মুজিবনগরে টিকটক ভিডিও বানাতে গিয়ে পা পিছলে নদীতে পড়ে নিখোঁজ

সাত ঘণ্টা পর ডুবুরিরা উদ্ধার করলো স্কুলছাত্রের লাশ
শেখ সফি: মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার রতনপুর সøুইস গেটে টিকটক ভিডিও বানাতে গিয়ে পা পিছলে নদীতে পড়ে উৎসব (১৭) নামে এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে। নিখোঁজের সাত ঘণ্টা পর গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ভৈরব নদী থেকে মরদেহ উদ্ধার করেছে। নিহত উৎসব গাংনী উপজেলার ফজলুল হকের ছেলে। সে গাংনী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজের দশম শ্রেণির ছাত্র। মেহেরপুর জেলায় ফায়ার সার্ভিসে ডুবুরি না থাকায় খুলনা অফিস থেকে ডুবুরি দল এসে উদ্ধার অভিযান চালায়। ঘটনার সময় তার সঙ্গে থাকা বন্ধু একই এলাকার স্বপনের ছেলে বোরহানকে (১৬) পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।
তানজির আহম্মেদের পরিবারসূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকালে এক বন্ধুর সাথে ঘুরতে গিয়ে দুপুরের দিকে তারা পৌঁছায় ভৈরব নদীর পাড়ে। রতনপুর এলাকায় স্লুইস গেটের পাশে সেলফি তুলতে গিয়ে পা পিছলে পানিতে পড়ে যায় উৎস। তীব্র স্রোতের টানে সে পানিতে ডুবে নিখোঁজ হয়। স্রোতের তোড়ে সাঁতরে ওপরে ওঠা সম্ভব ছিলো না বলে জানান স্থানীয়রা। এদিকে নদীর পানিতে পড়ার খবর পেয়ে স্থানীয় হাজারো মানুষ জড়ো হয়। অনেকে পানিতে নেমে উদ্ধারের চেষ্টা করলেও পুলিশ, প্রশাসন ও ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে কোনো ভূমিকা না থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন নিখোঁজের পিতা।
মুজিবনগর ফায়ার সার্ভিসের সাব অফিসার সাজাহান আলী জানান, প্রচ- স্রোতে উদ্ধার কাজ বাধাগ্রস্ত হওয়ায় খুলনা থেকে ডুবুরি চাওয়া হয়। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে এসে নিখোঁজ মরদেহ উদ্ধার করে।
এদিকে মেহেরপুর জেলায় ফায়ার সার্ভিস অফিসে কোনো ডুবুরি না থাকায় ফায়ার সার্ভিস খুলনা কার্যালয়ে ডুবুরি চেয়ে অনুরোধ জানানো হয়। খুলনা থেকে চার সদস্য বিশিষ্ট ডুবুরি দলের সদস্যরা এসে পৌঁছায় সন্ধ্যা ছয়টার দিকে। উদ্ধার অভিযান শুরুর ১০ মিনিটের মাথায় ডুবুরি নবীব উদ্দীন তানজিদ আহম্মেদের মরদেহ উদ্ধার করতে সক্ষম হন। মরদেহ মুজিবনগর থানার রতনপুর পর্যটন পুলিশ ক্যাম্পে হস্তান্তর করে। নিহতের পারিবারিকসূত্রে জানা গেছে, আইনগত প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে মরদেহ নিজ বাড়িতে আনা হবে। রাতেই মরদেহ দাফন হতে পারে বলে জানায় পরিবারের লোকজন। এদিকে মর্মান্তিক এই ঘটনায় পরিবারে শোকের ছায়া বিরাজ করছে।
মুজিবনগর থানার ওসি আব্দুল হাশেম জানান, ঘটনার বিস্তারিত জেনেছি। আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে মরদেহ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হবে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More