ছাত্রদল নেতা মোমিন ও তৌফিককে অবাঞ্চিত ঘোষণা

চুয়াডাঙ্গায় তিন দফা দাবিতে ছাত্রদলের সংবাদ সম্মেলন : আলমডাঙ্গায় প্রতিবাদসভা
স্টাফ রিপোর্টার: আগামী তিনদিনের মধ্যে সদস্য ঘোষিত ৫টি ইউনিট কমিটি বাতিল, ছাত্রদল নেতা মোমিন ও তৌফিককে অবাঞ্চিত ঘোষণা এবং জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শাহজাহান খানের স্বপদে বহালের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে জেলা ছাত্রদল। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবে জেলা ছাত্রদলের সহসভাপতি আশিকুল হক সংবাদ সম্মেলনে এ আল্টিমেটাম ঘোষণা করেন।
সংবাদ সম্মেলনে জেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাজিদ হাসান মালিক, সদর উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক আল বেলাল, রাকিব রায়হান ও হাসানুজ্জামান, সদস্য আরিফুল ইসলাম, মো. তুহিন, খালেকুর রহমান, চুয়াডাঙ্গা পৌর শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক ওয়ালিদ হাসান, সদস্য রনি আহম্মেদ, মেহেদী হাসান সাজু, কলেজ শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক রুবেল হোসেন ও আব্দুল আজিজ এবং সদস্য সোহাগ আলীসহ ছাত্রদল বিভিন্ন শাখার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
সম্প্রতি কেন্দ্রীয় জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল চুয়াডাঙ্গা জেলার পাঁচটি কমিটি অনুমোদন দেয়। ওই পাঁচটি কমিটি হলো, চুয়াডাঙ্গা পৌর শাখা, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ শাখা, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা শাখা, জীবননগর উপজেলা শাখা এবং আলমডাঙ্গা পৌর শাখার আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন দেয়া হয়।
সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেন, অবিলম্বে ঘোষিত পাঁচটি কমিটি বাতিল করতে হবে। তা না হলে ছাত্রদল নেতারা গণপদত্যাগ করবে। সুপরিকল্পিতভাবে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শাহজাহান খানকে অব্যাহতি দিয়ে তৌফিক এলাহীকে সভাপতির দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। সেটিও বাতিল করে শাহজাহান খানকে স্বপদে ফিরিয়ে আনতে হবে। জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মোমিন মালিথা জেলা বিএনপির একটি অংশকে প্রতিষ্ঠিত করার নোংরা এজেন্ডা বাস্তবায়ন করেছেন। তিনি দীর্ঘ ৭ বছর ঢাকায় অবস্থান করছেন। সময় এসেছে এই তেলবাজকে প্রতিহত করার।
আলমডাঙ্গা ব্যুরো জানিয়েছে, আলমডাঙ্গা পৌর ছাত্রদলের ঘোষিত কমিটিতে সাংগঠনিক যোগ্য নেতৃবৃন্দকে পাশ কাটিয়ে অছাত্র ও বিতর্কিতদের প্রাধান্য দেয়ার প্রতিবাদে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে পৌর ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে হাজীমোড়স্থ চাতালে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবাদ সমাবেশে পৌর ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ বলেন, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদ চুযাডাঙ্গা জেলা ছাত্রদলের পাঁচটি ইউনিট কমিটির অনুমোদন হয়। এর মধ্যদিয়ে চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদলের তৃণমূলের ত্যাগী ও পরিশ্রমী নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়ন করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় ছাত্রদল ২০১৮ সালে চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদলের ১২ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি প্রদান করে। তারপর থেকেই ত্যাগী ও পরিশ্রমী নেতাকর্মীরা বিরোধীতা করেন। তৎকালীন কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যস্থতায় নতুন করে ইউনিট কমিটি গঠনের নির্দেশ দেয়। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে সারা দেশে ১০টি প্রতিনিধি দল গঠিত হয়। যারা নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় করে যোগ্য ও ত্যাগী নেতাদের দিয়ে কমিটি গঠনের নির্দেশ পায়। কিন্তু প্রতিনিধি দল নানাভাবে প্রভাবিত হয়ে যোগ্য ও ত্যাগী নেতাদের অবমূল্যায়ন করে অযোগ্য নেতাদের নিযে কমিটি গঠন করে। সুপরিকল্পিতভাবে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শাহজান খানকে অব্যাহতি দিয়ে সিনিয়র সহসভাপতি তৌফিক এলাহী এবং মোমিন মালিতা মিলে চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদলের ৫টি ইউনিট কমিটিতে স্বাক্ষর করে ছাত্রদলের ইতিহাস রচনা করে। আলমডাঙ্গা পৌর ছাত্রদলে যাকে আহ্বায়ক করা হয়েছে সে কখনো কোন দলীয় প্রোগ্রামে উপস্থিত থাকে না। জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক দীর্ঘদিন ঢাকাতে অবস্থান করতো। মোমিন মালিতা বিবাহিত ও দুই সন্তানের জনক। এসময় আলমডাঙ্গা পৌর ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা তৌফিক এলাহী ও মোমিন মালিতাকে আলমডাঙ্গা ও চুয়াডাঙ্গায় অবাঞ্চিত ঘোষণা করেন। আগামী ৩ দিনের মধ্যে সদ্য ঘোঘিত ৫টি ইউনিট কমিটি বাতিল করে ছাত্রদলের মতামতের ভিত্তিতে কমিটি পুর্নগঠন করতে হবে। জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শাহজাহানকে অব্যাহতি আদেশ প্রত্যাহারের দাবি করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন পৌর ছাত্রদলের ইফতেকারুল ইসলাম রাশেদ, জাহিদ হাসান, যুগ্ম আহ্বায়ক লিখন হাসান হিরক, রাজীব হাসান, রুবেল হোসেন, সাঈদ হাসান, ওয়হিদুজ্জামান শুভ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More