দেশে করোনায় এক দিনে মৃত্যু ২৩১

স্টাফ রিপোর্টার: নমুনা পরীক্ষা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দেশে দৈনিক শনাক্ত কোভিড রোগীর সংখ্যাও বেড়েছে; সেই সঙ্গে বেড়েছে মৃত্যু। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গতকাল রবিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে প্রায় ৫০ হাজার নমুনা পরীক্ষা করে ১৪ হাজার ৮৪৪ জনের মধ্যে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এই সময়ে মৃত্যু হয়েছে আরো ২৩১ জনের। নতুন রোগীদের নিয়ে দেশে এ পর্যন্ত শনাক্ত কোভিড রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১২ লাখ ৬৪ হাজার ৩২৮ জন। তাদের মধ্যে ২০ হাজার ৯১৬ জনের প্রাণ গেছে এ ভাইরাসে। নমুনা পরীক্ষা ৩১ হাজারে নেমে আসায় আগের দিন শনিবার শনাক্ত রোগীর সংখ্যাও ৯ হাজার ৩৬৯ জনে নেমে এসেছিলো, আর মৃত্যু হয়েছিলো ২১৮ জনের। রোববার দুই সংখ্যাই ফের বাড়লো। গত একদিনে শুধু ঢাকা বিভাগেই ৮ হাজার ৩৫৫ জনের মধ্যে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছে যা দিনের মোট আক্রান্তের অর্ধেকের বেশি। আর এই সময়ে যে ২৩১ জন মারা গেছেন, তাদের ৭৭ জনই ছিলেন ঢাকা বিভাগের। চট্টগ্রাম বিভাগে ৫৩ জন এবং খুলনা বিভাগে ৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। সরকারি হিসাবে দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে আরো ১৫ হাজার ৫৪ জন গত এক দিনে সেরে উঠেছেন। তাদের নিয়ে এই পর্যন্ত ১০ লাখ ৯৩ হাজার ২৬৬ জন সুস্থ হলেন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, দেশে এই মুহূর্তে করোনা ভাইরাসের রোগীর সংখ্যা ১ লাখ ৫০ হাজার ১৪৬ জন। করোনার ডেলটা (ভারতীয়) ভ্যারিয়েন্টের বিস্তারে গত জুলাই মাসে মহামারির সবচেয়ে কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে বাংলাদেশকে। এই এক মাসেই দেশে মোট ৩ লাখ ৩৬ হাজার ২২৬ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছে, মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ১৮২ জনের। এক মাসে এত রোগী শনাক্ত বা মৃত্যু এর আগে দেখতে হয়নি বাংলাদেশকে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে দেখা যাচ্ছে, গত এপ্রিল, মে আর জুন মাস মিলিয়ে দেশে যত রোগী শনাক্ত হয়েছে, এক জুলাই মাসেই হয়েছে তার চেয়ে বেশি। আর এই এক মাসেই মারা গেছেন আগের ছয় মাসের প্রায় সমান রোগী। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত এক দিনে সারা দেশে মোট ৪৯ হাজার ৫২৯টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ৭৭ লাখ ৯০ হাজার ৪২৩টি নমুনা। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ২৯ দশমিক ৯৭ শতাংশ, যা আগের দিন ৩০ দশমিক ২৪ শতাংশ ছিলো। দেশে এই পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ২৩ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৬ দশমিক ৪৭ শতাংশ এবং মৃত্যু হার ১ দশমিক ৬৫ শতাংশ। এদিকে দক্ষিণ এশিয়ায় কোভিড-১৯ টিকাদানে বাংলাদেশের পিছিয়ে থাকার মতো পরিস্থিতিতে এক সপ্তাহে প্রায় ১ কোটি মানুষকে টিকা দেওয়ার লক্ষ্য ঠিক করেছে সরকার। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক গতকাল সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, আগামী ৭ আগস্ট থেকে ১৪ আগস্ট পর্যন্ত এই গণটিকাদান হবে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More