দুই মাসের মধ্যে সব ই-কমার্স নিবন্ধনের নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার: আগামী দুই মাসের মধ্যে নিবন্ধনের জন্য ই-কমার্সভিত্তিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে সরকার। এ ধরনের কোম্পানিগুলোকে আইনি কাঠামোর আওতায় আনার অংশ হিসাবে মন্ত্রিসভায় এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এখন থেকে নতুন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের জন্যও নিবন্ধন বাধ্যতামূলক হলো। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে সব ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানকে নিবন্ধন নিতে হবে।
বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি এবং মন্ত্রিসভার সংশ্লিষ্ট সদস্যরা বাংলাদেশ সচিবালয় থেকে সভায় যোগ দেন। বৈঠকের পর সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। তিনি বলেন, মন্ত্রিসভা আগামী দুই মাসের মধ্যে সব ই-কমার্সভিত্তিক প্রতিষ্ঠানকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে নিবন্ধন করার নির্দেশ দিয়েছে। সেই সঙ্গে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের কর্মকা- সম্পর্কে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে জনগণের মাঝে গণসচেতনতা সৃষ্টির জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে।
এদিনের বৈঠকে ২০২২ সালের ছুটির তালিকা অনুমোদন দেওয়া হয়। মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, ২০২২ সালে ১৪ দিন থাকবে সাধারণ ছুটি, বাকি আট দিনের ছুটি হবে নির্বাহী আদেশে। এর মধ্যে ছয় দিন শুক্র ও শনিবারের সাপ্তাহিক ছুটির মধ্যে পড়েছে। চলতি বছরও সব মিলিয়ে সরকারি ছুটি ২২ দিন। সাত দিনের ছুটি শুক্রবার ও শনিবারের সাপ্তাহিক বন্ধের মধ্যে পড়েছে। মন্ত্রিসভার অনুমোদন পাওয়ায় এখন ২০২২ সালের ছুটির তালিকার বিষয়ে আদেশ জারি করবে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।
মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, বৈঠকে অনির্ধারিত আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্রুততম সময়ে সারা দেশের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন। সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সি শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া শুরু হবে ১ নভেম্বর অর্থাৎ আগামী সোমবার থেকে। ঢাকায় শিক্ষার্থীদের সংখ্যা ৩ লাখ ৪৪ হাজার। এর মধ্যে ৩ লাখ শিক্ষার্থীর রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হয়েছে। শিক্ষার্থীদের টিকা দিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ঢাকায় ১২টি স্থান নির্দিষ্ট করেছে। আপাতত সেখান থেকেই শুরু হবে এ টিকা কার্যক্রম। এর সঙ্গে পরবর্তী সময়ে আরও যুক্ত হবে সিটি করপোরেশনের কমিউনিটি সেন্টারগুলো। এ বৈঠকে ‘আটিয়া বন (সংরক্ষণ আইন) ২০২১’, ‘কপিরাইট আইন-২০২১’ খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ‘ওষুধ আইন-২০২১’-এর খসড়া মন্ত্রিসভায় উত্থাপন হলেও অনুমোদন পায়নি।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More