দেশে করোনা শনাক্ত রোগীর হার ২ শতাংশের নিচে

স্টাফ রিপোর্টার: দেশে করোনা ভাইরাসে দৈনিক শনাক্ত রোগীর হার ২ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে। গতকাল শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত রোগীর হার ছিলো ১ দশমিক ৮৮ শতাংশ। যা আগের দিনও ছিলো ২ দশমিক ০৯ শতাংশ। এদিকে সংক্রমণের নিম্নমুখী ধারার মধ্যে এক দিনে শনাক্ত রোগী ৩০০-র নিচে নেমে এসেছে। আর মারা গেছে ছয় জন, যা আট মাসে সর্বনিম্ন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর শনিবারের বুলেটিনে আগের ২৪ ঘণ্টায় ২৯৩ জন নতুন রোগী শনাক্তের খবর দিয়েছে। তাদের নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ লাখ ৬৫ হাজার ১৭৪ জন। এর আগে গত ১৫ মে এর চেয়ে কম রোগী শনাক্তের খবর এসেছিল। সেদিন ২৪ ঘণ্টায় ২৬১ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়ার খবর দিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। গত এক দিনে ৬ জনের মৃত্যুতে কোভিড-১৯ মহামারিতে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৭ হাজার ৭৫২ জন। এর আগে গত ১১ মার্চও ছয় জনের মৃত্যুর খবর এসেছিল। সরকারি হিসাবে গত এক দিনে দেশে করোনা থেকে সেরে উঠেছেন ৪৪২ জন। তাদের নিয়ে এ পর্যন্ত মোট ১৫ লাখ ২৭ হাজার ৩৩ জন সুস্থ হয়ে উঠলেন। এই হিসাবে দেশে এই মুহূর্তে রোগীর সংখ্যা ১০ হাজার; করোনা ভাইরাসের ডেলটা ভ্যারিয়েন্টের দাপটে জুন-জুলাই মাসে এই সংখ্যা লাখ ছাড়িয়েছিল।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত এক দিনে সারা দেশে মোট ১৫ হাজার ৫৮০টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ১ কোটি ৭৬ হাজার ৮২৫টি নমুনা। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ১৫ দশমিক ৫৩ শতাংশ; মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৭৭ শতাংশ। গত এক দিনে শুধু ঢাকা বিভাগেই ২০২ জনের মধ্যে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছে, যা দিনের মোট শনাক্তের ৬৮ শতাংশের বেশি। এর মধ্যে ঢাকা জেলায়ই শনাক্ত হয়েছে ১৭৫ রোগী। শনাক্ত রোগীর সংখ্যা চট্টগ্রাম ছাড়া আর কোনো জেলায়ই দুই অঙ্কের কোঠায় যায়নি। চট্টগ্রামে ২২ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে।
গত এক দিনে যে ছয় জন মারা গেছে, তার তিন জনই ঢাকা বিভাগের ঢাকা জেলার। এছাড়া চাঁদপুর জেলায় এক জন, হবিগঞ্জ জেলায় এক জন এবং কুষ্টিয়া জেলায় এক জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত ছয় জনের মধ্যে চার জন পুরুষ ও দুজন নারী। তারা সবাই সরকারি হাসপাতালে মারা যায়। মৃতদের মধ্যে চার জনের বয়স ৬০ বছরের বেশি, বাকি দুজনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ছিল।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More