ঝিনাইদহে অস্ত্র মামলায় যুবকের ১৭ বছরের জেল

 

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: ঝিনাইদহে অস্ত্র মামলায় মনিরুল ইসলাম নামে এক যুবকের ১৭ বছরের জেল প্রদান করেছেন ঝিনাইদহের সিনিয়র স্পেশাল ট্রাব্যুনাল জজ। গতকাল সোমবার এ রায় প্রদান করেন ঝিনাইদহের সিনিয়র স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল জজ আদালতের বিচারক মো. নাজিমুদ্দৌলা। মনিরুল ইসলাম ঝিনাইদহ সদর উপজেলার উত্তর কাস্টসাগরা গ্রামের মহিউদ্দিনের ছেলে।

আদালতসূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ৯ জানুয়ারি মনিরুল ইসলামের বাড়িতে অস্ত্র মজুদ আছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ সেখানে অভিযান চালালে আসামি মনিরুল পালানোর চেষ্টা করে। পুলিশ এ সময় তার তার শয়ন কক্ষ হতে আটক করে। আটকরে এক পর্যায়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে মনিরুল তার শয়ন কক্ষের খাটের ওপর বালিশের নিচ থেকে একটি দেশি তৈরি শার্টারগান ও তিন রাউন্ড গুলি বের করে। কিন্তু উক্ত অস্ত্র ও গুলির কোনো কাগজপত্র দেখাতে পারে না মনিরুল। ফলে এটি অবৈধ বলে পরিগণিত হয়। অবৈধ অস্ত্র রাখার দায়ে ঝিনাইদহ সদর থানার এসআই ফজলুর রহমান বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন মনিরুলের বিরুদ্ধে। এসআই শেখ মো. আনোয়ার হোসেন তদন্ত শেষে আসামির বিরুদ্ধে চার্জশীট প্রদান করেন। দীর্ঘ ৫ বছর ধরে মামলা চলার পর সোমবার ঝিনাইদহের সিনিয়র স্পেশাল ট্রাব্যুনাল জজ আদালতের বিচারক মো. নাজিমুদ্দৌলা ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯ (এ) ধারায় দোষী সাবস্ত করে দশ বছর সশ্রম কারাদ- এবং ১৯ (এফ) ধারায় দোষী সাব্বস্ত করে সাত বছরের সশ্রম কারাদ- করেন। আসামি জামিনে থাকায় জেল হাজতে প্রেরণ করেন বিচারক। রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী ছিলেন মো. ইসমাইল হোসেন ও আসামি পক্ষের আইনজীবি ছিলেন এস.এম মশিয়ুর রহমান।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More