বিশ্বকাপ ব্যর্থতা: রদবদল আসছে নারী ক্রিকেটে

স্পোর্টস ডেস্ক: এবারের নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অন্তত একটা ম্যাচ জেতার লক্ষ্য নিয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ দল। কিন্তু ফলাফল খুবই হতাশাজনক। কোনো ম্যাচে ন্যূনতম প্রতিদ্বন্দ্বিতাও করতে পারেনি তারা। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তারা এই ফলের কারণ খতিয়ে দেখবে। আর সেটা করার ফলে দলের কোচিং স্ট্যাফে আসতে পারে রদবদল। বাংলাদেশ নারী দল সম্প্রতি ভালো পারফরম্যান্স করছিল। তারা এশিয়া কাপ জিতে প্রত্যাশাও বাড়িয়েছিল। কিন্তু সে প্রত্যাশা অনুযায়ী দল পারফরম করতে পারেনি। অনুশীলন ম্যাচে পাকিস্তানকে হারালেও শূন্য হাতে ফেরে তারা মূল টুর্নামেন্ট থেকে। বিসিবির উইমেন উইংয়ের চেয়ারম্যান শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল বলেছেন, তারা বিশ্বকাপের এই পারফরম্যান্স নিয়ে বসবেন, ‘আমরা অবশ্যই পরিস্থিতি ঠিক হওয়ার পর নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আমাদের দলের হতাশাজনক পারফরম্যান্স মূল্যায়ন করতে বসব। আমরা হয়তো আগেই বসতাম এই বিশ্বকাপের বিপর্যয়ের কারণ খুঁজতে। কিন্তু করোনা ভাইরাসের মহামারির কারণে সেটা করা যায়নি।’ যতদূর বোঝা যাচ্ছে, কোচিং প্যানেলে বেশ কিছু পরিবর্তন আসবে। বিশেষ করে প্রধান কোচ অঞ্জু জৈনের সঙ্গে আর চুক্তি না বাড়ানোর সম্ভাবনাই বেশি। তার সঙ্গে এই বিশ্বকাপ পর্যন্তই চুক্তি ছিল বোর্ডের। জৈনের পারফরম্যান্সে বোর্ড সন্তুষ্ট নয়। বিশেষ করে তিনি খেলোয়াড়দের ওপর যেভাবে খবরদারি করেছেন, তা ভালোর চেয়ে বেশি ক্ষতি করেছে বলে মনে করছে বোর্ড। এ ছাড়া ব্যাটিং অর্ডারে রুমানা আহমেদকে নিচের দিকে নিয়ে আসাটও বেশ বিতর্ক সৃষ্টি করেছে। এদিকে করোনা ভাইরাস মহামারির কারণে বাংলাদেশের নারীদের ক্রিকেট পড়েছে আরো বহুমাত্রিক সমস্যায়। এই মাসেই অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল নারীদের জাতীয় ক্রিকেট লিগ। কিন্তু সেটা এরই মধ্যে বাতিল হয়েছে। সামনে নারীদের প্রিমিয়ার লিগ হওয়ার কথা। কিন্তু যে অবস্থা, তাতে এই লিগও মাঠে গড়ানোর সম্ভাবনা খুব কম। প্রিমিয়ার লিগের ওপরই মূলত বেশিরভাগ নারী ক্রিকেটারের জীবিকা নির্ভর করে। কিন্তু এই লিগও বাতিল হলে তারা পড়বেন একটা জটিল সমস্যায়। যদিও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে কিছু এককালীন অনুদান তাদের দেওয়া হয়েছে। এদিকে নারী ক্রিকেটে এই সময় আন্তর্জাতিক খেলাও থাকার কথা ছিল। সেগুলো বাতিল হয়েছে। আগামী জুলাই মাসে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ওয়ানডে বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব। শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত এই টুর্নামেন্টের ভাগ্যও এখন অনিশ্চিত। ফলে অতীত মূল্যায়নের পাশাপাশি এখন ভবিষ্যত্ নিয়েও তৈরি হয়েছে শঙ্কা।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More