কাজি-ঘটক-পুরোহিতদের বাল্যবিয়ের সঙ্গে জড়িত না থাকার প্রতিজ্ঞা

জীবননগর ব্যুরো: বাল্যবিয়ের সঙ্গে সম্পৃক্ত হলে জেল-জরিমানাসহ আইনের আওতায় আনার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মুনিম লিংকন। গতকাল বুধবার সকালে স্থানীয় ওয়েভ ফাউন্ডেশন ও লোকমোর্চার আয়োজনে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধে করণীয় শীর্ষক কর্মশালায় তিনি এ কথা বলেন। মুনিম লিংকন বলেন, বাল্যবিয়ে দেয়ার দুই বছরের মধ্যে খবর পেলে কাজি, ঘটক এবং বর-কনের অভিভাবকদের জেল-জরিমানাসহ উভয় দ- দেয়া হবে। বাল্যবিয়ের বিরুদ্ধে আমি কঠোর অবস্থানে আছি। অচিরেই জীবননগর উপজেলাকে বাল্যবিয়েমুক্ত ঘোষণা করা হবে। জীবননগর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত কর্মশালায় মসজিদের ২৫জন ইমাম, ৭জন কাজি, ১০জন ঘটক ও ৫জন পুরোহিতসহ জীবননগর উপজেলা লোকমোর্চার সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় তারা বাল্যবিয়ের সঙ্গে জড়িত না থাকার প্রতিজ্ঞা করেন। জীবননগর উপজেলা লোকমোর্চার সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আবু মো. আব্দুল লতিফ অমলের সঞ্চালনায় কর্মশালায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকি, জীবননগর থানার ওসি সাইফুল ইসলাম, জীবননগর সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. জাকির উদ্দিন মোড়ল, ওয়েভ ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা কামরুজ্জামান, উপজেলা লোকমোর্চার সদস্য সালাউদ্দীন কাজল, কাজী সামসুর রহমান চঞ্চল, আকিমুল ইসলাম, শাহিনুর রহমান, সাজ্জাদ হোসেন, সজল আহমেদ, বকুল হোসেন, খলিলুর রহমান, মিনাজপুর জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা মমিনুল ইসলাম, জীবননগর উপজেলা কাজি সমিতির সভাপতি আবু তাহের, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম, পুরোহিত স্বপন কুমার চক্রবর্তী প্রমুখ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More