চুয়াডাঙ্গায় আরও একজনের করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। সদর হাসপাতালের হলুদ জোনে ভর্তির ৩৫ মিনিটের মাথায় মারা যান ৭২ বছর বয়সী হায়দার আলী। তিনি আলমডাঙ্গা উপজেলার বড় গাংনীর মৃত আইজউদ্দীন মণ্ডরলে ছেলে। আজ সোমবার (২৮ জুন) সকালে মৃতদেহ নেয়া হয় নিজ গ্রামে।
পরিবারের সদস্যরা বলেছেন, হায়দার আলী বেশ কিছুদিন ধরে সর্দি কাশিতে ভুগছিলেন। রোববার রাতে শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে তাকে নেয়া হয় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে। রাত সাড়ে ৩টার দিকে তাকে ভর্তি করা হয়। হলুদ জোনে নিয়ে চিকিৎসা দেয়ার এক পর্যায়ে ৪টা ৫ মিনিটে মারা যান তিনি। চুয়াডাঙ্গা স্বাস্থ্য বিভাগ তার নমুনা সংগ্রহ করে স্বাস্থ্য বিধি মেনে দাফনের পরামর্শ দিয়েছে। অপরদিকে গত রোববার চুয়াডাঙ্গায় করোনায় ২ জনসহ উপসর্গ নিয়ে ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। সংক্রমণের হার বেড়েই চলেছে। কোভিড-১৯ সংক্রমণ রোধে চুয়াডাঙ্গায় কঠোর লকডাউন চলছে। এরপরও দোকানিদের অনেকে দোকানের আশেপাশে ঘুরছেন। কিছু ক্রেতাকেও সোমবার সকালে জেলা শহরের বিপনি বিতানগুলোতে ঘুরতে দেখা গেছে। অটোও চলছে। অবশ্য রোববার দুপুরের পর পুলিশ ও সিভিল প্রশাসনের বাড়তি তৎপরতায় শহরে অযাচিত মানুষের উপস্থিত ছিলো না বললেই চলে।
এদিকে জেলার দামুড়হুদা ও জীবননগরসহ সদর উপজেলার কিছু গ্রাম এবং চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার কিছু মহল্লায় গণহারে সর্দি কাশিতে আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে। এদের অনেকেই করোনা পরীক্ষা করার জন্য স্বাস্থ্য বিভাগের সাথে যোগাযোগ করছেন না। যখনই শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাচ্ছে তখনই নেয়া হচ্ছে হাসপাতালে। ফলে রেডজোনের চেয়ে হলুদ জোনেই মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। বাড়িতেও মৃতু্যৃ হচ্ছে অনেকের।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More