চুয়াডাঙ্গা পৌর কলেজের বিএম শাখা অফিসে তালা : প্রতিবাদে ছাত্র-শিক্ষকদের অবস্থান কর্মসূচি

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা পৌর ডিগ্রি কলেজে ছাত্র শিক্ষক ও কর্মচারীর ব্যানারে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। কলেজের ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা (বিএম) শাখা অফিসে তালা দেয়ার প্রতিবাদে গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। অবস্থান কর্মসূচীতে উপস্থিত সাধারণ শিক্ষার্থীরা উত্তেজিত হয়ে উঠে। পরবর্তীতে ওই শাখা অফিস খুলে দিলে শান্ত হয় শিক্ষার্থীরা। এদিকে, কলেজ অধ্যক্ষ বলেছেন, ব্যবস্থপনা কমিটির সিদ্ধান্তেই তালা দেয়া হয়েছিলো। বহিরাগতদের ডেকে কলেজে মানববন্ধন করে ভাবমূর্তি ক্ষুণœ করার চেষ্টা করা হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি। অবস্থান কর্মসূচীতে অংশ নেয়া সাধারণ শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা অভিযোগ করে বলেন, চুয়াডাঙ্গা পৌর ডিগ্রি কলেজের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই বিএম শাখা ও এর আলাদা অফিস রয়েছে। কিন্তু হঠাৎ করে গত ১৮ আগষ্ট ছুটির দিন এই শাখার অফিস কক্ষ থেকে আসবাবপত্র বের করে তালা ঝুলিয়ে দেয়া হয়। অন্যান্য ডিপার্টমেন্টের আলাদা অফিস রুম থাকলেও হঠাৎ করে বিএম শাখার অফিস কেন বন্ধ করে দেয়া হলো তা কাউকে জানানো হয়নি। কিছু জামাত বিএনপির এজেন্ট ঢুকেছে কলেজে। তারাই অধ্যক্ষকে ভুল বুঝিয়ে এগুলো করাচ্ছে। অবিলম্বে বিএম শাখার অফিস কক্ষের তালা খুলে দিতে হবে। অন্যথায় অধ্যক্ষের কক্ষেও তালা ঝুলিয়ে দেয়া হবে বলে অবস্থান কর্মসূচি থেকে আল্টিমেটাম দেয়া হয়। পরবর্তীতে কলেজের অধ্যক্ষ আবু রাশেদ উপস্থিত হয়ে আন্দোলনরতদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন “এটা কলেজ পরিচালনা কমিটির সিদ্ধান্ত আমার নিজের কোন সিদ্ধান্ত না। তবে আপনাদের দাবি আমি কমিটির কাছে জানাবো।” এ সময় আন্দোলনে অংশ নেয়া শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা চেচামেচি শুরু করে এবং বিভিন্ন সেøাগান দিতে থাকে। পরবর্তীতে অধ্যক্ষের কক্ষে সাধারণ শিক্ষক ও অধ্যক্ষের মধ্যে আলোচনা শেষে বিএম শাখার অফিস কক্ষের তালা খুলে দেয়া হয়। এদিকে চুয়াডাঙ্গা পৌর ডিগ্রি কলেজের বিএম শাখার অফিস কক্ষ বন্ধ করে দেয়ার বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে অধ্যক্ষ আবু রাশেদ দৈনিক মাথাভাঙ্গাকে বলেন, কলেজের ব্যবস্থপনা কমিটির সিদ্ধান্তেই ওই অফিসে তালা দেয়া হয়েছিল। কলেজে কারিগরি ও বিএম শাখার আলাদা অফিস। সব শিক্ষককে এক জায়গায় করার জন্য এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। কিন্তু সাধারণ শিক্ষার্থীদের ভুল বুঝিয়ে ও বহিরাগতদের ডেকে কলেজে মানববন্ধন করে আমার ভাবমূর্তি ক্ষণœ করার চেষ্টা করা হয়েছে। দু-চারজন বাদে মানববন্ধনে অংশ নেয়া সবাই বহিরাগত বলে দাবি করেন তিনি।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More