চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে করোনা রোগীদের সেবায় দুটি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর মেশিন দিলো চেম্বার অব কমার্স

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা ১৫০ শয্যা করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে করোনা রোগীদের সেবায় দুইটি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর মেশিন প্রদান করেছে চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় চুয়াডাঙ্গা চেম্বারের সিনিয়র সহ-সভাপতি শাহারিন হক মালিক চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন ডা. এএসএম হারুফ হাসানের কাছে দুইটি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর মেশিন প্রদান করেন।
এ সময় হাসপাতালের আরএমও ডা. ফাতেহ আকরাম, চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সহ-সভাপতি মঞ্জুরুল আলম মালিক লার্জ, পরিচালক কিশোর কুমার কুন্ডু ও চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুজ্জামান চাঁদ উপস্থিত ছিলেন।
চুয়াডাঙ্গা চেম্বারের সিনিয়র সহ-সভাপতি শাহারিন হক মালিক জানান, করোনা প্রতিরোধ এবং করোনা রোগীদের সহায়তার জন্য চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্স ও তারা দেবী ফাউন্ডেশন চলতি মাসের ১০ তারিখ থেকে করোনা আক্রান্ত রোগীদের ২৪ ঘন্টা ফ্রি অক্সিজেন সেবা চালু করেছে। এছাড়া জেলাতে পর্যায়ক্রমে এক লাখ মাস্ক বিতরণ কার্যক্রমও চলছে।
তিনি আরও জানান, জেলায় প্রতিদিন করোনা রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে আইসিইউ সংকট রয়েছে। ইতিমধ্যে সাজেদা ফাউন্ডেশন চার শয্যা বিশিষ্ট আইসিইউ বেড চালু করায় সাজেদা ফাউন্ডেশনকে ধন্যবাদ জানান।
করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের অক্সিজেনের চাহিদা পূরণের জন্য চুয়াডাঙ্গা করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের জন এফবিসিসিআই’র দেয়া দুটি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর মেশিন সরবরাহ করা হয়। এছাড়া এফবিসিসিআইয়ের দেয়া আরো ১০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্স এর ২৪ ঘন্টা ফ্রি অক্সিজেন সেবা কাজে ব্যবহার হচ্ছে। এ পর্যন্ত চুয়াডাঙ্গা চেম্বার হতে ১৬৮ জন রোগীকে ফ্রি অক্সিজেন সেবা দেয়া হয়েছে এবং সেবা কাজটি অব্যহত আছে বলেও চেম্বার সূত্রে জানা যায়।
চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন ডা. এএসএম মারুফ হাসান জানান, করোনা রোগীদের সেবায় চুয়াডাঙ্গা চেম্বারের অবদানকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। এসময় তিনি আশা প্রকাশ করেন চুয়াডাঙ্গার বিভিন্ন সংস্থা ও ব্যাক্তি করোনা রোগীদের সেবায় এগিয়ে আসবেন। তিনি চেম্বারের ফ্রি অক্সিজেন সেবা কার্যক্রমেরও প্রশংসা করেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More