চুয়াডাঙ্গাসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় ঝড়ো হাওয়াসহ স্বস্তির বৃষ্টি

স্টাফ রিপোর্টার: অবশেষে চুয়াডাঙ্গাসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় স্বস্তির বৃষ্টির ঝরেছে। গতকাল সোমবার রাত ১০টা থেকে চুয়াডাঙ্গাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি শুরু হয়। একই সাথে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যায়। রাতে চুয়াডাঙ্গায় প্রায় ৪০ মিনিট বৃষ্টি ও দমকা হাওয়া বয়ে যায়। জেলায় ৭ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। বাতাসের গতিবেগ ছিলো ঘণ্টায় ২০ কিলোমিটার। সপ্তাহ জুড়েই বৃষ্টির দেখা মিলবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।
আবহাওয়া অফিসসূত্রে জানা যায়, কয়েক দিন ধরে চুয়াডাঙ্গায় দাবদাহ অব্যাহত রয়েছে। বাতাসে আর্দ্রতা বেশি থাকায় ভ্যাপসা গরম অনুভূত হয়েছে বেশি। সন্ধ্যা থেকে আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ছিলো। অসহ্য গরমের পর নেমেছে স্বস্তির বৃষ্টি। ঠা-া বাতাসে জুড়িয়েছে শরীর। বৃষ্টির সঙ্গে রয়েছে দমকা হাওয়া, বিদ্যুতের ঝলকানি ও বজ্রপাত। কয়েক দিনের টানা দাবদাহের পর গতকাল সোমবার রাতে স্বস্তির বৃষ্টিতে জনজীবন স্বাভাবিক হয়েছে। অসহ্য গরমের পর বহুল প্রত্যাশিত এই বৃষ্টি মানুষের মধ্যে স্বস্তি এনে দিয়েছে। তীব্র রোদের জ্বালা জুড়াতে রাতে চুয়াডাঙ্গার বিভিন্নস্থানে মানুষকে বৃষ্টিতে ভিজতে দেখা গেছে। বৃষ্টির সঙ্গে দমকা হাওয়া হওয়ায় গরমও কমে এসেছে। এদিকে টানা তাপপ্রবাহের পর ঝড়ো হাওয়াসহ বজ্র্য বৃষ্টি হবে বলে আগেই আভাস দিয়েছিলো আবহাওয়া অধিদফতর। রাত ১০টা থেকে গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি শুরু হয়। বৃষ্টি শুরু হলে জনজীবনে স্বস্তি ফিরে আসে।
আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশে অবস্থান করছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল এবং সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায়ঢ অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো বাতাসহ বৃষ্টি বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টিও হতে পারে। সারা দেশে দিনে ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকবে। ৪৮ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, তাপমাত্রা কিছুটা বৃদ্ধি পেতে পারে। ৫ দিনের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে সামান্য পরিবর্তন হতে পারে। গতকাল সোমবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা যশোরে ও খেপুপাড়ায় ৩৬ দশমিক ৬ ও সর্বনিম্ন সিলেটে ২১ দশমিক শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। এদিন ঢাকায় ৯ মিলিমিটার, ফরিদপুরে ১৩ মিলিমিটার, গোপালগঞ্জে সামান্য, চট্টগ্রামে ৮ মিলিমিটার, চাঁদপুরে ৪৯ মিলিমিটার, সিলেটে ৯ মিলিমিটার, রংপুর ৭ মিলিমিটার, রাজারহাটে ৩৯ মিলিমিটার ও পটুয়াখারী সামান্য বৃষ্টি হয়েছে। চুয়াডাঙ্গায় সোমবার সর্বোচ্চ ৩৫ দশমিক ৮ ও সর্বনিম্ন ২৩ শমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়।
কার্পাসডাঙ্গা প্রতিনিধি জানিয়েছেন, টানা দাবদাহের পর কার্পাসডাঙ্গাসহ এলাকার বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টির দেখা মিলেছে। অসহ্য গরমের পর বহুল প্রত্যাশিত এই বৃষ্টি মানুষের মধ্যে স্বস্তি এনে দিয়েছে। গতকাল সোমবার কার্পাসডাঙ্গার বিভিন্ন স্থানে রাত ১০টার দিকে স্বস্তির বৃষ্টির দেখা মেলে। বৃষ্টির সঙ্গে ঝড়ও হয়েছে। এতে গরমও কমে এসেছে। এ বছর বৈশাখ মাসে বৃষ্টিহীন যাচ্ছিলো। প্রচ- গরমে জনজীবনে নাভিশ্বাস উঠেছে। এ অবস্থায় এই বৃষ্টি মানুষের মধ্যে স্বস্তির নিঃশ্বাস এনে দিয়েছে। বৃষ্টির পর আবহাওয়া শীতল হয়েছে। ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও মানুষকে বৃষ্টি নিয়ে পোস্ট করতে দেখা গেছে। কোমরপুর গ্রামের কামাল হোসেন ফেসবুকে পোস্ট করেছেন আলহামদুলিল্লাহ আল্লাহ পাকের রহমত এর বৃষ্টি হচ্ছে কার্পাসডাঙ্গায়। কার্পাসডাঙ্গা গ্রামের জাহিদ ফেসবুকে পোস্ট করেছেন রহমতের বৃষ্টি শুরু কার্পাসডাঙ্গাতে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More