গাংনীতে ব্যবসায়ীর দোকানে সরকারি চালের সন্ধান

মজুদ চাল নিয়ে তুলকালাম : রহস্য উদঘাটনে মাঠে প্রশাসন
গাংনী প্রতিনিধি: মেহেরপুর গাংনী শহরের চাল ব্যবসায়ী হাফিজুল ইসলামের দোকানে সরকারি চালের সন্ধান মিলেছে। এ চাল নিয়ে গতকাল বুধবার বিকেলে তুলকালাম হয়। সরকারি চাল অবৈধভাবে মজুদ করা হয়েছে এমন খবরে সেখানে যায় সাংবাদিকরা। ভিড় বাড়ে সাধারণ মানুষের। এক পর্যায়ে ঘটনাস্থলে আসেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এই চালের আসল রহস্য উদঘাটনে মাঠে নামে প্রশাসন। কাবিটা কর্মসূচির চাল বৈধ প্রক্রিয়ায় কিনে কেনো তুলকালামের ঘটনা তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন গাংনী বাজারের ব্যবসায়ীরা।
এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাজমুল আলম জানান, দোকানে সরকারি চাল পাওয়া গেছে। তবে একটি প্রকল্পের বরাদ্দ আদেশ (ডিও) প্রশাসনকে দিয়েছেন চাল ব্যবসায়ী হাফিজুল ইসলাম। বরাদ্দ আদেশ অনুযায়ী তিনি চাল কিনতে পারবেন। তাই তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের কোনো কারণ নেই। তবে ডিও সঠিক আছে কি-না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০২১-২০২২ অর্থ বছরে অবকাঠামো সংস্কার (কাবিখা-খাদ্যশস্য) কর্মসূচির অধীনে গাংনী উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ধলা আইল মাঠের রাস্তা ডব্লিউ বিএম করণসহ মাটি দ্বারা উন্নয়নের জন্য ২০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়। কাথুলী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড সদস্য (সদস্য) আনারুল ইসলাম এ প্রকল্পের চেয়ারম্যান (পিআইসি)।
গাংনী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নিরঞ্জণ চক্রবর্তী জানান, কাবিটার চাল বিক্রির বিধান রয়েছে। চালের বিষয়ে ইউপি সদস্য আনারুল ইসলাম বলেন, প্রকল্পের নিয়মানুযায়ী চাল বিক্রি করা হয়েছে। চাল ব্যবসায়ী মইহকের কাছে তিনি বিক্রি করেন। চাল বিক্রির টাকা দিয়ে রাস্তা উন্নয়নের কাজ হচ্ছে। কাবিটা হচ্ছে কাজের বিনিময়ে টাকা। প্রকল্পের সমস্ত খরচের জন্য বরাদ্দকৃত খাদ্যশস্য বিক্রি করে কাজ সম্পাদন করতে হবে। এই স্বাভাবিক নিয়মেই চাল বিক্রি করেছেন পিআইসি।
চাল ব্যবসায়ী হাফিজুল ইসলাম জানান, চাল ব্যবসায়ী মইহকের কাছ থেকে তিনি বরাদ্দ আদেশ (ডিও) কিনেছেন। টাকার বিনিময়ে তিনি চাল পেয়েছেন। সরকারি নিয়ম মেনেই ক্রয় করা হয়েছে এবং বাজারে বিক্রি করা হচ্ছে।
গাংনী বাজার কমিটির সভাপতি মাহবুবুল হক স্বপন বলেন, ব্যবসায়ীরা ব্যবসার নিয়মেই এমন চাল কিনে থাকে। স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় চাল কিনে ব্যবসায়ী কেনো হেনস্তার শিকার হবে? প্রশ্ন করেন তিনি। যদি কোনো ব্যবসায়ী বেআইনী কাজ করে তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হোক। কিন্তু কেউ যাতে অযথা হয়রানির শিকার না হয় সে বিষয়ে সকলের সুদৃষ্টি কামনা করেন তিনি।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More