মাকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে ছেলে আটক

দর্শনা অফিস: চুয়াডাঙ্গার দর্শনা পৌর এলাকায় এক বৃদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল রোববার সকাল ১০টার দিকে পৌর এলাকার শ্যামপুর মহল্লায় এ ঘটনা ঘটেছে। হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে নিহত বৃদ্ধার ছেলেকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত ওই বৃদ্ধার নাম কদবানু বেগম (৬৫)। তিনি শ্যামপুরের জামাল মল্লিকের স্ত্রী। এ ঘটনায় আটক ব্যক্তির নাম ইদ্রিস আলী (৩৫)। বৃদ্ধ কদবানুর লাশ ময়না তদন্ত শেষে দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দর্শনা পৌর শহরের শ্যামপুর মল্লিকপাড়ার জামাল মল্লিকের ২ ছেলের মধ্যে ইদ্রিস আলী (৩৬) ছোট। বছর দশেক আগে ইদ্রিস বিয়ে করেছিলেন চুয়াডাঙ্গা হাজরাহাটি গ্রামে। বিয়ের কিছুদিনের মাথায় শিক্ষিত যুবক ইদ্রিসের স্ত্রীর সাথে বিয়ে বিচ্ছেদ ঘটে। সে থেকে ইদ্রিসের মস্তিস্কে বিকৃত ঘটে। গতকাল রোববার সকাল ৯টার দিকে মটর চালু করেই সে পানিতে গোসল করছিলো ইদ্রিস আলী। দীর্ঘসময় গোসলকালে গায়ে ও মাথায় সাবান মাখায় তার মা কদবানু দ্রুত গোসল ও মোটর বন্ধ করার তাগিদ দেন। এ সময় ক্ষিপ্ত হয়ে গোসলখানা থেকে বেরিয়ে উঠোনে থাকা বালিধারা দিয়ে কদবানুর মাথায় স্বজোরে আঘাত করেন। মারাত্মকভাবে রক্তাক্ত জখম হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন কদবানু। প্রতিবেশী ও পরিবারের লোকজন দ্রুত স্থানীয় একটি ক্লিনিকে চিকিৎসার জন্য আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক কদবানুকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার পরও পালিয়ে যাননি ইদ্রিস আলী। প্রতিবেশীরা ইদ্রিসকে বেঁধে রেখে খবর দেয় পুলিশকে। দর্শনা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ইদ্রিসকে সোপর্দ করে মহল্লাবাসী। এদিকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন চুয়াডাঙ্গা সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (দামুড়হুদা সার্কেল) মোহা. মুন্না বিশ্বাস, দর্শনা থানার ওসি এএইচএম লুৎফুল কবীর, পরিদর্শক (তদন্ত) শামসুদ্দোহা, পরিদর্শক (অপরেশন) আবু সাঈদ, সেকেন্ড অফিসার এসআই আহম্মদ আলী বিশ্বাস।
এদিকে পুলিশ কদবানুর লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে উদ্ধার করে দুপুর দুটোর দিকে ময়না তদন্তের জন্য নেয় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে। সন্ধ্যা ৬ টার দিকে ময়না তদন্ত শেষে কদবানুর লাশ স্বজনদের হাতে তুলে দেয় পুলিশ। রাত ৮ টার দিকে বেদনা বিধুর পরিবেশে শ্যামপুর গোরস্থানে কদবানুর লাশ দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে। এ ঘটনায় কদবানুর বড় ছেলে কুদ্দুস মল্লিক বাদি দর্শনা থানায় ছোটভাই ইদ্রিসের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More