চুয়াডাঙ্গায় মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মতবিনিময় শেষে শাজাহান খান এমপি

মালিক বা শ্রমিকরা কেউ পরিবহন ধর্মঘট ডাকেনি
স্টাফ রিপোর্টার: মালিক বা শ্রমিকরা কেউ পরিবহন ধর্মঘট ডাকেনি। তেলের দাম বাড়ায় পরিবহন মালিকরা লোকসানের হাত থেকে বাঁচতে গাড়ি বন্ধ রেখেছে। ধর্মঘট ডাকতে হলে নোটিশ দিতে হয় এবং দাবি-দাওয়া জানাতে হয়। যেহেতু কিছুই করা হয়নি সুতরাং এটাকে ধর্মঘট বলা যাবে না। রোববার সকাল ১১টায় সরকারের সরকারের সাথে আলোচনা হবে। আশা করছি আলোচনার মাধ্যমে এর সমাধান হবে। গতকাল শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে চুয়াডাঙ্গা জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনে আয়োজিত মতবিনিময়সভা শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান খান এমপি। এর আগে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, বাংলাদেশের সকল মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠিত কারার লক্ষ্যে ও তাদের দাবি নিয়ে কথা বলার জন্য গঠন করা হয়েছে সম্মিলিত মুক্তিযোদ্ধা সংসদ। এই সংসদের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন বিশেষায়িত হাসপাতালে মুক্তিযোদ্ধাদের ফ্রী চিকিৎসার ব্যবস্থা চালুর পাশাপাশি সরকারের কাছে দাবি রেখেছি মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য রেশনের ব্যবস্থা চালু করার। মুক্তিযোদ্ধাদের এ রকম বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা নিয়ে কাজ করছে সম্মিলিত মুক্তিযোদ্ধা সংসদ। বিএনপির সময় বহু রাজাকারের নাম মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় উঠানো হয়েছে। সরকারি সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন অনেক প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা। কিন্তু বর্তমান সরকারের আমলে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধারাই সরকারি সকল সুযোগ সুবিধা ভোগ করছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযোদ্ধাদের কথা সবসময় ভাবেন। মুক্তিযোদ্ধাদের জীবন মান উন্নয়নে যা করণীয় তা করে যাচ্ছেন তিনি। আজ মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য মাসিক ভাতা করেছেন ২০ হাজার টাকা। মুক্তিযোদ্ধাদের দিয়েছেন নতুন বাড়ি। এখন বাড়ি করার জন্য লোনও দিচ্ছেন। এই সরকারের আমলেই স্বাধীনতা বিরোধী রাজাকারদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হয়েছে। আমাদের মনে রাখতে হবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে আমরা এই স্বাধীন বাংলাদেশ পেতাম না। আমাদের সকলকে সেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে বুকে ধারণ করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বুকে ধারণ করতে হবে। তাহলেই এই স্বাধীন বাংলাদেশ হবে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ। সভায় চুয়াডাঙ্গা জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু হোসেনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সম্মিলিত মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সচিব ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ওসমান আলী, জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. মাহবুব হোসেন মেহেদী, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম মালিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মাবুদ জোয়ার্দ্দার, দামুড়হুদা উপজেলার সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আছির উদ্দিন, ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দিন, সাবেক জীবননগর থানা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা নিজাম উদ্দিন। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম সারোয়ার সিদ্দিক বাবলু। এর আগে শাজাহান খান এমপি মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে এসে পৌঁছুলে তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More