করোনা টিকা সম্পর্কে কেউ গুজব ছড়ালে তা প্রতিহত করার দায়িত্ব প্রশাসনের

চুয়াডাঙ্গায় করোনা ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য জরুরিসভায় জেলা প্রশাসক

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার বলেছেন‘ পজলার ৫৯টি টিকাদান কেন্দ্রে ১৮ হাজার মানুষের মধ্যে টিকা প্রয়োগ করা হবে। করোনা টিকা সম্পর্কে কেউ গুজব ছড়ালে তা প্রতিহত করার দায়িত্ব প্রশাসনের। মানুষকে বুঝাতে হবে। অগ্রাধিকারভুক্ত ১৫টি প্রতিষ্ঠানের জনগোষ্ঠউর রেজিস্ট্রেশন পূরণ করতে হবে। বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারী ও এনজিওকর্মীদের অন্তর্ভুক্ত করা হবে। প্রচারণা বাড়াতে হবে। ৫৫ বছর ঊর্ধ্ব বয়সী মানুষের রেজিস্ট্রেশন এবং জনপ্রতিনিধিদের নামের তালিকা করতে হবে। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি টিকা প্রদান কর্মসূচির উদ্বোধন করা হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে করোনা ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য জেলা কমিটির জরুরিসভায় জেলা প্রশাসক এসব কথা বলেছেন।

করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও জেলা  প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকারের সভাপতিত্বে সদস্য সচিব জেলার সিভিল সার্জন ডা.এএসএম মারুফ হাসান বক্তব্য রাখেন। এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. আবু তারেক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) মনিরা পারভীন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ সাদিকুর রহমান, আদর্শ সরকারি মহিলা কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর মো. রেজাউল করিম, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপপরিচালক দীপক কুমার সাহা, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তারেক আহমেমদ, জেলা কৃষি প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা সুফি মো. রফিকুজ্জামান, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপপরিচালক এবিএম রবিউল ইসলাম, জেলা মার্কেটিং কর্মকর্তা সহিদুল ইসলাম, টিটিসির অধ্যক্ষ আনোয়ার কবির, মহিলা বিষয়ক অধিদফতরের উপপরিচালক হারুন অর রশীদ, এমওসিএস ডা. আওলিয়ার রহমান ও সহকারী কমিশনার হাবিবুর রহমানসহ সরকারি বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের জন্য ১৫ ক্যাটাগরির উদ্দিষ্ট জনগোষ্ঠীর তালিকা প্রস্তত ও সরবরাহ করতে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে ও স্বাস্থ্য বিভাগে পত্র দিয়েছে। সেই অনুযায়ী (১) কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবেলায় সরাসরি সম্পৃক্ত সরকারি হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মীগণ। (২) কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবেলায় সরাসরি সম্পৃক্ত সকল রেজিস্ট্রেশনভুক্ত বেসরকারি ও স্বতন্ত্র স্বাস্থ্য সেবা কর্মীগণ। (৩) বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বীরঙ্গনা। (৪) আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তথা পুলিশ, র‌্যাপিড অ্যাকশান ব্যাটালিয়ন, ট্রাফিক পুলিশ, আনসার ও ভিডিপি। (৫) প্রতিরক্ষা কার্যে নিয়োজিত সেনাবাহিনী, বিমান বাহিনী, নৌ বাহিনী ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ ইত্যাদি বাহিনীর সদস্যগণ, কোস্টগার্ড ও প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্ট ও বিশেষ গোয়েন্দা বাহিনী। (৬) রাষ্ট্র পরিচালনার নিমিত্ত অপরিহার্য কার্যালয় তথ্য মন্ত্রণালয়, সচিবালয়, বিচারিক ও প্রশাসনিক কার্যালয় সমূহের কর্মকর্তা। (৭) নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি। (৮) গণমাধ্যমকর্মী। (৯) জনসেবায় সরাসরি সম্পৃক্ত সিটি করপোরেশন ও পৌরসভার কর্মী। (১০) ধর্মীয় প্রতিনিধিগণ। (১১) মৃতদেহ সৎকার কার্যে নিয়োজিত ব্যক্তি। (১২) জরুরি বিদ্যুত, পানি, গ্যাস সরবরাহ ও পয়ঃনিষ্কাশন কাজের সাথে জড়িত কর্মকর্তা-কর্মচারী। (১৩) নৌ-বন্দর, রেলস্টেশন ও বিমান বন্দনসমূহের কর্মরত ব্যক্তি। (১৪) মন্ত্রণালয় , বিভাগ, জেলা ও উপজেলাসমূহে আবশ্যকীয় জনসেবায় নিয়োজিত কর্মকর্তা-কর্মচারী। (১৫) ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারী।

জরুরিসভায় জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার আরও বলেন, জেলায় ৩৬ হাজার ডোজ ভ্যাকসিন এসেছে। ১৮ হাজার মানুষের মধ্যে টিকা প্রয়োগ করা হবে। ৮ সপ্তাহ পর এ ১৮ হাজার মানুষকে ২য় দফায় টিকা প্রদান করা হবে। এ পর্যন্ত সাড়ে ৬ হাজার মানুষ রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করেছেন। হাসপাতাল, কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে প্রচারণা বাড়াতে হবে। অ্যাপস সুরক্ষার মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। সরকারের এ সিদ্ধান্তকে বাস্তবায়ন করতে হবে। ফ্রন্ট লাইনার এবং অগ্রাধিকার ব্যক্তিদের তালিকা করতে হবে।

জেলার সিভিল সার্জন ডা. এএসএম মারুফ হাসান বলেন, টিকা প্রদান রেজ্রিস্ট্রেশন কার্যক্রম চলমান রয়েছে। যে করোনা ভ্যাকসিন পাঠানো হয়েছে তার মেয়াদ শেষ হবে ১৬ এপ্রিল। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে জেলার ৫৯টি কেন্দ্রে একযোগে টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু হবে। প্রতিটি কেন্দ্রে ১৫০ জনকে টিকা প্রদান করা হবে। সদর হাসপাতাল কেন্দ্রে ৮টি, সিএস অফিসে ২টি, ১টি বিজিবি হাসপাতালে, ১টি পুলিশ হাসপাতালে, ৩টি উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে এবং ৩৮টি ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে ১টি করে। ইতিমধ্যে টিকাদান কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে এবং শনিবার স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। রেজ্রিস্ট্রশন না করলে টিকা দিতে পারবেন না। টিকাকার্ড সম্মতিপত্র। কেন্দ্র থেকে পরবর্তী তারিখ লিখে দেয়া হবে।

 

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More