মাইওয়ান মিনিস্টার গ্রুপের উদ্যোগে ‘আমাদের চুয়াডাঙ্গা ফাউন্ডেশন’ উদ্বোধন : আন্তর্জাতিক মানের হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা
স্বাস্থ্য সেবার জন্য খুলে দেয়া হলো খানমহল : সম্পূর্ণ নিখরচায় দেয়া হচ্ছে সকল রোগের চিকিৎসা
স্টাফ রিপোর্টার: মিনিস্টার গ্রুপের চেয়ারম্যান দেশের কৃতিসন্তান এফবিসিসিআই ভাইস প্রেসিডেন্ট আব্দুর রাজ্জাক খানের চুয়াডাঙ্গাস্থ নিজস্ব বাসভবন খান মহলকে চিকিৎসা সেবার জন্য শুধু উন্মুক্তই করা হয়নি, দিনরাত সর্বস্তরের সকল প্রকারের রোগীর বিনামূল্যে চিকিৎসা দেয়ার জন্য চিকিৎসকও নিযুক্ত করা হয়েছে। আপনার সুরক্ষায় আমরা সেøাগান সামনে রেখে করোনা রোগীসহ সকল প্রকারের রোগের চিকিৎসা সেবা দেয়া হবে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে খানমহলে ‘আমাদের চুয়াডাঙ্গা ফাউন্ডেশন’ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আব্দুর রাজ্জাক খান রাজ এ ঘোষণা দেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার বলেন, আব্দুর রাজ্জাক খানের এ উদ্যোগে দেশের অনন্য দৃষ্টান্ত।
চুয়াডাঙ্গা পলাশপাড়ায় রয়েছে আব্দুর রাজ্জাক খানের নিজস্ব বাসভবন। নাম খান মহল। এ মহলেই গতকাল থেকে সম্পূর্ণ নিখরচায় সকল প্রকারের রোগীর চিকিৎসা সেবার জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে। করোনা রোগীর জন্য পর্যাপ্ত অক্সিজেন সিলিন্ডারও রাখা হয়েছে। নিজের বাড়িতে অস্থায়ীভাবে চিকিৎসা সেবাদানের পাশাপাশি ‘আমাদের চুয়াডাঙ্গা ফাউন্ডেশন’ নামে দাতব্য সংস্থার উদ্বোধন করা হয়েছে। এ ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবীদের মাধ্যমে বাড়ি বাড়ি গিয়েও জরুরি চিকিৎসা প্রদানের সর্বাত্মক সহযোগিতা করা হবে। এ ফাউন্ডেশন উদ্বোধন উপলক্ষে সংক্ষিপ্ত পরিসরে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার, পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডা. এএসএম মারুফ হাসান, চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন, বিএমএ সভাপতি মার্টিন হীরক চৌধুরী। চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব সভাপতি সরদার আল আমিনসহ পৌর কাউন্সিলরগণ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, তরুণ উদ্যোক্ততা আব্দুর রাজ্জাক রাজ দেশের গর্বিত সন্তান। তিনি সফল শিল্পপতি হয়েও ঘরে বসে না থেকে নিজের জেলা চুয়াডাঙ্গার মানুষের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করার যে উদ্যোগ নিয়েছেন তা প্রশংসার দাবি রাখে। এটা অনুকরণীয় দৃষ্টান্তও বটে। আব্দুর রাজ্জাক খানের এ মহানুভবতা দেশের পিছিয়ে পড়া মানুষগুলোকে স্বস্তি দেবে। স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সহায়ক হবে। বিশেষ অতিথি পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম তার বক্তব্যে বলেন, মাইওয়ান মিনিস্টার গ্রুপের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক খানের এ দান সুন্দর সমাজ গঠনে সহায়ক হবে। বিশেষ অতিথি সিভিল সার্জন ডা. এএসএম মারুফ হাসান বলেন, আব্দুর রাজ্জাক খান দীর্ঘদিন ধরেই জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পাশে রয়েছেন। তিনি নানাভাবেই স্বাস্থ্য সেবাদানের কাজে সহযোগিতা করে আসছেন। রাজ্জাক খান রাজের নানা সহযোগিতায় জেলার চিকিৎসা সেবার মানোন্নয়নেও অনেকটা সহায়ক হয়েছে। বিশেষ অতিথি পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন বলেন, আব্দুর রাজ্জাক খান করোনা সংকটকালে পৌর পরিষদের মাধ্যমেও বহু মানুষের খাদ্য সহায়তা দিয়ে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছেন। খাদ্য সামগ্রী বিতরণের পর তিনি চিকিৎসা সেবার জন্য যা করলেন তা প্রশংসার দাবি রাখে। বিশেষ অতিথি বিএমএ সভাপতি ডা. মার্টিন হীরক চৌধুরী বলেন, আব্দুর রাজ্জাক খানের যে বাড়িতে তার মাতা পিতার স্পর্শ রয়েছে, সেই বাড়িটি তিনি চিকিৎসা সেবাদানের জন্য খুলে দিয়ে যে মহানুভবতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন তা চুয়াডাঙ্গাবাসী মনে রাখবে। বিশেষ অতিথি সরদার আল আমিন তার বক্তব্যে বলেন, মাইওয়ান মিনিস্টার গ্রুপের চেয়ারম্যান প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে সাড়া দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে মোটা অংকের অর্থ প্রদান করেছেন। দীর্ঘদিন ধরেই তিনি চুয়াডাঙ্গাবাসীর পাশে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে রয়েছেন। একের পর এক কর্মসূচি বাস্তবায়নের মধ্যদিয়ে দিন দিন আব্দুর রাজ্জাক গণমানুষের মধ্যমণিতে রূপান্তর হয়েছেন। স্বাস্থ্য সেবার জন্য তিনি তার নিজের বাড়িতে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবাকেন্দ্র খুলে নজিরবিহীন দাতা হিসেবে স্বীকৃত হলেন।
আমাদের চুয়াডাঙ্গা ফাউন্ডেশন উদ্বোধনকালে আব্দুর রাজ্জাক তার বক্তেব্যে বলেন, আজ আমার নিজের বাড়ি স্বাস্থ্য সেবাদান হিসেবে খুলে দিলাম। আগামীতে চুয়াডাঙ্গায় আন্তর্জাতিক মানের স্বাস্থ্য সেবাদান প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করার স্বপ্ন রয়েছে। ওই প্রতিষ্ঠানে এলাকার সব ধরণের রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা দেয়া হবে ইনশাল্লাহ। করোনা কালে আমাদের চুয়াডাঙ্গা ফাউন্ডেশন নামের যে প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা শুরু হলো, এই প্রতিষ্ঠানটি সম্পূর্ণভাবে দাতব্য প্রতিষ্ঠান হিসেবে কাজ করবে। সকল প্রকারের সহযোগিতার খাত থাকবে এই ফাউন্ডেশনে। সকলের সর্বাত্মক সহযোগিতা পেলে আগামীতে চুয়াডাঙ্গার উন্নয়নে, চুয়াডাঙ্গাবাসীর কল্যাণে যাবতীয় পদক্ষেপ নিতে পারবো।
প্রসঙ্গত: মিনিস্টার হাইটেক পার্কের চেয়ারম্যান এফবিসিসিআই’র ভাইস প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক উপকমিটির সদস্য আব্দুর রাজ্জাক খান রাজের নিজস্ব উদ্যোগে দীর্ঘদিন ধরে দিয়ে যাচ্ছে স্বাস্থ্য সেবাসহ নানা সহযোগিতা। বলা হয়েছে, ০১৪০৪৪৩৩৮৮৮ নম্বরে ফোন করলে জরুরিভাবে অক্সিজেনসহ প্রাথমিক চিকিৎসার প্রয়োজনীয় উপকরণ পৌঁছে দেয়া হবে। হাসপাতালে নেয়ার কাজেও সহযোগিতা করা হবে। খান মহলে স্থাপিত স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ডা. মার্টিন হীরক চৌধুরীসহ বেশ ক’জন চিকিৎসক সকল প্রকারের রোগীদের চিকিৎসা সেবা দেবেন। ইতঃপূর্বে সদর হাসপাতালে অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদান করেছেন। পিছিয়ে পড়া মানুষের খাদ্য সহায়তার জন্য জেলা প্রশাসকের হাতেও তুলে দিয়েছেন মোটা অংকের টাকার চেক। প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলেও দিয়েছেন অর্থ। করোনা সংকটের চলমান লকডাউনের মধ্যে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যেও খাদ্য সহায়তা প্রদানের কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন। দীর্ঘদিন ধরে মাইওয়ান মিনিস্টার গ্রুপের মাধ্যমে মাস্ক, সেনিটাইজারসহ নানা উপকরণ বিতরণ করা হয়েছে এবং এ কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More