দামুড়হুদার যমজ ৩ সন্তানের জননীকে সেলাই মেশিন উপহার দিলেন ইউএনও

কার্পাসডাঙ্গা প্রতিনিধি : দামুড়হুদা উপজেলার পাটাচোরায় গরীব অসহায় পরিবারের জন্ম নেয়া  যমজ ৩ সন্তানের জননীকে সেলাই মেশিন ও কৌটার দুধ উপহার দিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান। বৃহস্পতিবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান পাটাচোরায় সম্প্রতি  তিন সন্তান প্রসব করা প্রসূতি শিখা খাতুন ও তার স্বামী হামজা আলী হাতে সেলাই মেশিন তুলে দেয়া হয়। ৩ কন্যার জন্য দুধের কৌটা উপহার দেয়া হয়। এসময় উপজেলা নার্বাহী অফিসার জানান, দারিদ্রের কষাঘাতে জর্জরিত শিখা আজ দিশেহারা। তার ৩ টি মেয়েই ইমম্যাচিউর অবস্থায় জন্মগ্রহণ করেছে। আবার সবাই একসাথে মায়ের কাছ থেকে ঠিকমতো খাবারও পাচ্ছে না। ৩ নবজাতকের জন্য ডাক্তার যে কৌটার দুধ সাজেস্ট করেছেন সে কৌটার দাম ৭৯০ টাকা। প্রতিমাসে এত টাকার দুধ কিনে খাওয়ানো আজ সাধ্যের বাইরে তার। স্বামী সম্প্রতি সৌদি  আরবে গিয়েছেন, এখনও পর্যন্ত কোন কর্মের সংস্থান করতে পারেননি। স্ত্রী -সন্তানের জন্য কোন অর্থ পাঠাতে সে ব্যর্থ। এত ব্যর্থতা, দারিদ্র আর অনটনের মধ্যে ৫ কন্যাসহ শিখা আজ বাবার আশ্রয়ে দিনযাপন করছে। দামুড়হুদা সদরের চেয়ারম্যান সাহেব তাদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছেন। কখনও কন্যাদের জন্য দুধের কৌটা, কখনও নতুন জামা দিয়ে তাদের সাহায্যের চেষ্টা করেছেন। আমাকেও অনুরোধ করেন যেন তাদের কোন একটা ব্যবস্থা যেন করে দিই। তারই ধারাবাহিকতায় আজ শিখাকে সেলাই মেশিন এবং ৩ কৌটা দুধ উপহার দেওয়া হলো। এসময় দামুড়হুদা সদর ইউপি চেয়ারম্যান ও প্রভাষক শরীফুল আলম মিল্টন উপস্থিত ছিলেন। এই সেলাই মেশিনের মাধ্যমেই শিখা যেন তার সংসারের হাল ধরতে পারে।
উল্লেখ্য ১৮ মার্চ পাটাচোরা গ্রামে দরিদ্র হামজা আলী ও স্ত্রী শিখা খাতুনের পরিবারে একসাথে ৩ কন্যা সন্তান ভূমিষ্ট হয়েছিল।
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More