বিএনপি-জামাতের সকল ষড়যন্ত্র রুখে দেয়া হবে-চুয়াডাঙ্গায় যুবলীগের সমাবেশে নঈম জোয়ার্দ্দার

স্টাফ রিপোর্টার: বিএনপি-জামাত চক্রের দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র, নৈরাজ্য ও অপতৎপরতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ মিছিল ও সমাবেশ করেছে চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগ। যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিলের নির্দেশে শনিবার বিকেল ৪টায় শহীদ আবুল কাশেম সড়কের মোহাম্মদী শপিং কমপ্লেক্সে জেলা যুবলীগ কার্যালয়ে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এর আগে জেলা যুবলীগের কার্যালয় থেকে একটি প্রতিবাদ মিছিল বের করা হয়। জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দারের নেতৃত্বে মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশ স্থলে মিলিত হয়।
পরে জেলা যুবলীগের সদস্য সাজেদুল ইসলাম লাভলুর সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন আহ্বায়ক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘বিএনপি-জামাত চক্রের দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র, নৈরাজ্য ও অপতৎপরতা যারা করছে তাদের কোন ছাড় নেই। এসব মৌলবাদ জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতাকে শক্ত হাতে প্রতিহত করা হবে। যেখানেই এসব উগ্রপন্থীরা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার চেষ্টা করছে তা কখনোই বঙ্গবন্ধুর বাংলায় হতে দেয়া হবে না। নঈম জোয়ার্দ্দার বলেন, বিএনপি জানে তাদের দুর্নীতি, দুঃশাসন আর জনবিচ্ছিন্নতার কারণে মানুষ তাদের ভোট দেবে না। তারা মধ্যযুগীয় কায়দায় জীবন্ত মানুষ পুড়িয়ে মেরেছে। ওই নারকীয় অগ্নিসন্ত্রাসের কথা মানুষ ভুলে যায়নি। আর সে কারণেই তারা নির্বাচনে যেতে চায় না। এর ফলে আগামী নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে নানামুখী ষড়যন্ত্র ও অপতৎপরতা চালাচ্ছে বিএনপি। এই বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময়ে তারা এদেশের হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে। সেই অবৈধ টাকাই এখন বিদেশে লবিস্টের মাধ্যমে বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বের বিরুদ্ধে ব্যবহার করছে। তিনি আরও বলেন, দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র ও সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসীদের রুখে দিতে যুবলীগ সকল সময় প্রস্তুত রয়েছে। দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রকারী বিএনপি-জামায়াতের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে এই যুবসমাজকে। মার্চ মাস বাঙালি জাতির জীবনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মাস, এই মাসের ৭ মার্চ ঐতিহাসিক ভাষণ দিয়েছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এ মাসেই তিনি স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন। দেশনেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাংলায় দেশবিরোধী শক্তি বিএনপি-জামায়াতের অবস্থান থাকতে পারে না।’
জেলা যুবলীগের সদস্য হাফিজুর রহমান হাপুর সঞ্চালনায় সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন, জেলা যুবলীগ সদস্য আজাদ আলী, আবু বক্কর সিদ্দিক আরিফ ও আলমগীর আজম খোকা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আলুকদিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সোহেল রেজা শান্তি, পদ্মবিলা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি হুমায়ুন কবির বনফুল, সাধারণ সম্পাদক জান্টু মিয়া, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সুমন মেম্বার, শঙ্করচন্দ্র ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক সেলিম রেজা, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহফুজ, কুতুবপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, গড়াইটুপি ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি রাশেদুর জামান পলাশ, সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন চাঁদ, নেহালপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, সাধারণ সম্পাদক সামছুল আলী, মাখালডাঙ্গা ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা ফিরোজ, জাকির, সোহাগ, জেহালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক মকলেছুর রহমান শিলন, যুগ্মআহ্বায়ক বকুল হোসেন, যুগ্মআহ্বায়ক আনারুল, জেহালা ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা সালাউদ্দীন, আল আমিন, নজরুল মেম্বার, খাদিমপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি কামাল হোসেন, যুবলীগ নেতা লিটন মাস্টার, সাইদুর রহমান পিটু (প্রভাষক), মোমিনপুর ইউনিয়ন যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোমিন, বেগমপুর ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা শামীম মিজি, পৌর ৩নং ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি রানা, সাধারণ সম্পাদক খান জাহান, ৫নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি আলিম, সাধারণ সম্পাদক মিঠুন, ৭নং ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি আসাদ, সাধারণ সম্পাদক বিপ্লবসহ বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মীবৃন্দ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More