কোটচাঁদপুর পৌর নির্বাচনী মাঠ চরম উত্তপ্ত : এছাড়াও কয়েকটি খবর

 

প্রার্থীর নির্বাচনী অফিসে আগুন : পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর পৌর নির্বাচনী মাঠ উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। ভোটের দিন যতোই এগিয়ে আসছে ততই সন্ত্রাসী কার্যকলাপে ভোটারদের মধ্যে ভীতির সৃষ্টি হচ্ছে। এরই মধ্যে হামলা মামলা জখম, প্রচারে বাঁধা, এমনকি ভোট কেন্দ্র পোড়ানোর মতো অভিযোগ উঠেছে। আগামী ৩০ জানুয়ারি কোটচাঁদপুর পৌর নির্বাচন। এ নির্বাচনে ৪জন মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হলেন, আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাজান আলী, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ধানের শীষ প্রতীকে পৌর বিএনপির আহ্বায়ক সাবেক মেয়র সালাউদ্দীন বুলবুল সিডল, স্বতন্ত্র প্রার্থী নারকেল গাছ প্রতীকে বর্তমান মেয়র জাহিদুল ইসলাম এবং ভোটকেন্দ্রীক সদ্য বহিষ্কৃত নেতা পৌর আ.লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক স্বতন্ত্র প্রার্থী (বিদ্রোহী) মোবাইল প্রতীকে শহিদুজ্জামান সেলিম। নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী শাহাজান আলী অভিযোগ করেছেন, শুক্রবার রাত ১২টার দিকে শহরের সলেমানপুর ও রুদ্রপুরে দুটি নির্বাচন অফিস পুড়িয়ে আমার কর্মীদের ওপর হামলা চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। তিনি বলেন, আমার বিপক্ষ মেয়র প্রার্থী শহিদুজ্জামান সেলিমের ভাই শাহিন তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে এ অপকর্ম করেছে বলে তিনি অভিযোগ করেন। বিষয়টি নিয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে তিনি জানান। এ বিষয়ে শহিদুজ্জামান সেলিম বলেন, আমার জনপ্রিয়তায় নৌকা প্রতীক প্রার্থী শাহাজান আলী নিশ্চিত পরাজিত হবেন ভেবে আমার ও আমার ভাই শাহিনের বিরুদ্ধে তারা মিথ্যা নাটক সাজিয়েছেন। এতে আমি ভীত নয়। এদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী জাহিদুল ইসলাম জাহিদ অভিযোগ করেছেন, শনিবার দুপুর আড়াইটার দিকে তার প্রচার মাইক সলেমানপুর গেলে নৌকা প্রতীকের আর্শিবাদপুষ্ট সন্ত্রাসীরা মাইক ভাঙচুর ও প্রচারের মেমোরী কার্ড নিয়ে নেয়। ধানের শীষ প্রার্থী সালাউদ্দীন বুলবুল সিডল অভিযোগ করেন, প্রতিনিয়ত আমার কর্মী বাহিনীকে একের পর এক ধাওয়া করছে এলাকার নামধারী সন্ত্রাসীরা বারবার মৌখিকভাবে সংশ্লিষ্ট কর্তাদের জানিয়েও কাজ হচ্ছে না। গতকাল শনিবার লিখিতভাবে আবার জানিয়েছি। কোটচাঁদপুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহবুবুল আলম বলেন, বিষয়টি শুনেছি। তবে অভিযোগ নিয়ে কেউ এখনও আসেনি। এলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এর আগেও হামলা করে কর্মীদের আহত করার ঘটনা ঘটলেও থানায় অফিযোগ করেও কোন ফল পাচ্ছেন না বলে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা অভিযোগ করেছেন। সব মিলিয়ে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোটচাঁদপুর শহরে যে কোনো সময়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষসহ প্রাণহানীর আশঙ্কা করছেন স্থানীয় পর্যবেক্ষক মহল।

 

ঝিনাইদহে যুবকের ৩শ’ পেয়ারা গাছ কেটে দিলো দুর্বৃত্তরা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: ঝিনাইদহের সদর উপজেলার হলিধানী ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের পেয়ারাচাষি তরুণ উদ্যোক্তা শামসুজ্জামানের (৩৬) ৩শ’ পেয়ারা গাছ কেটে নিষ্ঠুরতা দেখিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শামসুজ্জামান রামচন্দ্রপুর গ্রামের হাজি মো.  ইউসুফ আলীর ছেলে। তিনি রামচন্দ্রপুর কমিনিউটি ক্লিনিকের সিএইচসিপি পদে কর্মরত আছেন। চাকরির পাশাপাশি তিনি বাড়ির পাশে ১৯০ শতক জমিতে বিভিন্ন ফলজ গাছ লাগিয়েছেন। জমিতে ১৭শ পেয়ারা, ৪শত কাগজি লেবু পেপে কুল ও বিভিন্ন প্রজাতির গাছ রয়েছে। শনিবার সকালে তিনি বাগানে গিয়ে দেখেন ৩শ পেয়ারা গাছ কে বা কারা কেটে দিয়েছে। নিজের চোখে এই দৃশ্য দেখে তিনি ভেঙে পড়েন। শামসুজ্জামান জানান, কেউ হিংসা করে এই বাগান কেটে দিয়েছে। এতে আমার ২ থেকে আড়াই লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। তবে তিনি প্রশাসনের কাছে এর বিচার আশা করেন। এদিকে হলিধানী ইউনিয়নের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা হেনা বিশ্বাস বিষয়টি জানার পর খোঁজখবর নিয়েছেন। অন্যদিকে মহল্লাবাসী এই অপরাধের বিচার দাবি করেছেন।

 

দামুড়হুদার পাটাচোরায় শীতার্তদের মধ্যে কম্বল বিতরণ

দর্শনা অফিস: ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মনোনীত দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী মুফতি আ. রাজ্জাক রাজী শীতার্তদের মধ্যে কম্বল বিতরণ করেছেন। সেই সাথে ইউনিয়নের ওয়ার্ড ইসলামী আন্দোলনের কমিটি গঠন করা হয়েছে। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় ইউনিয়নের পাটাচোরা জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত সভায় সর্বসম্মতিক্রমে ১৭ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এ কমিটির সভাপতি হাজি নুর ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক অহিদুল ইসলাম। পরে মুফতি আ. রাজ্জাক রাজীর পক্ষ থেকে পাটাচোরা গ্রামের শীতার্তদের মধ্যে কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন রুহুল কুদ্দুস, এবাদ আলী, আবু সাঈদ, দিদারুল ইসলাম প্রমুখ।

 

মাঠ থেকে চুরি হওয়া গরু হাট থেকে উদ্ধার হলেও মূল গরুচোর লাপাত্তা

হাসাদাহ প্রতিনিধি: জীবননগর উপজেলা ঘুগরোগাছী গ্রামের মাঠ থেকে চুরি হওয়া একটি এড়ে বাছুর গরু হাট থেকে বিক্রিকালে গরুসহ চোর আটক হয়েছে। গরু চুরি যাওয়া মালিকের হাতেনাতে পুরন্দপুর গ্রামের করিম আলীর ছেলে রাজমিস্ত্রী রেজাউল  ইসলাম (৩২) ধরা পড়ে যায়। তিনি স্বীকার করেন এ গরু চুরির সাথে বাড়ান্দী গ্রামের ওসমান ওরফে পাখি জড়িত রয়েছেন। গত শুক্রবার জুম্মা নামাজের সময় ফাঁকা মাঠ থেকে চুরি করা এই এঁড়েবাছুর গরু উদ্ধার হওয়া গরুটির দাম ৩৫ হাজার টাকা হবে বলে জানা যায়। এ বিষয়ে গরুর মালিক তুহিন খান বলেন, সকালে আমাদের বাড়ির পাশের মাঠে এড়ে বাছুর গরুটি বেঁধে রাখা হয়। শুক্রবার জুম্মার নামজের পর আনুমানিক ২টার দিকে আমাদের বাড়ীর কাছেই গমের ক্ষেতের পাশে বেঁধে রাখা গরুটিকে নিতে গেলে দেখা যায় যে, বেঁধে রাখা গরুটি সেখানে নেই। মাঠের অনেক স্থানে খোঁজাখুজি করার পর মনে সন্দেহ হলো। সে সময় মহেশপুর উপজেলার খালিশপুর গো-হাটে যাই। হাটে খোঁজাখুজির এক পর্যায়ে গরুটি ও গরুর গলায় একটি দঁড়ি বেধে রাখা ছিলো যেটা আমি ঢাকা থেকে ক্রয় করে আনি। গরুর কাছে যেয়ে আমি গরুর দাম বলি। গরুর সাথে থাকা ব্যক্তি বলে, ৩৯ হাজার হলে গরুটি বিক্রি করবে। তখন আমি বলি যে গরুটি আমি নেবো। এক হাতে গরুর দড়ি নিই; আরেক হাতে রেজাউলকে ধরে চিৎকার করি। সাথে সাথে হাটের লোকজন জড় হয়ে যায়। এসময় ওই ব্যক্তি নিজের গরু না বলে স্বীকার করেন যে, গরু চুরি বিষয়ে তিনি কিছুই জানে না। তার বন্ধু রায়পুর ইউনিয়নের বাড়ান্দী কুমারপাড়া গ্রামের আনসারের ছেলে ওসমান ওরফে পাখি একসাথে রাজমিস্ত্রীর কাজ করে। সে তার কাছে এ গরুটিকে বিক্রয়ের জন্য পাঠিয়েছে। সে এ হাটেই আশেপাশে আছে। এসময় ওসমান ওরফে  পাখিকে মোবাইলে ডাকা হলে সে বিষয়টি বুঝতে পেরে গাঢাকা দেয়। এ বিষয়ে রায়পুর পুলিশ ক্যাম্পের উপ-পরিদর্শক (এস.আই) মো. মহাসিন আলীর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া গেছে।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More