দ্রুত ভিসা ব্যবস্থা চালু না হলে আন্দোলনের ডাক

দর্শনায় বাংলাদেশীদের ভিসা চালুর দাবিতে মানববন্ধন

দর্শনা অফিস: দীর্ঘ আড়াই বছর দর্শনা সীমান্ত দিয়ে পাসপোর্টধারী যাত্রীদের ভিসা দেয়া বন্ধ থাকায় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে ২৫ জেলার মানুষের। দর্শনা-গেদে স্থলপথে বাংলাদেশীদের জন্য পুনরায় ট্যুরিস্ট ভিসা চালুর দাবিতে সোমবার সর্বস্তরের জনগন দর্শনা প্রেসক্লাবের সামনে দীর্ঘ মানববন্ধন করেছে। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দর্শনা-মুজিবনগর সড়ক প্রেসক্লাবে সামনে দর্শনা নাগরিক কমিটির সদস্য সচিব গোলাম ফারুক আরিফের সভাপতিত্বে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন দামুড়হুদা উপজেলা আ.লীগ সভাপতি ও সাবেক জেলা পরিষদ প্রশাসক মাহফুজুর রহমান মনজু। তিনি বলেন, দর্শনা একটি আন্তর্জাতিক স্থলপথ। এপথে শুধু ভারতীয়তা যাতায়াত করতে পারবে আর বাংলাদেশীরা পারবে না এটা একটি চরম মানবাধিকার লংঘনের সামিল। অতিসত্বর দর্শনা-গেদে স্থলপথে বাংলাদেশীদের জন্য ট্যুরিস্ট ভিসা দেয়া হোক। বীর মুক্তিযোদ্ধা  রুস্তম আলী বলেন, দর্শনা-গেদে স্থলপথে বাংলাদেশের ২৫-৩০টি জেলার সব ধরনের মানুষ যাতায়াত করতো, যেখানে সরকার প্রতিদিন ৬ থেকে ৭ লাখ টাকা রাজস্ব আয় করতো। দর্শনা প্রেসক্লাবর সাবেক সভাপতি হানিফ ম-লের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল হান্নান ছোট, জেলা যুবলীগ নেতা আব্দুস সালাম ভুট্ট, ভালবা বন্ধনের উপদেষ্টা শিক্ষক শাওন, বদিউজ্জামন, জুলফিকার আলী, আ.লীগ নেতা বিল্লাল হোসেন, সাংবাদিক সমিতির সভাপতি মনিরুজ্জামান ধীরু, সাবেক সভাপতি ইকরামুল হক পিপুল, জনপ্রতিনিধি, সাংস্কৃতিক কর্মী, পেশাজীবীসহ বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

উল্লেখ্য, মহামারি করনার কারণে ২০২০ সালে ২৬ মার্চ দর্শনা-গেদে স্থলপথে সব ধরনের ভিসা বন্ধ হয়ে যায়। ২০২১ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর স্বাস্থ্যবিধি মেনে দর্শনা আন্তর্জাতিক রেলপথে ভারতের সাথে মালামাল আমদানি শুরু হয়। সাথে বয়স্করোগী ও বিজনেস ভিসা চালু করা হলে গত ৫ ডিসেম্বর তা বন্ধ হয়ে যায়। তারপর থেকে গত আড়াই বছর দর্শনা-গেদে স্থলপথে বাংলাদেশীরা ভারতে প্রবেশ করতে পারেনি।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More