সার্বজনীন পেনশন প্রদানের চিন্তা করছে বর্তমান সরকার

মেহেরপুরের ৩টি সড়কের ফলক উন্মোচনকালে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী 

মেহেরপুর অফিস: বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলা গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় ও এলজিইডি মেহেরপুরের অর্থায়নে মেহেরপুর সদর উপজেলার আমঝুপি-খোকসা, খোকসা-আজান এবং খোকসা-গাড়াডোব সড়কের উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। সরকারের জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফরহাদ হোসেন এমপি সড়ক ৩টির নাম ফলক উন্মোচন করে সড়ক ৩টির উদ্বোধন করেন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরের দিকে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন আনুষ্ঠানিকভাবে ফলক উন্মোচন করে সড়ক ৩টির উদ্বোধন করেন। এসময় সেখানে মোনাজাত করা হয়। জেলা প্রশাসক ড. মোহাম্মদ মনসুর আলম খান, পুলিশ সুপার মো. রাফিউল আলম, মেহেরপুর সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোমিনুল ইসলাম মোমিন, মেহেরপুর সদর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমঝুপি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন আহমেদ চুন্নু, আমঝুপি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিয়ার রহমান মতি, মেহেরপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুস সালাম বাঁধনসহ আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ সেখানে উপস্থিত ছিলেন। এদিন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি এক কোটি ৩৮ লাখ ১৪ হাজার ২১১ টাকা ব্যয়ে খোকসা-আজান সড়ক এবং এক কোটি ১১ লাখ ৯৩ হাজার টাকা ব্যয়ে খোকসা-গাড়াডোবসহ মোট ৩টি সড়কের উন্নয়ন কাজের ফলক উন্মোচন করেন।

এ সময় জনপ্রশাসন মন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি বলেন, ষাট বছর পেরিয়ে গেলেও যাতে দেশের প্রতিটি মানুষ ভালো থাকে; চিকিৎসা থেকে শুরু করে ৪টি মৌলিক চাহিদা নিজেই মেটাতে পারেন। সেই লক্ষ্যে সার্বজনীন পেনশন প্রদানের চিন্তা করছে সরকার। তা বাস্তবায়ন হবে আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে বলে দাবি করেছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। তিনি আরো বলেন, ১৮ বছরের পর থেকে যদি কেউ পেনশনের আওতায় যুক্ত হন, ষাট বছর পর্যন্ত তিনি প্রতি মাসে সরকারের কাছে যত টাকা জমা দেবেন তার দ্বিগুন পরিমাণ টাকা দিয়ে তাদের পেনশনের আওতায় আনা হবে। ৬০ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে তিনি এ পেনশনটি নিতে পারবেন। সরকার চিন্তা করছে এটি দ্রুত সম্ভব বাস্তবায়ন করার।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More