কার নেতৃত্বে ক্ষমতায় যাবে জানে না বিএনপি: সেতুমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার: আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপির প্রধান নেতা দণ্ডিত আসামি। ভাইস চেয়ারম্যান পলাতক আসামি। কার নেতৃত্বে ক্ষমতায় যাবে তা জানে না বিএনপি। এই প্রশ্নের উত্তর না দিয়ে দলটির নেতারা আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার, শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে অসত্য বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি নেতৃত্ব বিভক্ত। তাদের মধ্যে ঐক্য নেই। দলটিতে গণতন্ত্র নেই। অথচ তারা গণতন্ত্রের কথা বলে মুখে ফেনা তুলছে। বাংলাদেশের মানুুষ আর বিএনপিকে ক্ষমতায় দেখতে চায় না। কারণ মানুষ জানে, বিএনপি ক্ষমতায় গেলে দেশের উন্নয়ন সম্ভাবনা ধ্বংস হয়ে যাবে। গণতন্ত্র, মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতার চেতনা ধ্বংস হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, দুঃসময়ের ত্যাগী নেতারাই হচ্ছেন আওয়ামী লীগের মূল শক্তি। দলকে বাঁচাতে হলে দুঃসময়ের কর্মীদের বাঁচাতে হবে। দুঃসময়ের কর্মীদের উপেক্ষা করলে আওয়ামী লীগ টিকতে পারবে না। যারা নেতৃত্ব দিচ্ছেন তাদের মনে রাখতে হবে, দুঃসময়ের ত্যাগী কর্মীদের কোণঠাসা করে সুসময়ের বসন্তের কোকিলদের নেতৃত্ব দিলে সংগঠন চলবে না। ত্যাগী নেতাকর্মীরা যতদিন নেতৃত্বে থাকবেন ততদিন কোনো রাজনৈতিক শক্তিই আওয়ামী লীগকে পরাজিত করতে পারবে না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, গত ১৩ বছরে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অভ‚তপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ শেখ হাসিনার সততা, তার পরিশ্রমের ও সাহসী নেতৃত্বের প্রশংসা করছে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় না থাকলে এ উন্নয়ন সম্ভাবনা বন্ধ হয়ে যাবে।

এর আগে সম্মেলন উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মালেক। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারের সঞ্চালনায় সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক রোকেয়া সুলতানা ও স্থানীয় সংসদ সদস্যরা বক্তব্য দেন।

আব্দুর রহমান বলেন, ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়নে বিএনপির নেতারা ঈর্ষাšি^ত। তারা দেশের উন্নয়ন সহ্য করতে না পেরে বিশ্ব নেতৃত্বের কাছে আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করে বেড়াচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে বিএনপি কোনো দিনই এ দেশের মানুষের ভালো চায়নি, এখনো চায় না।’

২০১৪ সালের ২৪ ডিসেম্বর নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন হয়। ওই সম্মেলনে আব্দুল মালেককে সভাপতি ও সাধন চন্দ্র মজুমদারকে সাধারণ সম্পাদক করে দুই সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। এর দুই বছর পর ২০১৬ সালে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা দেয় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More