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রবিউল ইসলাম খান, পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান, আলমডাঙ্গা একাডেমির প্রধান শিক্ষক এনামুল হক, ২০ শয্যা বিশিষ্ট আলমডাঙ্গা হাসপাতার বাস্তবায়ন পরিষদের সদস্য বৃহত্তর কাপড়পট্টি সমিতির সভাপতি হাজি গোলাম সরোয়ার সিঞ্জুল মিয়া, বণিক সমিতির সহ-সভাপতি কামরুজ্জমান হীরা, যুগ্ম সম্পাদক শরিফুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল লতিফ, পাইকারী মৎস্য আড়ৎ ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মতিয়ার রহমান ফারুক, মিল চাতাল মালিক সমিতির সভাপতি আশরাফুল হক, বণিক সমিতির সদস্য জয়নাল আবেদীন (ক্যাপ), সফিউল আলম, কাঁচামাল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ইমরুল কায়েস, ক্রোকারিজ ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মীর ফরহাদ হোসেন, চুয়াডাঙ্গা জেলা মোবাইল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি শামসুল আরেফিন আরিফসহ হাসপাতাল বাস্তবায়ন পরিষদের সদস্যবৃন্দ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More