চলে গেলেন মুজিবনগর প্রথম রাজধানীর আব্দুল মোমিন চৌধুরী

মুজিবনগর প্রতিনিধি: ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল মুুজিবনগর সরকারের শপথ অনুষ্ঠানের আয়োজক দলের অন্যতম সদস্য মুজিবনগরের ভবরপাড়া গ্রামের আব্দুল মোমিন চৌধুরী (৮৫) আর নেই। বার্ধক্যজনিত কারণে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) দিবাগত রাতে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না লিল্লাহি ……… রাজিউন)। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ২ ছেলে ও ৩ মেয়েসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। স্বীকৃতি না পেলেও আব্দুল মোমিন চৌধুরী মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক হিসেবে অসামান্য অবদান রেখেছিলেন। বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার/মুজিবনগর সরকার/প্রথম সরকারের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান আয়োজনে অসামান্য ভূমিকা রেখেছিলেন। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ।
যখন সারা দেশে যুদ্ধ চলছিলো তার মধ্যেও ১৭ এপ্রিল ১৯৭১ এ বাংলাদেশের প্রথম সরকারের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান আয়োজনে যার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল তার নাম আব্দুর মোমিন চৌধুরী। শপথের কয়েকদিন আগে থেকে মঞ্চের জন্য বিভিন্ন মালামাল নিয়ে আসা, এলাকার মানুষকে একত্রিত করা এবং তৎকালীন এসডিও তৌফিক-এ-ইলাহি চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে যারা নেতৃত্বে ছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম একজন হচ্ছেন আব্দুল মোমিন চৌধুরী। মুক্তিযুদ্ধ বেগবান করা এবং ভারত থেকে ত্রাণ সংগ্রহ ও এসডিও’র কাছে পৌঁছে দেয়ার গুরুত্বপুর্ণ দায়িত্ব সাথে পালন করেছে তৎকালীন ভবরপাড়া সংগ্রাম কমিটি। যে কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে সততা ও নিরলস শ্রম দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে সার্বিক সহযোগিতা করেন আব্দুল মোমিন চৌধুরী। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে এই কর্মযজ্ঞ পরিচালনা করতে গিয়ে অস্ত্র হাতে যুদ্ধ করা হয়নি। ফলে মেলেনি মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি। তবে বৈদ্যনাথতলা তথা মুজিবনগরের ইতিহাসের সাথে আজীবন মিশে থাকবে আব্দুল মোমিন চৌধুরীর নাম।
জানা গেছে, আব্দুল মোমিন চৌধুরী প্রায় ৩০ বছর ধরে বাগোয়ান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব দিয়েছেন বলিষ্ঠ হাতে। মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে সংগঠনকে এগিয়ে নিয়েছেন দূর থেকে বহুদূর। তিনি ছিলেন মুজিবনগরের প্রাণকেন্দ্র বাগোয়ান ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং সম্মানস্বরুপ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও উপদেষ্টা পদে আসিন হন তিনি।
পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ক্ষমতার কাছাকাছি থাকা স্বত্তেও আব্দুল মোমিন চৌধুরী ছিলেন সাদাসিদে। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে কোনো মোহ তাকে আকৃষ্ট করেনি। আমৃত্যু তিনি স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ আর বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লালন করেছেন। গতকাল বুধবার (৫ অক্টোবর) বাদ আছর ভবরপাড়া কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে মরহুমের জানাজা শেষে দাফন করা হয়। জানাজা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ও স্মৃতিচারন বক্তব্য রাখেন সাবেক এমপি ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জয়নাল আবেদীন, সাবেক জেলা প্রশাসক অ্যাড. মিয়াজান আলী, জেলা আ.লীগের যুগ্ম-সম্পাদক অ্যাড. ইব্রাহীম শাহিন, মুজিবনগর উপজেলা চেয়ারম্যান জিয়াউদ্দীন বিশ্বাস, বাগোয়ান ইউপি চেয়ারম্যান আয়ূব হোসেন, মহাজনপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ আমাম হোসেন মিলু, পিরোজপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ বাবলু বিশ্বাস, মুজিবনগর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আমিরুল ইসলাম, সাংবাদিক আব্দুস সালাম প্রমুখ এবং পরিবারের পক্ষ থেকে ছেলে শাহজালাল চৌধুরী পিতার বিদ্রেহী আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া কামনা করেছেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More