পাকিস্তানের স্বপ্নভঙ্গ করে শিরোপা শ্রীলঙ্কার

পর্দা নামলো টি- টোয়েন্টি এশিয়া কাপের

স্টাফ রিপোর্টার: এশিয়া কাপের ফাইনালে পাকিস্তানকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে শ্রীলঙ্কা। এ নিয়ে ষষ্ঠবার এশিয়ার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করল দলটি। দুবাইয়ে হাই ভোল্টেজ ম্যাচে রোববার দারুণ নৈপুণ্য দেখিয়েছে লঙ্কানরা। ব্যাট হাতে শুরুর বিপর্যয় সামলে দাসুন শানাকার দল বাগিয়ে নেয় ২৩ রানের জয়। এবারের আসরের শুরু থেকেই বড় ভূমিকা ছিলো টসের। ফাইনালের আগে ১২ ম্যাচের ৯টিতেই জিতেছে পরে ব্যাট করা দল। টানা ৪ টস জেতা দাসুন শানাকা এদিন টস হেরে বসেন। বাবর আজম প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন অনুমিতভাবেই। ফলে মানসিকভাবে কিছুটা পিছিয়ে পড়ে লঙ্কানরা। তার প্রভাব পড়ে ব্যাটিংয়েও। নাসিম শাহর করা প্রথম ওভারেই গোল্ডেন ডাকের শিকার হন কুশল মেন্ডিস। এতে খেই হারানো লঙ্কানরা নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে, কাঙ্ক্ষিত গতিতে রানও তুলতে পারেনি এশিয়া কাপের আয়োজকরা। ধনঞ্জয়া ডি সিলভা ২১ বলে করেন ২৮ রান। দলীয় ৫৮ রানে পঞ্চম উইকেটের পতনের পর দলের হাল ধরেন ভানুকা রাজাপক্ষে ও ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা। ষষ্ঠ উইকেটে দুজনে গড়েন ৫৮ রানের পার্টনারশিপ। দুজনই পাকিস্তানের বোলারদের মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়ালে রানের গতিও ধীরে ধীরে সচল হতে থাকে। তবে দলীয় ১১৬ রানে থামতে হয় হাসারাঙ্গাকে। বিদায় নেওয়ার আগে ২১ বলে ৫টি চার ও ১টি ছক্কায় তিনি করেন ৩৬ রান। হাসারাঙ্গা বিদায় নিলেও শ্রীলঙ্কাকে পথ দেখান ভানুকা। ৩৫ বলে অর্ধশতক পূর্ণ করার পর চড়াও হন পাকিস্তানের ওপর। শেষপর্যন্ত ৪৫ বলে ৭১ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি, হাঁকান ৬টি চার ও ৩টি ছক্কা। ১৪ বলে ১৪ রান করে অপরাজিত থাকেন চামিকা করুনারতেœ। হাসারাঙ্গার বিদায়ের পর ব্রেক থ্রুর সুযোগ পেলেও ক্যাচ হাতছাড়ায় সেসব সুযোগ হেলায় হারিয়ে রানও বিলিয়েছে বাবর আজমের দল। নির্ধারিত ২০ ওভারে শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৭০ রান। পাকিস্তানের পক্ষে হারিস রউফ শিকার করেন তিনটি উইকেট। জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে দলীয় ২২ রানে পরপর দুই বলে অধিনায়ক বাবর আজম ও ফখর জামানকে সাজঘরে ফেরান প্রমোদ মাদুশান। এরপর ইফতিখার আহমেদকে নিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন মোহাম্মদ রিজওয়ান। তবে দুজনই ব্যাট করেছেন মন্থর গতিতে। তৃতীয় উইকেটে দুজনে গড়েন ৭১ রানের পার্টনারশিপ। ইফতিখার বিদায় নেন ৩১ বলে ৩২ রান করে। রিজওয়ান সাজঘরে ফেরেন ৪৯ বলে ৫৫ রানে, যে ইনিংসে ছিল চারটি চার ও একটি ছক্কা। এরপর চাপ দূর করা দূরে থাক, কেউ দাঁড়াতেই পারেননি ক্রিজে। ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গার বোলিং তোপে তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে পাকিস্তান। শেষপর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে পাকিস্তানের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৪৭ রান। এতে শ্রীলঙ্কা পায় ২৩ রানের জয়। লঙ্কানদের পক্ষে মাদুশান চারটি ও হাসারাঙ্গা তিনটি উইকেট শিকার করেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More