মাদকদ্রব্য উদ্ধারের পর নারীসহ ৫ মাদক কারবারির জেল-জরিমানা

চুয়াডাঙ্গা ও আলমডাঙ্গা জেলা প্রশাসনের নেতৃত্বে মাদকদ্রব্যের অভিযান

শামসুজ্জোহা রানা:

চুয়াডাঙ্গায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের পৃথক অভিযানে মাদকসহ আটক পাঁচজনকে ভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল রোববার দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত চুয়াডাঙ্গা সদর ও আলমডাঙ্গা উপজেলায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় প্রায় দেড় কেজি গাঁজা ও এক অ্যাম্পুল বুপ্রেনরফাইন ইনজেকশন। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিএম তারিক উজ্জামান। সাজাপ্রাপ্ত পাঁচজন হলো চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের মণ্ডলপাড়ার মৃত আক্কাস আলীর ছেলে মুরাদ আলী (৩০), আলমডাঙ্গা পৌর এলাকার কলেজপাড়ার জালাল উদ্দিনের ছেলে বাবুল হোসেন (৩৫), উপজেলার যুগিরহুদা গ্রামের বকুল হোসেনের ছেলে পলাশ (২০), রামচন্দ্রপুর গ্রামের মোস্তফা কামালের ছেলে রাব্বি হাসান হৃদয় (২৪) ও নতিডাঙ্গা গ্রামের দক্ষিণপাড়ার শাহিনের স্ত্রী সুরাইয়া খাতুন (২০)।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের পরিদর্শক আব্দুল্লাহ আল মামুন এক বিজ্ঞপ্তিতে জানান, চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিএম তারিক উজ্জামানের নেতৃত্বে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর চুয়াডাঙ্গা জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শরীয়ত উল্লাহ সঙ্গীয় ফোর্সসহ গতকাল রোববার দুপুর একটা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত চুয়াডাঙ্গা সদর ও আলমডাঙ্গা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান চালান। অভিযানকারী টিম দুপুর ১টার দিকে মুরাদ আলীকে নিজবাড়ি থেকে ১ অ্যাম্পুল বুপ্রেনরফাইন ইনজেকশনসহ আটক করে। ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাকে ৬ মাসের কারাদণ্ড ও একশ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। দুপুর ২টার দিকে বাবুল হোসেনকে নিজবাড়ি থেকে ৬৫০ গ্রাম গাঁজাসহ আটক করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাকে ৬ মাসের কারাদণ্ড ও পাঁচশ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। বেলা তিনটার দিকে চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার চুয়াডাঙ্গা-আলমডাঙ্গা সড়কের পটলা পীরের মাজারের সামনে থেকে ২২ গ্রাম গাঁজাসহ আটক করা হয় পলাশকে। পরে একই সড়কের একটি তেলপাম্পের সামনে থেকে ১৫ গ্রাম গাঁজাসহ আটক করা হয় রাব্বি হাসান হৃদয়কে। দুজনকেই ভ্রাম্যমাণ আদালত তিন মাস করে কারাদণ্ড ও দুইশ টাকা করে অর্থদণ্ড প্রদান করেন। পরে বিকেল ৫টার দিকে আলমডাঙ্গা উপজেলার নতিডাঙ্গা গ্রামের দক্ষিণপাড়ার সুরাইয়া খাতুনকে নিজবাড়ি থেকে আটক করা হয়। তার বসতঘর তল্লাশি করে উদ্ধার করা হয় ৭২০ গ্রাম গাঁজা। সেখানেই ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাকে ৬ মাসের কারাদণ্ড ও একশ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। গতকালই সাজাপ্রাপ্ত পাঁচজনকে জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

ডেস্ক/ইউএম/০৪২৬

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More