গাবতলীতে ঘরমুখো মানুষের উপচেপড়া ভিড়

ভিড় সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন কাউন্টারে থাকা দায়িত্বরতরা

স্টাফ রিপোর্টার: করোনাভাইরাসের কারণে বিধিনিষেধ থাকায় গত দুবছর ঈদে রাজধানী ছাড়তে পারেনি ঘরমুখো মানুষ। এ বছর করোনার প্রকোপ কম থাকায় পরিবার ও স্বজনদের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করতে গত কয়েকদিন ধরেই রাজধানী ছাড়ছে মানুষজন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকেই ঢাকাবাসীর ঈদযাত্রা শুরু হলেও ঈদের আগে ছুটির প্রথম দিন শুক্রবারে গাবতলী বাস-টার্মিনালে যাত্রীর চাপ বাড়তে শুরু করে। রাতেও অব্যাহত রয়েছে যাত্রীদের এই অতিরিক্ত চাপ। রাজধানীর শ্যামলী, কল্যাণপুর ও গাবতলী বাস কাউন্টার ঘুরে দেখা গেছে যাত্রীদের উপচেপড়া ভিড়। ভিড় সামলাতে কাউন্টারে থাকা দায়িত্বরতরা হিমশিম খাচ্ছেন।

এদিকে, নির্ধারিত সময়েই কল্যাণপুর ও গাবতলী থেকে দূরপাল্লার বাসগুলোকে ছেড়ে যেতে দেখা গেছে। যারা টিকিট পাননি তাদের গাবতলী এসে মানিকগঞ্জের পাটুরিয়াগামী লোকাল বাসে উঠতে দেখা গেছে। তবে কাউন্টারগুলোতে নির্ধারিত ভাড়ার থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করেছেন যাত্রীরা।

মেহেরপুর যাওয়ার উদ্দেশ্যে ইফতারের পর গাবতলী বাস টার্মিনালে পরিবারসহ এসেছেন মো. জাকির হোসেন। তিনি বলেন, গত দুবছর করোনার কারণে ঈদ করতে বাড়ি যেতে পারিনি। এবার দীর্ঘ ছুটি পাওয়ায় স্ত্রী-সন্তানকে নিয়ে বাড়ি যাচ্ছি। ‘তবে কাউন্টারে এসে টিকিটের জন্য অপেক্ষা করেও পাইনি। একটি বাসে দুইটি সিট পেয়েছিলাম, তবে ৫৫০ টাকার ভাড়া চাচ্ছে এক হাজার টাকা। তাও সিট দুটো একদম পেছনে। এতো বেশি ভাড়া না দিয়ে বাধ্য হয়ে পাটুরিয়ার বাস সেলফি পরিবহনে ২০০ টাকা দিয়ে টিকিট কাটলাম।’

চুয়াডাঙ্গার জন্য রাকিব হাসান এসেছেন গাবতলীতে। তিনি বলেন, শুনছি রাস্তায় অনেক জ্যাম। এ কারণে পাটুরিয়ার বাসে উঠে ঘাট পার হয়ে লঞ্চে উঠে ওইপাড় থেকে অন্য বাসে উঠে চুয়াডাঙ্গায় চলে যাবো। সেরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন শিহাবুল ইসলাম। তিনি কল্যাণপুর বাস-কাউন্টার এসেছেন সাড়ে ৭টার দিকে। তার গাড়ি রাত ৯টায়। তিনি হানিফ পরিবহনে যাবেন ঝিনাইদহে। শিহাবুল বলেন, ১০ দিন আগে টিকিট কেটেছিলাম। গত দুই বছর গ্রামের বাড়িতে মা-বাবার সঙ্গে ঈদ করা হয়নি। এ কারণে এবার স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে বাড়ি যাচ্ছি। শুনেছি বাস সময়মতো এসে যাবে।

ঢাকায় দর্শনা ডিলাক্স পরিবহনের কাউন্টার মাস্টার মো. আফজাল বলেন, শুক্রবার বিকেল থেকে যাত্রীদের চাপ বেড়েছে। টিকিট বিক্রি প্রায় শেষ। তবে পেছনের সিটের দিকে কিছু বাসে সিট রয়েছে, আশা করি সেগুলোও বিক্রি হয়ে যাবে। গাড়িগুলো নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ছেড়ে যাচ্ছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, রাস্তায় জ্যাম কম, গাড়ি সঠিক সময়ে এসে পৌঁছাচ্ছে। মাঝে মাঝে আধা ঘণ্টা থেকে এক ঘণ্টা বিলম্ব হচ্ছে।

এদিকে, অতিরিক্ত ভাড়া আদায় এবং কাউন্টারের বাইরে নির্ধারিত ভাড়ার তালিকা না থাকায় ভোক্তা অধিকারের এক অভিযানে শুক্রবার পাঁচটি পরিবহনকে জরিমানাও করা হয়। এ বিষয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের পরিচালক মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, আমরা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে এখানে এসেছি। এটা মূলত বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) কাজ, আমরা এডিশনাল হিসেবে এখানে এসেছি, যাতে করে যাত্রীদের কোনো হয়রানি পোহাতে না হয়। যাত্রীদের কাছ থেকে অভিযোগ শুনে আমরা বিভিন্ন কাউন্টারে গিয়েছি। তিনি আরও বলেন, গাবতলীর সেলফি পরিবহনকে এক হাজার টাকা, শ্যামলী পরিবহনে ৫০০, সাথি এন্টারপ্রাইজকে এক হাজার, অরিন ট্রাভেলসকে এক হাজার টাকা ও শ্যামনগর পরিবহনকে ৫০০ টাকা জরিমানা করেছি।

পরিবহন মালিক সমিতি ও বিআরটিএকে অতিরিক্ত বাড়া আদায়ের বিষয়টি তদারকির জন্য বিশেষ নজর রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন বলেও জানান ভোক্তা অধিকারের এই কর্মকর্তা।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More