কার্পাসডাঙ্গায় সরকারি জমি জবরদখল করে দোকান ঘর নির্মাণ : নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশ অবজ্ঞা!

সময়সীমার চারদিন অতিবাহিত হলেও একটি অবৈধ দোকানঘরও অপসারণ হয়নি

স্টাফ রিপোর্টার : দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসাডাঙ্গায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের পাশে সরকারি জমির ওপর জবরদখল করে অবৈধ ঘর নির্মাণ করা ও নির্মাণকৃত ঘর সরিয়ে নেয়ার দুইদিন সময়সীমা বেধে দিলেও একটি ঘরও সরিয়ে নেয়া হয়নি।

জানাগেছে, দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গায় অবস্থিত মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের পাশে রাতারাতি সরকারি জমি জবরদখল করে স্থানীয় ব্যক্তিরা বাঁশ, কাঠ ও টিন দিয়ে অবৈধ দোকান ঘর নির্মাণ করে। বিষয়টি দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানতে পেরে তিনি ঘটনাস্থলে যান গত বৃহস্পতিবার। সেখানে তিনি অবৈধ দখলদারদেরকে দুই দিনের মধ্যে নির্মাণকৃত দোকান ঘর সরিয়ে নেয়ার জন্য মৌখিকভাবে নির্দেশ দেন। নির্দেশ দেয়ার চারদিন অতিবাহিত হলেও নির্মাণকৃত একটি ঘরও সরিয়ে নেয়া হয়নি। স্থানীয় সচেতন মহল বিষয়টি ক্ষুব্ধ মনে চেয়ে দেখেছে। এ নিয়ে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে এলাকা জুড়ে। কেউ নিষেধ করলে তাদের কথা অবজ্ঞা করে প্রশাসনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গলী দেখিয়ে এসব ঘর নির্মাণ করা অব্যাহত রাখে ঐ সব প্রভাবশালীরা। সরকার যখন বড় বড় অবৈধ স্থাপনা ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিচ্ছে তখন কিভাবে এসব ঘর নির্মাণ করে। সচেতন মহলের দাবি, যারা ঘাড়ে করে বাঁশ, কাঠ ও টিন নিয়ে এসে ঘর নির্মাণ করে ছিলো সেই ভাবেই যেন নির্মাণকৃত ঘরের বাঁশ, কাঠ ও টিন বাড়ি নিয়ে যায়। দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান বলেন, যারা প্রশাসনের নির্দেশনা অমান্য করেছে তাদের তালিকা তৈরী হচ্ছে। পরবর্তীতে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইননানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More