দামুড়হুদার দশমীপাড়ার অগ্নিদগ্ধ শিশুকে ইউএনও দিলারা রহমান  ও প্রবাসী জসিম উদ্দিনের আর্থিক সহযোগিতা প্রদান

দামুড়হুদা অফিসঃ দামুড়হুদা উপজেলা সদরের দশমীপাড়ার দিনমজুরের দগ্ধ শিশু কন্যা ফারহানা খাতুন (৬) এর চিকিৎসায় আর্থিক  সহযোগিতা করেছেন দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান ও প্রবাসী আব্দুর রহমান জসিম। রোববার ইউএনও ও প্রবাসী পৃথক ভাবে শিশুটির পরিবারের হাতে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান
করেন।
জানাযায়, দামুড়হুদা উপজেলা সদরের দশমীপাড়ার অসহায় পাখি ভ্যানচালক ফারুকের শিশু কন্যা ফারহানা অগ্নিদগ্ধ হয়ে শয্যাশায়ী হওয়ার সংবাদ পেয়ে গতকাল রোববার দুপুরে তার বাড়িতে ছুটে যান দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান। এসময় অগ্নিদগ্ধ শিশুটির শারিরীক সার্বিক খোঁজখবর নেন। এসময় তিনি জানতে পারেন অর্থাভাবে শিশুটির চিকিৎসা হচ্ছে না। সেসময় তিনি দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে শিশুটির চিকিৎসার জন্য নগদ ১০হাজার টাকার আর্থিক সহযোগিতা করেন। এবং তৎক্ষনাৎ দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডা.আবু হেনা মোহাম্মদ জামাল শুভ’র সাথে কথা বলে শিশুটিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করে দেন। এদিকে, গতকাল রোববার বিকেলে দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমানের ফেসবুক স্টাটাস দেখে দামুড়হুদা উপজেলার দৈউলী গ্রামের হাজি জামাল উদ্দিনের ছেলে প্রবাসী জসিম উদ্দিন শিশুটির চিকিৎসায় আর্থিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। প্রবাসী জসিম উদ্দিনের পক্ষে “ওরা বন্ধু সংঘ’র” প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সাংবাদিক তানজির ফয়সাল, “ওরা বন্ধু সংঘের” সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সাংবাদিক এমআই মিরাজ, দামুড়হুদা প্রেস ক্লাবের যুগ্ন সম্পাদক  হাবিবুর রহমান হাবীব  নগদ ১০হাজার টাকার আর্থিক সহযোগিতা পৌঁছে দেন। বর্তমানে অগ্নিদগ্ধ শিশু ফারহানা খাতুন দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসারত।
প্রবাসী আব্দুর রহমান জসিম জানান, রোববার বিকেলে দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমানের ফেসবুক স্টাটাস দেখি।এসময় দৈনিক মাথাভাঙ্গার সাংবাদিক এমআই মিরাজের সাথে কথা বলে বিস্তারিত জানতে পারি। এবং তার সাথে পরামর্শক্রমে বন্ধুবর সাংবাদিক তানজির ফয়সাল ও বড় ভাই সাংবাদিক হাবিবুর রহমানের মাধ্যমে নগদ দশ হাজার টাকার আর্থিক সহযোগিতা করি শিশুটির চিকিৎসার জন্য।
উল্লেখ্য,চলতি বছরের ১৮মার্চ শিশু ফারহানা প্রতিবেশির বাড়িতে খেলা করছিলো। এসময় অসাবধানতাবসত শিশুটি অগ্নিদগ্ধ হয়। এ সংক্রান্ত ১৯মার্চ দৈনিক মাথাভাঙ্গায় একটি সংবাদ প্রকাশ হয়।
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More