মোবাইল লুডু এখন ডিজিটাল জুয়া

দামুড়হুদার কার্পাসডাঙ্গায় এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে জুয়া খেলে অনেকে সর্বস্বান্ত

শরিফ রতন: দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গার বিভিন্ন জায়গায় অবাধে চলছে ক্রিকেট ও লুডু খেলার নামে ডিজিটাল জুয়া। আর এ ডিজিটাল জুয়া খেলা ধরার মত কেউ নেই। ছাত্র ও যুবকরা বেশিরভাগ সময় এ ডিজিটাল জুয়ায় মেতে থাকছে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, কার্পাসডাঙ্গা-পিরপুরকুল্লা সড়কের পাশে স্বর্গীয় শ্রী হরিহর বসুর খোলা একটি জায়গায় চলছে ক্রিকেট আর লুডুর জমজমাট জুয়ার আসর। অ্যান্ডুয়েড মোবাইল সেটে লুডু সফটওয়্যার ডাউনলোড করে বেশকিছু উঠতি যুবকেরা এ খেলায় মেতে উঠে হাজার হাজার টাকা বাজি ধরে হচ্ছে সর্বস্বান্ত। জুয়া খেলায় প্রতিদিন জুয়াড়িদের সঙ্গে বেকার তরুণ, ভ্যানচালক, চা দোকানি এমনকি স্কুল-কলেজের ছাত্ররাও মেতে উঠেছে। খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, এসব যুবকদের অনেকে এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে জুয়া খেলা চালিয়ে যাচ্ছে। কিস্তি নিতে এনজিও কর্মীরা তাদের জুয়াড়ি গ্রাহকদের কাছে কিস্তি নিতে ওই জুয়ার স্থানে আসে বলেও অভিযোগ আছে। এছাড়াও দেশের বাইরে কোনো ক্রিকেট খেলা হলে সেই খেলাতেও হাজার হাজার টাকা বাজি ধরা হচ্ছে। অনেকে জুয়া খেলে হেরে পরিবারের খরচ জোগাতে না পেরে নানা রকম ঝগড়া ফ্যাসাদে লিপ্ত হচ্ছে। খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, আরামডাঙ্গা ও কার্পাসডাঙ্গা গ্রামের জুয়াড়িরা ওই স্থানে রোজ জুয়া খেলতে আসছে। দূর থেকে দেখে মনে হয় যেনো জুয়াড়িদের মিলন মেলা বসেছে। এ বিষয়ে সচেতন ব্যক্তিরা জানান, ধীরে ধীরে যুবসমাজ এ ধরনের বিভিন্ন জুয়ায় আসক্ত হয়ে পড়েছে। বিষয়টি যথাযথ কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নেবে বলে এলাকাবাসীর আশা প্রকাশ করে।

 

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More