কেরুজ ডিস্টিলারি ডিও জাফরুল্লাহ’র বদলি দাবি

সাংবাদিকদের সাথে অসদাচরণ করায় প্রেসক্লাবে প্রতিবাদসভা

 

দর্শনা অফিস: দীর্ঘ ৭ বছর বহাল তবিয়তে চাকরি করছেন কেরুজ ডিস্টিলারি গেটের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ডিও এসএম জাফরুল্লাহ। দীর্ঘদিন একই স্থানে চাকরির সুবাদে এলাকায় মদ চোরাকারবারিদের সাথে গড়ে উঠেছে সখ্যতা। যে কারণে ডিস্টিলারিতে উৎপাদিত মদ চুরির ঘটনা ঘটছে দীর্ঘদিন। জাফরুল্লাহ’র বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ স্থানীয়সহ কেরুজ চাকরিজীবীদের। জাফরুল্লাহ এবার সাংবাদিকদের সাথেও করেছেন অসদাচরণ। গতকাল সোমবার দুপুরে কেরুজ চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের অনুমতিক্রমে ডিস্টিলারি বিভাগে সংবাদ সংগ্রহের জন্য যান দর্শনা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক চঞ্চল মেহমুদ ও আহসান হাবীব মামুন। তথ্য সংগ্রহ শেষে বের হওয়ার মুখে জাফরুল্লাহ নিরাপত্তা কর্মীদের নির্দেশ দেন সাংবাদিকতাদের দেহ তল্লাশির। এক পর্যায়ে জাফরুল্লাহ দু’সাংবাদিকের সাথে অসদাচরণ করেন। এ খবর সাংবাদিক মহলে ছড়ালে ক্ষুব্ধ হয়ে দর্শনা প্রেসক্লাব ও সাংবাদিক সমিতি ক্ষোভ করে। গতকালই সন্ধ্যায় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত হয় প্রতিবাদসভা। এ সভায় অবিলম্বে জাফরুল্লাহকে অন্যত্র বদলির দাবি জানানো হয় সংশ্লিষ্ট বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে। ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ, নিন্দা ও বদলির দাবি তুলে বক্তব্য দেন দর্শনা প্রেসক্লাবের সভাপতি মনিরুজ্জামান ধীরু, সাধারণ সম্পাদক হারুন রাজু, সমিতির সভাপতি আওয়াল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক এসএম ওসমান, সাবেক সভাপতি হানিফ ম-ল, ইকরামুল হক পিপুল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক চঞ্চল মেহমুদ, আহসান হাবীব মামুন, কামরুজ্জামান যুদ্ধ, মনিরুামান সুমন, মোস্তাফিজুর রহমান কচি, তারিক জামান, জিল্লুর রহমান মধু, জাহিদুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, মাহমুদ হাসান রনি, মেহেদী হাসান তুহিন, রাজিব মল্লিক, সাব্বির আলীম, ইয়াছির আরাফাত মিলন, হাসমত আলী, আ. হান্নান, ওয়াসিম রয়েল, ইমতিয়াজ রয়েল, সুকমল চন্দ্র দাস বাধন, আবিদ হাসান রিফাদ, সুজন মাহমুদ, ইয়াছিন জুয়েল প্রমুখ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More