রোজায় যে ৪ পণ্যের দাম কমেছে

স্টাফ রিপোর্টার: করোনাভাইরাসে লকডাউনের মধ্যে সারাদেশে খুচরা ও পাইকারি বাজারে নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধির মধ্যে চারটি পণ্যের দাম কমেছে। রোজার মাসে এই চার পণ্যের দাম নাগালে এসেছে বলে জানিয়েছে সরকারি প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং করপোরেশন অব বংলাদেশের (টিসিবি)। রাজধানীর বিভিন্ন খুচরা বাজার থেকে তথ্য সংগ্রহ করে মঙ্গলবার এসব পণ্যের দাম কমার প্রতিবেদন তৈরি করেছে সরকারি এই প্রতিষ্ঠানটি। টিসিবির তথ্যমতে, বাজারে দাম কমা চার পণ্য হচ্ছে- পেঁয়াজ, মসুর ডাল, আদা ও পাম অয়েল (সুপার)।
টিসিবি জানায়, রোজার মধ্যে সব থেকে বেশি দাম কমেছে পেঁয়াজের। এই পণ্যটির দাম ১৩ শতাংশেরও বেশি কমেছে। তৃতীয় রোজায় অর্থাৎ ২৭ এপ্রিল দেশি ও আমদানি করা উভয় ধরনের পেঁয়াজের দাম কমেছে। এর মধ্যে দেশি পেঁয়াজের দাম ১৩ দশমিক শূন্য চার শতাংশ এবং আমদানি করা পেঁয়াজের দাম ৯ দশমিক ৫২ শতাংশ কমেছে। বর্তমানে দেশি পেঁয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪৫ থেকে ৫৫ টাকা, যা আগে ছিল ৫৫ থেকে ৬০ টাকা। আর ৫০ থেকে ৫৫ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া আমদানি করা পেঁয়াজের দাম কমে হয়েছে ৪৫ থেকে ৫০ টাকা। সরকারি এই প্রতিষ্ঠানের হিসাবে, রোজার মধ্যে খুচরা পর্যায়ে বড় দানার মসুর ডালের দাম কমেছে ২ দশমিক ৬৩ শতাংশ। পণ্যটির দাম কমে ২৮ এপ্রিল বা চার রোজায়। রোজার আগে ৯০ থেকে ১০০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া বড় দানার মসুর ডালের দাম কমে হয়েছে ৯০ থেকে ৯৫ টাকা। দাম কমার এ তালিকায় রয়েছে আদাও। টিসিবির তথ্য অনুয়ায়ী, ২৭ এপ্রিল আমদানি করা আদার দাম কমেছে। পণ্যটির দাম ১০ দশমিক ৭৭ শতাংশ কমে ২৮০ থেকে ৩০০ টাকায় নেমেছে। যা আগে ছিল ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা কেজি। রোজায় দাম কমার তালিকায় থাকা আরেক পণ্য পাম অয়েল (সুপার)। প্রতি কেজি ৮০ থেকে ৭৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। যা আগে ছিল ৮০ থেকে ৯০ টাকা। পণ্যটির দাম ২৮ এপ্রিল কমেছে বলে জানিয়েছে টিসিবি।
রাজধানীর শাহজাহানপুর, মালিবাগ বাজার, কারওয়ান বাজার, বাদামতলী বাজার, সূত্রাপুর বাজার, শ্যামবাজার, কচুক্ষেত বাজার, মৌলভী বাজার, মহাখালী বাজার, উত্তরা আজমপুর বাজার, রহমতগঞ্জ বাজার, রামপুরা এবং মীরপুর-১ নম্বর বাজারের পণ্যের দামের তথ্য নিয়ে এই প্রতিবেদন তৈরি করেছে টিসিবি।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More