গাংনীতে জনসভায় গণ পকেটমার : একজনকে গণধোলাই

গাংনী প্রতিনিধি: মেহেরপুর গাংনী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ প্রাঙ্গণে গতকাল রোববার বিকেলে জেলা আওয়ামী লীগের জনসভায় গণপকেটমারের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাস্থলে পকেটমার সন্দেহ এক যুবককে গণপিটুনি দিয়ে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। শতাধিক মানুষের পকেট থেকে টাকা ও মোবাইল পকেটমারেরা নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গাংনী থানায় অভিযোগ দায়ের করতে উপস্থিত হয়েছেন ভুক্তভোগীদের কয়েকজন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, জনসভায় প্রবেশপথে নেতাকর্মীদের ব্যাপক সমাগম ছিলো। চলাচলের এ পথে ভিড় থাকার সুযোগ কাজে লাগিয়েছে পকেটমারেরা। মানুষের উপচেপড়া ভিড়ের মধ্যে কে যে কার পকেট মেরেছে তা বোঝার উপায় ছিলো না।

ভুক্তভোগী পূর্বমালসাদহ গ্রামের শামীম আহম্মেদ বলেন, জনসমাগমস্থলে প্রবেশের কিছুক্ষণ পরে দেখি আমার অ্যানড্রয়েড রিদমি নোট ৫ ফোনটি নেই। ফোনটি আমার প্যান্টের ডান পকেটে ছিলো। এ ঘটনায় থানায় জিডি করতে এসেছি।

গাংনী থানায় উপস্থিত আরেকজন ভুক্তভোগী হেমায়েতপুর বাজার কমিটি সাধারণ সম্পাদক আলমীর হোসেন বলেন, ব্যবসায়িক কাজ সেরে বাসায় না ফিরে সরসারি আমি জনসভায় উপস্থিত হই। এজন্য পকেটে ৩০ হাজার টাকা ছিলো। কোন ফাঁকে যে পকেটমার হয়েছে তা বুঝতে পারিনি।

গাংনী থানার সেকেন্ড অফিসার আহাসান হাবীব বলেন, ১০-১৫ জন থানায় অভিযোগ দিতে এসেছেন। তাদের কাছ থেকে জিডি নেয়া হচ্ছে।

গাংনী থানার ওসি বজলুর রহমান বলেন, ভুক্তভোগীদের অভিযোগ নিয়ে মোবাইল ও টাকা উদ্ধারের চেষ্টা করা হচ্ছে। অপরদিকে গণধোলাইয়ে আহত যুবকের প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারলে পকেটমার সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যেতে পারে।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More