ভারতে পাচারকালে সাড়ে ১০ কেজি রূপার গহনা উদ্ধার

দর্শনার বারাদী সীমান্তে বিজিবির চোরাচালান বিরোধী অভিযান

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গার বারাদী সীমান্তে অভিযান চালিয়ে ভারতে পাচারের সময় ১০ কেজি ৭০০ গ্রাম রূপার গহনা উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। গতকাল শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবির পরিচালক লে. কর্ণেল শাহ মোহাম্মদ ইশতিয়াক। গণমাধ্যমে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তিনি জানান, বারাদী সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশ থেকে ভারতে রূপা চোরাচালান হচ্ছে গতকাল বিকেলে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবি সশস্ত্র টহলদলকে দুটি ভাগে বিভক্ত করে একটি দল সীমান্ত পিলার ৮১ থেকে ৩০০ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে কামাড়পাড়া মোড় এলাকায় এবং আরেকটি দল কামাড়পাড়া উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় এলাকায় অবস্থান করে। এ সময় এক মোটরসাইকেল আরোহীকে কামাড়পাড়া মোড় দিয়ে দর্শনা সীমান্তের দিকে যেতে দেখলে কামাড়পাড়া উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় এলাকায় অবস্থানরত টহল দল তার গতিরোধ করে। পরে বিজিবির সশস্ত্র টহল দলকে আসতে দেখে মোটরসাইকেল ফেলে মাঠের মধ্যে দৌঁড়ে সীমান্তের দিকে পালিয়ে যায় ওই ব্যক্তি। বিজিবি টহলদল ফেলে যাওয়া মোটরসাইকেলটি জব্দ করে। জব্দকৃত মোটরসাইকেলটি তল্লাশী করে মোটরসাইকেলের সীট কভারের নীচ থেকে খাকী কসটেপ দিয়ে কাপড়ে মোড়ানো অবস্থায় ১০টি প্যাকেট উদ্ধার করে। ১০টি প্যাকেট থেকে ১০ কেজি ৭০০ গ্রাম রূপার গহনা উদ্ধার করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য ১৫ লাখ ৭৫ হাজার ৫০০ টাকা। তিনি আরও জানান, খোঁজখবর নিয়ে স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে জানা যায় পলাতক মোটরসাইকেল আরোহীর নাম ছিলন মিয়া (২৫)। সে কামারপাড়া গ্রামের আব্বাস আলীর ছেলে। ওই ঘটনায় দর্শনা থানায় মামলা দায়ের এবং জব্দকৃত রূপার গহনাগুলো চুয়াডাঙ্গা ট্রেজারী অফিসে জমার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More