চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুরে নানা আয়োজনে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হওয়ার আহ্বান

মাথাভাঙ্গা ডেস্ক: বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। গতকাল সোমবার এ উপলক্ষে চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুরসহ সারাদেশে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, আনন্দর‌্যালি, কেককাটা, আলোচনাসভা ও শীতবস্ত্র বিতরণের মাধ্যমে দিনটি পালিত হয়েছে। এছাড়াও ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় সমালোচনা উপেক্ষা করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের কাজ করে যাওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, করোনা মহামারীকালে তোমরা যে কাজগুলো করে গেছ, তার জন্য সবসময় আমরা সাধুবাদ জানাই। ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সোমবার রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট আয়োজিত আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী। কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট প্রান্তে আলোচনা অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য ও ছাত্রলীগ সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও ছাত্রলীগ সাবেক সভাপতি মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়, সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। শেখ হাসিনা বলেন, আমি জানি হয়তো ক্ষেত্রবিশেষে কোথাও কোথাও দু-একটা ঘটনা ঘটে। আর আমাদের কিছু পত্রপত্রিকা আছে, যতই ভালো কাজ কর, সেটা লেখার তাদের যোগ্যতা নেই। যদি কোথাও এতোটুকু খুঁত পায়, সেটিকে বড় করে লিখতে পারে। এটা তাদের মন-মানসিকতার দৈন্য বলেই আমি মনে করি। কাজেই ওগুলো আমি বেশি একটা হিসাবে ধরি না। তিনি বলেন, আমি দেখি যে বৃক্ষরোপণ করা, ধান কেটে কৃষককে সহযোগিতা করা বা করোনা ভাইরাসের সময় আক্রান্ত রোগী এবং যারা মৃত্যুবরণ করেছে, তাদের পাশে দাঁড়ানো, তাদের সাহায্য করা, ঘরে ঘরে খাদ্য পৌঁছে দেয়া, যখন ঝড় এলো, সেই ঝড়ের সময় মানুষের পাশে দাঁড়ানো, এই যে মানুষের সেবার জন্য যেই কাজগুলো করে যাচ্ছ, সেটাই হচ্ছে বড় কাজ। বাংলাদেশের প্রতিটি অর্জনে ছাত্রলীগের অগ্রণী ভূমিকার কথা স্মরণ করে শেখ হাসিনা বলেন, এই ঐতিহ্যের কথা মনে রেখে এই সংগঠনটাকে শক্তিশালী করে তোমরা গড়ে তুলবে। সেটাই আমরা চাই। ছাত্রলীগ নেতাকর্মীকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে, জাতির পিতার আদর্শ নিয়ে নিজেদের গড়ে তুলতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যে আদর্শ নিয়ে গড়ে তুলতে পারবে নিজেকে, সেই কিন্তু সফল হবে। আর যদি অর্থ-সম্পদের দিকে নজর চলে যায়, কখনো সফল হতে পারবে না। আগামীদিনে দেশকে নেতৃত্ব দিতে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীকে তৈরি হতে হবে। কারণ আমাদের আর কতো…৭৫ বছর বয়স। আর কতোদিন। ছাত্রলীগ ৭৩, আমার ৭৫। কাজেই আমিও ৭৫-এ পা দিয়েছি। কাজেই আমরা কতদিন আর চলবো। কিন্তু তোমাদের সামনে নেতৃত্ব দিতে হবে। সেইভাবে তোমরা নিজেদের গড়ে তুলবে।’
চুয়াডাঙ্গায় দিনব্যাপী নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করেছে জেলা ছাত্রলীগ। চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিকের নেতৃত্বে সকাল সাড়ে ৭টায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন এবং বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। সন্ধ্যা ৭টায় দলীয় কার্যালয়ে কেক কাটা শেষে দোয়া মাহফিল, গরিব ও দুস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র ও খাবার বিতরণ করা হয়। এ সময় প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সাবেক সফল মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, সহসভাপতি নাসির উদ্দিন, অ্যাড. শামশুজ্জোহা, সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সি আলমগীর হান্নান, উপ-প্রচার সম্পাদক শওকত আলী, সদস্য অ্যাড. বেলাল হোসেন পিপি, চুয়াডাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন হেলা, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল কাদের, আব্দুর রসিদ, রেজাউল করিম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম আসমান, জেহালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসানুজ্জামান হান্নান, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর সুলতান আঞ্জুমান আরা রতœা, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুন্নাহার কাকলী, ভাইস চেয়ারম্যান গরিব রুহানী মাসুম, শাহাজাদী মিলি, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান নাবিলা রোকসানা ছন্দা, পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী সাফিয়া, নবনির্বাচিত কাউন্সিলর উজ্জ্বল হোসেন, কামরুজ্জামান চাঁদ ও সাইফুল ইসলাম। আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সাহাবুল হোসেন, সাবেক যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সফিউদ্দিন টিটু, সাবেক ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ফিরোজ আলী জোয়ার্দ্দার, সাবেক প্রচার সম্পাদক আব্দুর রহমান, সাবেক অর্থ বিষয়ক সম্পাদক রিমন, সাবেক স্কুল ও ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক রাজু আহমেদ, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আশিক ইকবাল স্বপন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক তানিম হাসান তারেক, জেলা ছাত্রলীগ নেতা অয়ন হাসান জোয়ার্দ্দার, বরকত, সোহেল, রিগান, আকাশ, রানা, টোকন, মন্টা, অভি, জান্নাত, মমিন, কলেজ ছাত্রলীগের মিঠুন, রিয়ন, সাধিন, সাকিব, সোহাগ, আলিফ নূর, রহিম, ইভন, রামীম, ফিরোজ, রাব্বি, বঙ্গবন্ধু ছাত্রপরিষদের সহসভাপতি মিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক তানজির, দফতর সম্পাদক আল-নোমান, সাকিব, শিশির, আরিফসহ চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দ।
অপরদিকে কেদারগঞ্জস্থ দলীয় কার্যালয়ের সামনে সকাল ৭টায় জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে পুরাতন সাহিত্য পরিষদ প্রাঙ্গণে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনাসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুল হক বিশ্বাস। জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জানিফের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আইলহাস ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাড. আব্দুল মালেক, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি মোমিনপুর ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক জোয়ার্দ্দার, জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মতিয়ার রহমান মতি, সদর উপজেলা কৃষকলীগের আহ্বায়ক আব্দুল মতিন দুদু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মাহবুবুল ইসলাম সেলিম। জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন জ্যাকির সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য আব্দুল হালিম ভূলন, ১নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ওয়াসিম, ২নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মিলন শেখ, ৪নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সেলিম উদ্দিন পিন্টু, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইমরান আহমেদ, পৌর ছাত্রলীগের সহসভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য ইমদাদুল হক সজল প্রমুখ।
আলমডাঙ্গা ব্যুরো জানিয়েছে, আলমডাঙ্গায় দিনটি উপলক্ষে সকালে দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। বিকেলে সরকারি কলেজ চত্বর থেকে আনন্দ র‌্যালি বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আওয়ামী লীগ দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়। পরে আলোচনাসভা ও কেক কাটার মধ্যদিয়ে দিনটি পালন করা হয়। আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করনে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. সালমুন আহমেদ ডন। প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিক। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার, জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য আবু মুসা, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন, যুগ্মসম্পাদক সাইফুর রহমান পিন্টু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শাহ আলম মন্টু, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শিক্ষানুরাগী আলহাজ লিয়াকত আলী লিপু মোল্লা, জেলা পরিষদের সদস্য মিজানুর রহমান মিজান, ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাঈদ পিন্টু, তরিকুল ইসলাম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সম্পাদকের মধ্যে নুরুল ইসলাম দিপু, হাসানুজ্জামান হান্নান, আব্দুল হান্নান, মাহমুদুল হাসান চঞ্চল, মোল্লা কামরুজ্জামান শামিম, নাহিদ হাসনাত সোহাগ। প্রধান বক্তা ছিলেন পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি নয়ন সরকার। সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আশরাফুল হকের উপস্থাপনায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা যুবলীগ নেতা সাজ্জাদুল ইসলাম স্বপন, সাবেক চুয়াডাঙ্গা কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আশিক ইকবাল স্বপন, পৌর ছাত্রলীগের সম্পাদক পারভেজ মিডেল, যুগ্মসম্পাদক নাহিদ হাসান তমাল, কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্মসম্পাদক হাসানুজ্জামান, প্রচার সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল হোসাইন বাদশা, ছাত্রলীগ নেতা ইছানুর কবীর, কলিনস, হাসান, রকি, সাকিব, টিটন, সজিব, সিহাব, অটাল, অন্তর, লাকচু, শুভ প্রমুখ।
অপরদিকে, ছাত্রলীগের অপর অংশ পৃথকভাবে ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করেছে। সকালে আলমডাঙ্গা উপজেলা ডাকবাংলার সামনে দলীয় ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। বিকেলে ডাকবাংলা থেকে আনন্দ র‌্যালি বের করে শহর প্রদক্ষিণ শেষে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনাসভায় উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম মহি উদ্দিন সাইকার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ সামসুল আবেদীন খোকন। বিশেষ অতিথি ছিলেন কৃষকলীগের সাবেক সভাপতি অ্যাড. শফিকুল ইসলাম শফি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান কবীর, জেলা যুবলীগের যুগ্মসম্পাদক জিল্লুর রহমান, জেলা কৃষকলীগের যুগ্মসম্পাদক আব্দুল্লাহ আল হোসাইন দ্বিপক, সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শরিফ হোসেন দুদু, সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি তৌহিদুর রহমান চন্দন, সাবেক জেলা ছাত্ররীগের সদস্য মাহাবুুবুর রহমান, সাবেক কলেজ ছাত্রলীগের আহ্বায়ক সোহেল রানা শাহীন। প্রধান বক্তা ছিলেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম গোলাম সরোয়ার শামীম। কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সেলিম রেজা তপনের উপস্থাপনায় উপস্থিত ছিলেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আলম হোসেন, কাজী চন্দন, রুবেল হোসেন, শেখ ইমতিয়াজ, নিপ্পন, শামীম, শাহারিয়ার, তপু, মাসুম বিল্লাহ, নাহিদ হাসান, সাগর, মিয়াদ হোসেন, রুদ্র, রাফসান, বাপ্পী, মিলন, সলক, প্রান্ত, রুবেল, সজীব, জুয়েল রানা সনি প্রমুখ।
মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, মোমিনপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের উদ্যোগে শহীদ রবিউল ইসলাম মিলনায়তন প্রাঙ্গণে আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। সভাপতিত্ব করেন ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা ফয়সাল উজ্জামান প্রান্ত। প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিক। বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্র যুবলীগের সদস্য জুবায়ের আহমেদ সাব্বির, জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সাহাবুল হোসেন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান বিশ্বাস নান্নু, সদর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেফালী খাতুন, মোমিনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান নিপুল, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন রতন, আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান মাজু, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ফিরোজ জোয়ার্দ্দার, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক তামিম হাসান তারেক, ছাত্রলীগ নেতা লিয়ন, রাজু, সারাফাত, সেতু, সেলিম, পাভেল, জাহিদ, রাব্বি, আলামিন, শিহাব, সচিব, হামজা, আলী, চন্দন, ফাইম, সোহেব, সাকিল, তানজিল প্রমুখ।
অপরদিকে, জেহালা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের উদ্যোগে ছাত্রলীগের আয়োজিত আলোচনাসভার সভাপতিত্ব করেন ডিজার সিদ্দিক ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের আহ্বায়ক সাদ্দাম হোসেন। প্রধান অতিথি ছিলেন ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক মখলেছুর রহমান শিলন। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা যুবলীগের সদস্য সালাউদ্দিন ম-ল, যুবলীগ নেতা হারুনর রশীদ বকুল, হিরালাল, আনারুল আরও উপস্থিত ছিলেন জনি মেম্বার মজিত মেম্বার, হাসিবুল মেম্বার। আরও উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগ নেতা স্বাধীন, উৎস, উজ্জ্বল, আব্দুল্লা, ইয়ামিন, তুষার প্রমুখ।
জামজামি প্রতিনিধি জানিয়েছেন, জামজামি বাজার বটচত্বরে দুপুর ১২টায় আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রলীগ নেতা সমীক শাহ। প্রধান অতিথি ছলেন আলমডাঙ্গা পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আল ফেরদৌস রেজওয়ান পারভেজ মিডেল। বিশেষ অতিথি ছিলেন জামজামি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি দিদার আলি মালিতা, আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক রাহাব উদ্দিন। ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রতন শাহর উপস্থাপনায় বক্তব্য রাখেন ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি মনিরুজ্জামান, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল্লা আল বাদশা, রকি উদ্দিন, শিহাব আলী, শাকিব হাসান, অটল হোসেন, শাহেদ আল হাসান, ইমরান হোসেন ও সবুজ চৌধুরী প্রমুখ। আলোচনাপর্ব শেষে নেতৃবৃন্দ সম্মিলিত অংশগ্রহণে বিশাল কেক কেটে একে অপরের মুখে তুলে দিয়ে আনন্দ উল্লাসে অনুষ্ঠানস্থল সরগরম করে তোলে। শেষে রঙিন ব্যানার ও ফেস্টুন সহযোগে এক বিশাল আনন্দ মিছিল জামজামি বাজার বটচত্বর থেকে বের হয়ে ব্রিজমোড় ঘুরে যথাস্থানে এসে পৌঁছুলে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি
দর্শনা অফিস জানিয়েছে, দর্শনায় গতকাল সোমবার সকাল ১০টায় দর্শনা পৌর আ.লীগের কার্যালয়ে জাতীয় সঙ্গীতের সাথে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ, কেক কাটা ও দুস্থ শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ কর্মসূচি পালিত হয়েছে। দর্শনা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নাহিদ পারভেজের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যন আলি মুনছুর বাবু। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দর্শনা পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান। সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন দর্শনা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জেল হোসেন তপু। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা আতিয়ার রহমান হাবু, হাজি জয়নাল আবেদীন, দর্শনা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সহসভাপতি আশরাফুজ্জামান রিপন, কামরুল হাসান লোমান, মিল্লাত হোসেন, রাসেল, ছাত্রলীগ নেতা নাযিম, মোহাম্মদ, প্রভাত, রায়হান, অপু সরকার, লিপন প্রমূখ।
দামুড়হুদা অফিস জানিয়েছে, দামুড়হুদায় পৃথক পৃথকভাবে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করা হয়েছে। দামুড়হুদা উপজেলা ছাত্রলীগের আয়োজনে গতকাল সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বরে অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানো হয়। পরে দামুড়হুদা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফুল ইসলাম মল্লিকের সভাপতিত্বে আলোচনাসভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল আলম ঝন্টু। বিশেষ অতিথি ছিলেন দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিউল কবির ইউসুফ, আওয়ামী লীগ নেতা সেলিম উদ্দিন বগা, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হযরত আলী। দামুড়হুদা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাজু আহম্মেদ রিংকুর সঞ্চালনায় এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ শাখার তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, সহসম্পাদক ওমর ফারুক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সূর্যসেনা হল শাখা ছাত্রলীগ দফতর সম্পাদক শফিকুল ইসলাম, হাউলী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহ্বায়ক রাসেল আহম্মেদ, যুগ্মআহ্বায়ক রায়হান, নাটুদহ ইউনিয়ন শাখার সভাপতি লিমন খান, কুড়–লগাছি ইউনিয়ন শাখার সভাপতি রমজান প্রমুখ।
অপরদিকে, চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাইমান হাসান জোয়ার্দ্দার অনিকের নেতৃত্বে গতকাল সোমবার বিকেল ৪টার দিকে দামুড়হুদা বাসস্ট্যান্ড চত্বরে আলোচনাসভা ও কেক কাটা হয়। দামুড়হুদা উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা আশিকুজ্জামান বাধনের সভাপতিত্বে আলোচনাসভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সহিদুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক অ্যাড. আবু তালেব, দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগ নেতা জাহিদুল ইসলাম। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা রিদয়ান, সোহান, জীবন, সাকিব, আকাশ, রাফি, মেহেদীসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে, জুড়ানপুরে কেককাটা ও আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। সভাপতিত্ব করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা বঙ্গবন্ধু ছাত্রপরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক সারাফায়েত হোসেন বাবু। প্রধান অতিথি ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. রফিকুল আলম রান্টু। বিশেষ অতিথি ছিলেন মাহাতাব উদ্দিন সাবেক মেম্বার, মতিয়ার রহমান মন্টু, গোলাম সরোয়ার নান্নু, খায়রুল ইসলাম, মতিয়ার রহমান, এএসএম ফিরোজ ইফতেখার, জামিরুল ইসলাম, আবু সাইদ রতন, ওয়াশিকুর রহমান সাজিদ, নুর ইসলাম, কাবরান আলী, রানা হামিদ, পিয়ার হাসান, ইকবাল, জাহিদ, সাব্বির পার্থ, শিমুলসহ প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আহসান কবির বাদশা।
আন্দুলবাড়িয়া প্রতিনিধি জানিয়েছেন, জীবননগরের আন্দুলবাড়িয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের উদ্যোগে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে মাধ্যমিক বিদ্যালয় ফুটবল মাঠের গেটে কেক কেটে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি নাসিম উদ্দিনের সভাতিত্বে বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু জাতীয় শিশু কিশোর মঞ্চের ইউনিয়ন সভাপতি শেখ রাশেদুজামান, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান সেতু, ছাত্রলীগ নেতা আওয়াল হোসেন, মহাসীন আলী, রিয়াদ হোসেন, মিঠুন মহামুদ, রুহান উদ্দিন, ফিরোজ হোসেন, রিপন, বাবর আলী ও মোস্তাকিনসহ অনেকে। অপর দিকে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের অপর একাংশের উদ্যোগে নানা কর্মসচি পালিত হয়েছে। রিপন হোসেনের সভাপতিত্বে সন্ধ্যায় মির্জা লিটনের অফিসকক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে কেক কাটা হয়। আলোচনাসভায় অতিথি ছিলেন ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি মির্জা হাকিবুর রহমান লিটন, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সামসুজোহা, সাবেক যুবলীগ নেতা মোল্লা মুক্ত, সানোয়ার হোসেন, ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক মীর জ্যাকি, মো. নাসিম, রেজা ও মিরাজ।
মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, আনন্দর‌্যালি, আলোচনাসভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠান পালনের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করেছে মেহেরপুর জেলা ছাত্রলীগ। গতকাল সোমবার বিকেলে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মেহেরপুর জেলা শাখার সভাপতি আব্দুস সালাম বাঁধনের নেতৃত্বে মেহেরপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমির সামনে থেকে একটি আনন্দ র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি মেহেরপুর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি’র বাসভবনে আলোচনাসভা ও কেক কাটার আয়োজন করা হয়। আলোচনাসভায় মেহেরপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুস সালাম বাঁধনের সভাপতিত্বে ও সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক কুতুবউদ্দিন আহমেদের সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ হোসেন আসিব, জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি দুলাল মাহমুদ, শাহাজান আলী, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুলকার নাইন বাইজিদ, মুজিবনগর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হেলাল হোসেন লাভলু, গাংনী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসিফ ইকবাল অনিক প্রমুখ । পরে সেখানে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটা অনুষ্ঠিত হয়।
অপরদিকে, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মেহেরপুর জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুদ রানার উদ্যোগে আলোচনাসভা ও কেক কাটার আয়োজন করা হয়। সোমবার সন্ধ্যা সাতটার সময় পৌর কমিনিউটি সেন্টারের সামনে আলোচনাসভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পৌর মেয়র ও জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান রিটন। জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি আবু মোরশেদ শোভন সরকারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সাবেক ছাত্রনেতা হাসানুজ্জামান হিলোন, জেলা যুবলীগের সদস্য মাহাবুব হাসান জালিম, জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি আব্দুল বাসেদ অভিক, সান, সদর থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল হোসেন, শহর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহফুজুর রহমান পলেন।
এ সময় জেলা ছাত্রলীগের উপ-আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক মিরাজ, জেলা ছাত্রলীগের উপশিক্ষা ও পাঠচক্র সম্পাদক রিদয়, জেলা ছাত্রলীগের সদস্য সামিউল, ফইসাল, আলমগীর, সাবেক কলেজ ছাত্রলীগের শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক সাঈদ রানা, সাবেক কলেজ ছাত্রলীগের উপ-প্রচার সম্পাদক ইয়াছির আরাফাত ফাহিম, সাবেক ক্রিয়া বিষয়ক সম্পাদক বুলবুল, সাবেক ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক প্রতাব, সাবেক সহসম্পাদক সরন, আহানুর, মৃদুল, জয়, সরুপ, কাব্য, শাওন, রাকিব, জুয়েল, মুনসহ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More