নিজের বলার মতো একটা গল্প ফাউন্ডেশন’র চুয়াডাঙ্গা সদস্যদের মিটাপ : ইন্টারনেট খুলে দিয়েছে অপার সম্ভবনার দরজা

স্টাফ রিপোর্টার: উদ্যোগতা হতে হলে প্রথম প্রয়োজন ভাল মানুষ হওয়া। নিজের বলার মতো একটা গল্প ফাউন্ডেশন দেশের অসংখ্য তরুণ তরুণীদের দক্ষতা বৃদ্ধির পাশাপাশি ভাল মানুষ হয়ে নিজের এবং সমাজের তথা দেশের জন্য কাজ করার যে উদ্যোগ নিয়েছে তা অবশ্যই প্রশংসার দাবি রাখে।
চুয়াডাঙ্গা যুব উন্নয়ন অধিদফতরের উপ পরিচালক মো. মাসুম আহমেদ প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত অভিমত ব্যক্ত করে বলেছেন, ইন্টারনেট গোটা বিশ^কেই হাতের মুঠোয় যেমন এনে দিয়েছে, তেমনই বিভিন্œ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যোগাযোগ স্থাপনের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় যে কোন দ্রব্য সামগ্রি আদান প্রদানের দরজা খুলে দিয়েছে। সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারলে ঘরে বসেই স্বচ্ছ্বল হওয়া যায়। এখানে উপস্থিত অনেকেই সে কথাগুলোই বলেছেন। দেশে যতো উদ্যোগতা বৃদ্ধি পাবে ততোই বেকারত্ব ঘুচবে।
গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা পুলিশ পার্ক মিলনায়তনে নিজের বলার মতো একটা গল্প ফাউন্ডেশনের ৫ম মেগা মিটাপ ও উদ্যোগতা ফ্যামিলি গেট টুগেদার অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মামুন হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব সভাপতি দৈনিক মাথাভাঙ্গা সম্পাদক সরদার আল আমিন। ফাউন্ডেশনের বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন ঢাকা কেন্দ্রীয় টিমের কোর ভলান্টিয়ার ও মডারেটর সাগর বনিক। চুয়াডাঙ্গার উদ্যোগতাদের মধ্যে তৌহিদুর রহমান, তারেক হোসেন, শাকুর বিন শহীদ, আরিফ হোসেন, সাজু তাওহীদ, তামান্ন উম্মে আসমা, ফারহানা শিউলী, জান্নাতুল ফেরদৌস উষা, শ্রেয়া স্মৃতি, আশরাফুল রবিউল ইসলাম পাটিয়া সুলতানা, রাশিদা রানি, জয়নব ফারুক, আরমান মমিন, রাকিব আহম্মেদ, কাজী রাজন, তাসলিমা জামান লিমাসহ ফাউন্ডেশনের সদস্যরা উপস্থিত থেকে আয়োজনকে পূর্ণতা এনে দেন। ফাউন্ডেশনের শফত বাক্য পাঠ করান হেলেন আক্তার কামনা ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More