গাংনীতে ৬ ইটভাটায় সাড়ে ১৪ লাখ টাকা জরিমানা

গাংনী প্রতিনিধি: মেহেরপুরের গাংনীতে পরিবেশ অধিদপ্তর অভিযান চালিয়ে ছয়টি ইটভাটা থেকে সাড়ে ১৪ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করেছে। ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধনী ২০১৯ এ জরিমানা আদায় করেন পরিবেশ অধিদপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাইদা পারভীন। গতকাল বুধবার দুপুরে গাংনী উপজেলার পোড়াপাড়া থেকে শুরু করে বামন্দী গিয়ে অভিযান শেষ হয়। তবে জনগুরুত্বপূর্ণ সমস্যাগুলো এড়িয়ে প্রধান সড়কের পাশের ইটভাটাগুলোতে অভিযান পরিচালনা করায় জনমনে বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।
অভিযান সূত্রে জানা গেছে, আইন অমান্য করে ইটভাটায় কাঠ পোড়ানো এবং পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর কার্যক্রম পরিচালনার বিরুদ্ধে পরিবেশ অধিদফতর এ অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে পোড়াপাড়ার মোয়াজ্জেম ব্রিক্স, আরএসবি, ফাইফ স্টার ও বামন্দীর এমএসআরএফএল ও বিজিএল বিক্স থেকে আড়াই লাখ করে এবং বামন্দীর সিবিএল ব্রিক্স থেকে দুই লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।
এদিকে পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানকে সাধুবাদ জানিয়ে নানা প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। তাদের দাবি, গ্রামের মধ্যে বিভিন্ন স্থানে ইটভাটা রয়েছে। এগুলো জনবসতির খুবই কাছাকাছি। কৃষি জমি উজাড় করে দেদারসে বেড়ে উঠছে এসব ইটভাটার আকার। গ্রামের সরু রাস্তা দিয়ে ইটভাটার অবৈধ যানবাহনে ইট, মাটি ও বালু বহনের ফলে রাস্তা নষ্ট হচ্ছে। নষ্ট হচ্ছে চলাচলের পরিবেশ। দিন রাত একাধারে এসব রাস্তাগুলোতে ইটভাটার যানবাহন চলাচল করে। এছাড়াও কয়েকটি ইটভাটা রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান লাগোয়া স্থানে। প্রভাবশালী ইটভাটা মালিকদের দৌরাত্বে বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষা পরিবেশ নষ্ট হলেও প্রতিবাদ করতে পারেন না স্থানীয়া। আইনের চরম লঙ্ঘনের মধ্য দিয়ে ইটভাটা চালাচ্ছেন না। এসব ইটভাটাগুলোতে কখনও পরিবেশ অধিদফতরের অভিযান হয় না। অপরদিকে গেলো বছর পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযান হয়েছিলো শুধুমাত্র মেহেরপুর-কুষ্টিয়া সড়কের পাশে কয়েকটি ইটভাটায়। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। তাই যে সকল ইটভাটাগুলো মারাত্মকভাবে পরিবেশ বিপর্যয় ঘটাচ্ছে তাদের তালিকা করে অভিযানের দাবি করেছেন ভুক্তভোগীরা।
পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আতাউর রহমান জানান, পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি না নিয়ে এবং কয়লার বদলে কাঠ পোড়ানোর অভিযোগে অভিযান চালানো হয়। এ অভিযান চলমান বলেও জানান তিনি।
ইটভাটা মালিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আইন লঙ্ঘন করে ইটভাটা চালালো আইনের আরও কঠোর প্রয়োগ করা হবে। এলাকার মানুষের দাবির বিষয়ে তিনি বলেন, জনবল খুবই কম তাই খুব বেশি অভিযান করা যায় না। তবে এলাকার মানুষের সমস্যা সমাধানে ওই সকল ইটভাটায় দ্রুত অভিযান চালানো হবে বলে জানান তিনি।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More