ওমিক্রন-ধাক্কায় আন্তর্জাতিক ভ্রমণে কঠোর বিধিনিষেধ

৭০ দেশের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা : ছড়িয়েছে ২২ দেশে : নতুন টিকা ২০২২ সালের প্রথমার্ধে
স্টাফ রিপোর্টার: করোনা ভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের সম্ভাব্য সংক্রমণ রোধে দেশে দেশে নানা ধরনের কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। ধরনটির বিস্তার ঠেকাতে কমপক্ষে ৭০টি দেশ ও অঞ্চল আফ্রিকার বেশ কয়েকটি দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। সর্বশেষ সৌদি আরবে শনাক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে ২২ দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ওমিক্রন। নতুন ধরনটি নিয়ে বিশ্বজুড়ে উদ্বেগের মধ্যে নতুন টিকা তৈরি নিয়ে তোড়জোড় শুরু করেছে টিকা প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানগুলো। মডার্না, ফাইজার জানিয়েছে নতুন ধরনের বিরুদ্ধে কার্যকর টিকা ২০২২ সালের প্রধমার্ধে বাজারে আনতে পারবে বলে জানিয়েছে। জনসন ও বায়োএনটেক নতুন ধরনের বিরুদ্ধে টিকা তৈরির কথা বলেছে। সেরাম বলেছে, প্রয়োজনে তারা বুস্টার ডোজ নিয়ে কাজ করবে।
ওমিক্রনের সংক্রমণ প্রতিরোধে জার্মানিতে পাঁচ থেকে ১১ বছর বয়সি শিশুদের টিকাদানের পরিকল্পনা এক সপ্তাহ এগিয়ে আনা হয়েছে। যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ দেশটিতে সবাইকে টিকার বুস্টার ডোজ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। ব্রিটিশ সরকার মঙ্গলবার থেকে ঘরের বাইরে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করেছে। যুক্তরাষ্ট্র, জাপান এবং সিঙ্গাপুর যাত্রী চলাচলের ওপর নতুন বিধিনিষেধ আরোপ করেছে। জাপান মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে বিদেশিদের আগমন নিষিদ্ধ করেছে। আফ্রিকা মহাদেশের যাদের জাপানে থাকার বৈধ অনুমতি রয়েছে, তাদেরও দেশটিতে যেতে বারণ করা হয়েছে। এরই মধ্যে আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করেছে দেশটি। বিমান সংস্থাগুলোকে ডিসেম্বরের শেষ পর্যন্ত জাপানমুখী নতুন আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের রিজার্ভেশন নেওয়া বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ায় বিদেশি ছাত্র এবং দক্ষ কর্মীদের আসা বুধবার থেকে শুরু হওয়ার কথা থাকলেও তা ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। গ্রিসে ষাটোর্ধ্ব কেউ টিকা না নিলে জরিমানা করা হবে বলে প্রধানমন্ত্রী কিরিয়াকস মিটসোটাকিস ঘোষণা করেছেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রস আধানাম গেব্রেইসাস বলেছেন, ওমিক্রন ধরনের প্রভাব বিচার না করেই কোনো কোনো দেশ সর্বাত্মক বিধিনিষেধ জারি করছে।
ছড়িয়েছে ২২ দেশে : নতুন ধরনটি এ পর্যন্ত ২২ দেশে ছড়িয়েছে। দেশগুলোর হলো-দক্ষিণ আফ্রিকা, বতসোয়ানা, অস্ট্রেলিয়া, অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, কানাডা, চেক প্রজাতন্ত্র, ডেনমার্ক, ফ্রান্স, জার্মানি, হংকং, ইসরাইল, ইতালি, জাপান, নেদারল্যান্ডস, পর্তুগাল, স্পেন, সুইডেন, যুক্তরাজ্য, নাইজেরিয়া, ব্রাজিল সৌদি আরব। ইউরোপের দেশগুলোতে ‘ওমিক্রন’ শনাক্তের সংখ্যা এখনো পর্যন্ত একশর নিচে থাকলেও চিকিৎসা কর্মকর্তারা নতুন করে আরও সংক্রমণের তথ্য পাচ্ছেন। সৌদি আরবে সর্বশেষ বুধবার করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন।
টিকা নতুন বছরের প্রথমার্ধে : ২০২২ সালের শুরুর দিকে করোনার নতুন রনের জন্য টিকা আনতে পারে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠান মডার্না। প্রতিষ্ঠানটির চিফ মেডিকেল অফিসার পল বার্টন বলেছেন, আগামী বছরের শুরুতে ওমিক্রনের বিরুদ্ধে কাজ করবে এমন টিকা প্রস্তুত করা যাবে। তবে এটা পরিষ্কার নয় যে, বিদ্যমান করোনা টিকার নতুন ফর্মুলা প্রয়োজন হবে কিনা। জনসন অ্যান্ড জনসন বলেছে, নতুন ধরনটির জন্য টিকা আনতে প্রয়োজনমতো পদক্ষেপ নেবে তারা। ভারতের টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী আদর পুনাওয়ালা বলেন, গবেষণায় যদি প্রয়োজনীয়তার ইঙ্গিত দেয়, তাহলে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের জন্য উপযুক্ত কোভিশিল্ড টিকার একটি সংস্করণ তৈরির বিষয়টি বিবেচনা করা যেতে পারে।
টিকা না নেওয়াদের ভ্রমণ বিলম্বিত করতে হবে : ডব্লিউএইচও-এর সর্বশেষ ভ্রমণ নির্দেশিকায় পূর্ণাঙ্গ টিকা না নেওয়া অসুস্থ বা ঝুঁকিতে থাকা মানুষদের কোভিড হটস্পটগুলোতে ভ্রমণ বিলম্বিত করার পরামর্শ দিয়েছে। জাতিসংঘ সংস্থাটি ৬০ বছরোর্ধ্ব এবং যাদের হৃদরোগ, ক্যানসার ও ডায়াবেটিসের রোগ রয়েছে তাদের ঝুঁকিপূর্ণ শ্রেণিতে অন্তর্ভুক্ত করেছে। এতে বলা হয়েছে, শুধু ঝুঁকিতে থাকা এবং পূর্ণাঙ্গ টিকা না নেওয়া মানুষদের ভ্রমণ বিলম্বিত বা পিছিয়ে দেওয়া উচিত। করোনার নতুন ধরন নিয়ে উদ্বিগ্ন না হয়ে তা মোকাবিলায় যৌক্তিক ব্যবস্থা নিতে সদস্য দেশগুলোকে আহ্বান জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More