দামুড়হুদায় করোনা জয় করে তিন স্বাস্থ্য কর্মির কর্মস্থলে যোগদান

দামুড়হুদা অফিস: করোনায় (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে যুদ্ধ জয়ী হয়ে কর্মস্থলে যোগদান করলেন দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কম-প্লেক্সের তিন স্বাস্থ্য কর্মি।এরা হলেন দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কম-প্লেক্সের উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার রোকনুজ্জামান, একই পদে তার স্ত্রী এলিচ আক্তার ও সেনেটারী ইন্সেপেক্টর জামান আলি। রোববার ( ৭ জুন) সকাল ১০টার দিকে তারা কর্মস্থলে যোগদান করেন। ১৪ দিন প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে থাকার পর দুইবার নমুনা পরীক্ষায় ফলাফল নেগেটিভ আসলে দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস.এম মুনিম লিংকন ও উপজেলা স্বাস্থ্য পঃপঃ কর্মকর্তা ডা.আবু হেনা মোহাম্মদ জামাল শুভ তাদেরকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।
করোনা জয়ী উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার রোকনুজ্জামান, এলিচ আক্তার ও সেনেটারী ইন্সেপেক্টর জামান আলি জানান,করোনা যুদ্ধে জয়ী হয়ে আবারও মানুষের সেবায় কাজ করতে পেরে আনন্দিত। তাদের চিকিৎসক উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা আবু হেনা মোহাম্মদ জামাল শুভ স্যারসহ যারা বিভিন্নভাবে মনোবল যুগিয়েছেন সকল শুভাকাঙ্ক্ষীদের কাছে কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেন।
দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য পঃপঃ কর্মকর্তা ডা. আবু হেনা মোহাম্মদ জামাল শুভ জানান, ১৪ মে বুহস্পতিবার এদের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। ১৬ মে শনিবার তাদের রিপোর্ট পজেটিভ আসে। ঐ দিন থেকে সেনেটারী ইন্সেপেক্টর জামাত আলি কে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স আইসোলেশনে রাখা হলেও রোকনুজ্জামান, তার স্ত্রী এলিচ আক্তার ১৬ থেকে ১৯ তারিখ পর্যন্ত হোম আইসোলেশনে থাকে। এরপর এলিচ আক্তারের অবস্থার অবনতি ঘটলে ২০ মে প্রাতিঠানিক আইসোলেশনে নেওয়া হয়। এরপর সকলের অবস্থান উন্নতি হলে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ল্যাবে স্যাম্পুল পাঠানো হলে দুইবার এদের রিপোর্ট নেগেটিভ আসলে ৩০ মে এদের ছাড়পত্র দেওয়া হয়। এসময় তাদের আরো ৭দিন পর্যবেক্ষনে রাখা হয়। ২৩দিনপর আজ রোববার কর্মস্থল উপজেলা স্বাস্থ্র কমপ্লেক্সে যোগদান করেন। উপজেলা স্বাস্থ্য পঃপঃ কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।# #

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More