বহির্বিভাগের সামনে থেকে আটক নারীসহ ৬ দালালের জরিমানা

মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে রোগীদের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগে পুলিশের অভিযান

মেহেরপুর অফিস: মেহেরপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল এলাকা থেকে ৬ দালালকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাদের নিকট থেকে এক হাজার টাকা করে জরিমানা আদায় করা হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুরে হাসপাতালের বহির্বিভাগ থেকে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতদের মধ্যে ৪ জন নারী দালালও রয়েছে। আটককৃতরা হলেন-মেহেরপুর সদর উপজেলার উজলপুর গ্রামের মিরাজের মেয়ে মেরিনা, দিঘিরপাড়া গ্রামের আলাউদ্দিনের মেয়ে জেসমিন, মেহেরপুর শহরের চক্রপাড়ার গোলাম রসুলের ছেলে সানোয়ার, বন্দর গ্রামের আনারুল ইসলামের মেয়ে আম্বিয়া, একই গ্রামের হারুনুর রশিদের ছেলে শাহজাহান এবং ফরজ মালিতার মেয়ে ফাজুরা। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাদের জমিরামানা করে ছেড়ে দেয়া হয়।

মেহেরপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, দীর্ঘদিন ধরে মেহেরপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের দালালরা রোগীদের সঙ্গে প্রতারণা করে হাসপাতালের বাইরের বেসরকারি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোতে নিয়ে যেত। এসব অভিযোগের ভিত্তিতে সোমবার মেহেরপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে অভিযান চালায় ডিবি ও সদর থানা পুলিশের একটি দল। এ সময় বহির্বিভাগের সামনে থেকে ৬ দালালকে আটক করা হয়। বাকিরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও মেহেরপুর জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার রিফাত জাহান। এ সময় তিনি দ-বিধি ১৮৬০ এর ২৯১ ধারায় তাদের প্রত্যেককে এক হাজার টাকা করে জরিমানা করেন। জরিমানা প্রদান করায় তাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে জানান ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট। ওসি রফিকুল ইসলাম আরো বলেন, সম্প্রতি হাসপাতাল এলাকায় চুরি ও দালালের দৌরাত্ব বেড়ে গেছে। কোনো রোগী যাতে প্রতারণার শিকার না হয় সে জন্য এ অভিযান। এ অভিযান অব্যহত থাকবে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More