শিক্ষাখাতে বিনিয়োগই সবচেয়ে বড় বিনিয়োগ

মেহেরপুরে শিক্ষা সপ্তাহের সনদ ও পুরস্কার বিতরণকালে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

মেহেরপুর অফিস: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছেন, শিক্ষাখাতে বিনিয়োগই সবচেয়ে বড় বিনিয়োগ। শিক্ষার মাধ্যমেই মানুষের মনুষ্যত্ব বিকশিত হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার মেহেরপুরে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২২ উপলক্ষে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে সনদ ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। মেহেরপুর জেলা প্রশাসক ড. মোহাম্মদ মুনসুর আলম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মেহেরপুর পুলিশ সুপার রাফিউল আলম। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) লিংকন বিশ্বাস, জেলা শিক্ষা অফিসার মাহফুজুল হোসেন, গাংনী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মীর হাবিবুল বাশার, মেহেরপুর সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আনোয়ার হোসেন, জজকোর্টের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট পল্লব ভট্টাচার্য, মেহেরপুর বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদের সভাপতি প্রফেসর হাসানুজ্জামান মালেক, জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে ফরহাদ হোসেন এমপি বলেন, মানুষকে মানবিকতা গুণসম্পন্ন দক্ষ ও সক্ষম করে গড়ে তুলতে শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই। প্রতিটি অভিভাবককে তাদের সন্তানদের সুশিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে। প্রতিমন্ত্রী এসময় বাড়ির আঙিনা ও খালি জায়গায় শাক-সবজি ও ফলমূল চাষের গুরুত্বারোপ করেন। পরে জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শ্রেষ্ঠ কলেজ ও মাদরাসার অধ্যক্ষ, শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক, শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থী ও জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত প্রতিযোগিতায় জেলা পর্যায়ে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি।

এদিকে মেহেরপুর জেলা প্রশাসন ও জেলা সমবায় অধিদফতরের উদ্যোগে সমবায় কার্যক্রম বিস্তৃত প্রকল্পের আওতায় উপকার ভোগীদের মাঝে চেক বিতরণ করা হয়েছে। একই সময় একই স্থানে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে একশ জন উপকারভোগীর মাঝে এক কোটি ৫ লাখ টাকার চেক বিতরণ করেন। এরপর একই স্থানে মেহেরপুর জেলা প্রশাসন ও জেলা সমাজসেবা অধিদফতরের যৌথ উদ্যোগে সরকারি শিশু পরিবার বালক নিবাসীদের মাঝে মেধাভিত্তিক চেক বিতরণ করা হয়। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ২১শ জনের মাঝে ২ লাখ ৮৮ হাজার টাকার চেক বিতরণ করেন। এছাড়া মেহেরপুর জেলা প্রশাসন ও জেলা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উদ্যোগে ক্রীড়া ও যুব মন্ত্রণালয়ের যুব কল্যাণ তহবিল থেকে নির্বাচিত যুব সংগঠনের অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়েছে। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ৬ জনের মাঝে ২ লাখ ৪০ হাজার টাকার চেক বিতরণ করেন। মেহেরপুর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে তথ্য ও যোগাযোগ বিভাগ কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন লার্নিং এন্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের আওতায় প্রফেশনাল আউটসোর্সিং প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সেরা ফ্রীলান্সদের মাঝে ল্যাপটপ বিতরণ করা হয়েছে। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন প্রধান অতিথি থেকে ১২ জনের মাঝে ল্যাপটপ বিতরণ করেন।

জেলা প্রশাসক ড. মুহাম্মদ মুনসুর আলম খানের সভাপতিত্বে চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার মো. রাফিউল আলম, সিভিল সার্জন ডা. জওয়াহেরুল আলম সিদ্দিকী, সামাজিক বন বিভাগ কুষ্টিয়ার বিভাগীয় বন কর্মকর্তা জিএম মোহাম্মদ কবীর। চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জেলা সমবায় কর্মকর্তা প্রভাস চন্দ্র বালা। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মৃধা মোহাম্মদ মোজাহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক লিংকন বিশ্বাস, গাংনী পৌরসভার মেয়র আহমেদ আলী, পিপি পল্লব ভট্টাচার্য, মেহেরপুর বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদের সভাপতি প্রফেসর হাসানুজ্জামান মালেক, বন কর্মকর্তা জাফরুল্লাহ, মেহেরপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অফিসের স্টেশন মাস্টার আব্দুর রাজ্জাক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

একই দিন বিকেলে ছহিউদ্দিন টেক্সটাইল ভোকেশনাল ইনস্টিটিউটের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। গণপূর্ত বিভাগের উদ্যোগে মুজিবনগর সড়কের পাশে মেহেরপুর সদর উপজেলার বন্দর গ্রামের নিকটে ছহিউদ্দিন টেক্সটাইল ভোকেশনাল ইনস্টিটিউটের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ছহিউদ্দিন টেক্সটাইল ভোকেশনাল ইনস্টিটিউটের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। এ সময় সেখানে মোনাজাত করা হয়। জেলা প্রশাসক ড. মুহাম্মদ মুনসুর আলম খান, পুলিশ সুপার মো. রাফিউল আলম, গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী শম্ভু রাম পাল, পিপি পল্লব ভট্টাচার্য, মেহেরপুর বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদের সভাপতি প্রফেসর হাসানুজ্জামান মালেক, আমদাহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. কাজী শহীদ আমদহ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More