খুলনা বিভাগের ১২৬ ইউপি নির্বাচন স্থগিত

স্টাফ রিপোর্টার: করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির কারণে খুলনা বিভাগের ১২৬ ইউনিয়ন পরিষদে ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এছাড়া আরও ৩৭ ইউপির ভোট স্থগিত করা হয়েছে। সেইসঙ্গে স্থগিত করা হয়েছে ৯টি পৌরসভার ভোটও। বৃহস্পতিবার (১০ জুন) বিকেল ৩টায় সংবাদ সম্মেলনে এ সিদ্ধান্ত জানায় নির্বাচন কমিশন। তবে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা থাকায় লক্ষ্মীপুর-২ আসনের উপ-নির্বাচন আগামী ২১ জুন অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার (১০ জুন) আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কমিশনের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
ইসি সচিব মো. খন্দকার হুমায়ুন কবীর বলেন, সার্বিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে এসব নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। অন্যান্য বিভাগের তুলনায় বরিশাল বিভাগে সংক্রমণ সহনীয় পর্যায়ে থাকায় ভোট নির্ধারিত সময়ে হবে। তাই আইইডিসিআর কর্তৃক ঘোষিত ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলোর বাইরে বরিশালসহ সবখানে নির্ধারিত সময়ে ভোট হবে।
যেসব জায়গায় স্থানীয় সরকারের ভোট আটকে আছে সেখানে বর্তমান চেয়ারম্যানসহ অন্য জনপ্রতিনিধিরা বহাল থাকবেন কি না জানতে চাইলে সচিব বলেন, এটা স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের বিষয়। স্থানীয় সরকার ইউপি আইন অনুযায়ী ৯০ দিন দায়িত্ব দেয়ার বিধান রয়েছে। বিষয়টি মন্ত্রণালয় দেখবে কাকে দায়িত্ব দেবেন।
এর আগে করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় খুলনা বিভাগীয় কমিশনার বাগেরহাট, সাতক্ষীরা ও খুলনা জেলার ১২৩ ইউনিয়নের ভোট বন্ধ করতে অনুরোধ জানিয়েছিলেন। খুলনা বিভাগের যেসব ইউপিতে ভোট হওয়ার কথা ছিল খুলনা জেলা : কয়রা উপজেলার আমাদি, বাগালী, মহেশ্বরীপুর, মহারাজপুর, কয়রা, উত্তর বেদকাশী ও দক্ষিণ বেদকাশী ইউপি। দাকোপ উপজেলার পানখালী, দাকোপ, লাউডোব, কৈলাশগঞ্জ, সুতারখালী, কামারখোলা, তিলডাঙ্গা, বাজুয়া ও বানিশান্তা ইউপি। বটিয়াঘাটা উপজেলার গঙ্গারামপুর, বালিয়াডাঙ্গা ও আমিরপুর ইউপি। দিঘলিয়া উপজেলার গাজীরহাট, বারাকপুর, দিঘলিয়া, সেনহাটা, আড়ংঘাটা ও যোগীপুল ইউপি। পাইকগাছা উপজেলার ষোলাদানা, রাড়–লী, গড়ইখালী, চাঁদখালী, দেলুটি, লতা, হরিঢালী, ও কপিলমুনি ইউপি।
বাগেরহাট জেলা : ফকিরহাট উপজেলার বেতাগা, লখপুর, পিলজংগ, ফকিরহাট, বাহিরদিয়া মানসা, নলধা মৌভোগ ও শুভদিয়া ইউপি। মোল্লাহাট উপজেলার উদয়পুর, চুনখোলা, কোদালিয়া, গাওলা, কুলিয়া ও আটজুড়ি ইউপি। চিতলমারী উপজেলার বড়বাড়ীয়া, হিজলা, শিবপুর, চিতলমারী, কলাতলা, চরবানিয়ারী ও সন্তোষপুর ইউপি। কচুয়া উপজেলার গজালিয়া, ধোপাখালী, মঘিয়া, কচুয়া, গোপালপুর, রাড়ীপাড়া, বাধাল ইউপি। রামপাল উপজেলার গৌরম্ভা, বাইনতলা, হুড়কা, মল্লিকের বেড়, বাঁশতলী, উজলপুর, রামপাল, রাজনগর, পেড়িখালী ও ভোজপাতিয়া ইউপি। মোংলা উপজেলার চাঁদপাই, বুড়িরডাংগা, চিলা, মিঠাখালী, সোনাইলতলা ও সুন্দরবন ইউপি। মোরেলগঞ্জ উপজেলার পঞ্চকরন, দৈবজ্ঞহাটী, চিংড়াখালী, হোগলাপাশা, বনগ্রাম, বলইবুনিয়া, হোগলাবুনিয়া, বহরবুনিয়া, নিশানবাড়ীয়া, মোরেলগঞ্জ, খাউলিয়া, তেলিগাতী, পুটিখালী, রামচন্দ্রপুর, জিউধরা ও বারইখালী ইউপি। শরণখোলার ধানসাগর, খোন্তাকাটা, রায়েন্দা ও সাউথখালী ইউপি। বাগেরহাট সদর উপজেলার বারুইপাড়া, বেতরতা, বিষ্ণুপুর, ডেমা, কাড়াপাড়া, খানপুর ও রাখালগাছি ইউপি।
সাতক্ষীরা জেলা: কলারোয়া উপজেলার কয়লা, হেলাতলা, যুগীখালী, জয়নগর, জালালাবাদ, লাঙ্গলঝাড়া, কেঁড়াগাছি, সোনাবাড়িয়া, চন্দনপুর ও দেয়াড়া ইউপি। তালা উপজেলার ধানদিয়া, তেঁতুলিয়া, তালা, ইসলামকাটি, মাগুরা, খেসরা, জালালপুর, খলিলনগর, নগরঘাটা, সরুলিয়া ও খলিষখালী ইউপি।
খুলনা বিভাগে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী। প্রতিদিন বাড়ছে শনাক্তের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে করোনা আক্রান্ত হয়ে ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৫৭৮ জনের, যা সংক্রমণের শুরু থেকে এ পর্যন্ত বিভাগে সর্বোচ্চ। এ নিয়ে খুলনা বিভাগে করোনা শনাক্তের সংখ্যা ৩৮ হাজার ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৬৯৫ জনের।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More