কুষ্টিয়ায় পর্নোগ্রাফি আইনে চুয়াডাঙ্গার মিরাজসহ ৬ নেতাকর্মীর নামে ছাত্রলীগ নেত্রীর মামলা

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ায় ছাত্রলীগ নেত্রীর ব্যক্তিগত আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে ছাত্রলীগের ৬ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের একজন সহ-সম্পাদক। গতকাল বুধবার বিকেলে মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ দেলোয়ার হোসেন খাঁন।
মামলার আসামিরা হলেন কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানার রিফাইতপুর এলাকার খলিলের ছেলে মো. হৃদয় (২৪), চুয়াডাঙ্গা শহরের আক্তারুজ্জামানের ছেলে মুহাইমিনুল মিরাজ (২৩), কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার কালুপাড়া গ্রামের রেজাউল ইসলামের ছেলে রেফাউল ইসলাম (২২), দৌলতপুর থানার হালিম শিকদারের ছেলে শাকিল আহমেদ তুষার (২৮), ফারদিন সৃষ্টি (২২) ও কুমারখালী উপজেলার বড়ইচারা এলাকার সালামের ছেলে রাহাতুল ইসলাম (২১)। এর মধ্যে শাকিল আহমেদ তুষার জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, রেফাউল ইসলাম সাংগঠনিক সম্পাদক, ফারদিন সৃষ্টি সহ-সম্পাদক, রাহাতুল ইসলাম স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা বিষয়ক সম্পাদক, মো. হৃদয় সদস্য এবং মুহাইমিনুল মিরাজ জেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদকের ঘনিষ্টজন হিসেবে পরিচিত। তবে বাদীর অভিযোগ মামলায় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ হাফিজ চ্যালেঞ্জের নাম বাদ দিতে বাধ্য করেছেন পুলিশ।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, আসামিরা নানা কৌশল অবলম্বন করে কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের ওই নেত্রীর ব্যক্তিগত আপত্তিকর কিছু ছবি নিজ নিজ ফেসবুক আইডিতে পোস্ট করে। ১৯ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ওই নেত্রী তার নিজ ফেসবুক আইডিতে ঢুকে ওই সব আপত্তিকর ছবি দেখতে পান। ভুক্তভোগী ছাত্রলীগ নেত্রীর দাবি, তাকে হেয় প্রতিপন্ন ও তার সম্মানহানী করতে আসামিরা তার ব্যক্তিগত ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দিয়েছেন। যদি কোনো প্রতিকার না পান তাহলে তার আত্মহত্যা করা ছাড়া আর কোনো পথ থাকবে না।
কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ দেলোয়ার হোসেন খাঁন জানান, ২০১২ সালের পর্ণোগ্রাফী নিয়ন্ত্রণ আইন ৮ (১১)/৮ (২)/৮ (৩) ধারা মোতাবেক ৬ জনের নামে একটি মামলা করেছেন ওই তরুণী। মামলাটি তদন্তধীন রয়েছে। তদন্ত শেষে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More