নারীর প্রতি সহিংসতা রোধ করতে সম্মিলিতভাবে কাজ করার আহ্বান

চুয়াডাঙ্গা জেলাব্যাপী নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে র‌্যালি ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টার: “নারী-নির্যাতন আর নয়, করবে নারী বিশ^জয়” এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ ও সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার লক্ষ্যে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে চারটি উপজেলায় এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। নারীর প্রতি সহিংসতা রোধ করতে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে জানিয়ে বক্তারা বলেন, সামাজিকভাবে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে নারীরা। সম্প্রতি ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদ- করেছে বর্তমান সরকার। এ লক্ষ্যে কাজ চলমান রয়েছে। ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলতে পারলে নারীর প্রতি সহিংসতা আর থাকবে না। নারীদের প্রতি সহিংসতা যে কেবল তাদের ব্যক্তি অধিকার ক্ষুণœ করে, তা নয়। অপরাধীরা প্রায় সময়ই বিচারহীনতার সুযোগ নিয়ে এমন সব কর্মকা- করে থাকে। যে সকল নারী ও মেয়েদের মধ্যে এক ধরনের আতঙ্ক তৈরি হয়। এর ফলে একটি দেশের সামাজিক ও অর্থনৈতিক অবস্থার ওপর সুদুরপ্রসারী নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। বক্তারা আরও বলেন, সময় এসেছে মানসিকতা ও দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করার। ধর্মীয় অনুশাসন মেনে নারীকে তার সঠিক মর্যাদা দানের। এজন্য অভিভাবকদের সংকীর্ণ মানসিকতার পরিবর্তন, পারিবারিক সহিংসতা প্রতিরোধে পরস্পরের প্রতি বিশ্বাস ও ভালোবাসা জাগ্রত রাখতে হবে। প্রচলিত আবদ্ধ সাংস্কৃতিক দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তনের মাধ্যমে নারীর প্রতি শ্রদ্ধাবোধ জাগ্রত করতে হবে। বৈষম্যের মূল কারণ বের করে সমাধান এবং মেয়েদের প্রকৃত স্বাধীনতা দিতে হবে। পুরুষ ও নারী পরস্পরের প্রতিপক্ষ নয়। বক্তারা বলেন, সমাজে নারী পুরুষের যে ন্যায্য অধিকার ও গুরুত্ব রয়েছে; উভয় মিলে যে অভিন্ন সত্তা, এই বোধটুকু সমাজের সবাইকে গভীরভাবে উপলব্ধি করতে পারলেই আমরা নারীর প্রতি সহিংসতামুক্ত সমাজ গড়তে পারবো। তাই আসুন সবাই সহিংসতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াই। নিজ নিজ জায়গা থেকে সোচ্চার হয়ে প্রতিরোধ করি নারী নির্যাতন।
চুয়াডাঙ্গায় র‌্যালি ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভার্চুয়াল আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয় জেলা পর্যায়েও। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা চত্বরে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ সাদিকুর রহমান। প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন। বিশেষ অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইসরাত জাহান, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান গরীব রুহানী মাসুম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহাজাদি মিলি ও সদর উপজেলা প্রকৌশলী আরিফ উদৌলা। সদর উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার সোহেল আহমেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা.এএইচএম শামিমুজ্জামান, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ইব্রাহিম হামিদ শাহিন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বিকাশ কুমার সাহা, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার উত্তম কুমার কুন্ডু, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মৌমিতা পারভীন, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।
এদিকে, নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে জেলা পর্যায়ে ভার্চুয়াল আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মনিরা পারভীন। প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার। ভার্চুয়াল সভায় জেলা পর্যায়ের বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তাবৃন্দ যুক্ত ছিলেন।
আলমডাঙ্গা ব্যুরো জানিয়েছে, আলমডাঙ্গায় নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা চত্বর থেকে র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়। পরে উপজেলা উন্মুক্তমঞ্চে আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. লিটন আলীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আইয়ুব হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. সালমুন আহমেদ ডন, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ইয়াকুব মাস্টার, উপজেলা শিক্ষা অফিসার শামসুজ্জোহা, আলমডাঙ্গা সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ গোলাম সরোয়ার মিঠু, হারদী জোহা কলেজের অধ্যক্ষ ওমর ফারুক, আলমডাঙ্গা মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আশুরা খাতুন পাতা। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মাকছুরা জান্নাত। সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শামীম রেজার উপস্থাপনায় উপস্থিত ছিলেন ইউআরসি ইন্সটেক্টর আনারুল ইসলাম সমবায় কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান, পল্লি উন্নয়ন কর্মকর্তা শায়লা শারমীন, মাওলানা ওমর ফারুক, তথ্য কর্মকর্তা সিগ্ধা দাস, মীর শামসুল ইসলাম, পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষক স্মৃতি কনা দাস, সমবায় পরিদর্শক আবু হাসেম, ব্রাক সামাজিক ক্ষমতায়ন কর্মসূচির সংগঠক পারভীনা খাতুনসহ পল্লী সমাজের সদস্যরা।
দামুড়হুদা অফিস জানিয়েছে, চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় নারীর সহিংসতা রোধে র‌্যালি ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ র‌্যালি ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলি মুনছুর বাবু ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমানের নেতৃত্বে উপজেলা পরিষদ থেকে এক র‌্যালি বের হয়ে একই স্থানে এসে শেষ হয়। র‌্যালি শেষে উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমানের সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলি মুনছুর বাবু। অতিথি ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মহি উদ্দীন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সহিদুল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহিদা খাতুন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কৃষি অফিসার মনিরুজ্জামান, মৎস কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আইয়ুব আলি, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হোসনে জাহান, চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদের সদস্য আওয়ামী লীগ নেতা শফিউল কবির ইউসুফ, দামুড়হুদা প্রেসক্লাবের সভাপতি এম নুরুন্নবী, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান প্রমুখ।
জীবননগর ব্যুরো জানিয়েছে, জীবননগর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বেলা ১০টার দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে র‌্যালিটি শেষ হয়। র‌্যালি শেষে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার লক্ষ্যে এক আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। জীবননগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মুনিম লিংকনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জীবননগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজি মো. হাফিজুর রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান মো. আব্দুস সালাম ঈশা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছা. আয়েশা সুলতানা লাকি, জীবননগর থানার ওসি মো. সাইফুল ইসলাম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জীবননগরের সকল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানগণ, উপজেলার সবগুলো সরকারি দফতরের প্রধানগণ ও সূধীবৃন্দ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More