নেতাকর্মীদের কথাবার্তায় সতর্ক হতে বললেন ওবায়দুল কাদের

 

স্টাফ রিপোর্টার: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের দলীয় নেতাকর্মীদের ক্ষমতার ‘দাপট’ না দেখিয়ে কথাবার্তায় সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের নেতাকর্মীদের আমি বলব, প্রত্যেককে কথাবার্তায়, আচার-আচরণে দায়িত্বশীল হতে হবে। এই সময়ে দায়িত্বজ্ঞানহীন কোনো কথা বলা সমীচীন নয়, এ সময় ক্ষমতার দাপট দেখানো সমীচীন নয়। ঠা-া মাথায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। মানুষের জন্য কাজ করতে হবে, এটাই আজকে আমাদের সবচেয়ে বড় মেসেজ।’ শনিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মহিলা শ্রমিক লীগের শোক দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। দেশে জীবনযাত্রার খরচ বেড়ে যাওয়ার পেছনে আন্তর্জাতিক সংকট প্রভাব রেখেছে, তা জনগণের সামনে তুলে ধরার আহ্বান জানান কাদের। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সারা বিশ্বে সংকটে, একটা নেতিবাচক প্রভাব আজকে বাংলাদেশ মোকাবিলা করছে। আমরা জানি, অনেক মানুষের কষ্ট হচ্ছে। কষ্ট অব লিভিং যেভাবে বেড়ে গেছে, মানুষ কষ্ট করছে এটা ঠিক। কিন্তু আমাদের সামনে কোনো উপায় ছিল না। সারা দুনিয়ায় যেভাবে মূল্যবৃদ্ধি, জিনিসপত্রের দাম বৃদ্ধি।’ এ সময় সেতুমন্ত্রী পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে পরিবেশগত সমস্যার কথা তুলে ধরে বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য আজকে রাইন নদী শুকিয়ে যাচ্ছে, সেখানে জাহাজ চলতে পারছে না। ইতালির ১৫ লেকের অধিকাংশ শুকিয়ে গেছে। ফ্রান্সের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলে এখনো আগুন জ্বলছে।’ ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমেরিকায় মূল্যবৃদ্ধি, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, ফ্রান্স, আমাদের প্রতিবেশী দেশ শ্রীলংকা-পাকিস্তানের কথার বাদ দিয়ে কেউ তো আজ আরামে নেই। বাংলাদেশের জনগণের কষ্ট হচ্ছে। চেষ্টার কোনো ত্রুটি নেই। শেখ হাসিনার আজকে ঘুম নেই, আন্তরিকভাবে তিনি এই সংকট উত্তরণের জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছে। মানুষকে স্বস্তি দিতে।’ এ সময় বিএনপির সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘পৃথিবীর বহু দেশ আজকে সমস্যায় জর্জরিত। আর এটাকে কেন্দ্র করে ফ্রান্সের বিরোধী দল সরকার উৎখাতে নামেনি, আমেরিকার বিরোধী দল সরকার উৎখাতে নামেনি এই দুনিয়ায় সংকটে অনেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে, আর বাংলাদেশে তারা (বিএনপি) সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র করছে।’ গত শুক্রবার প্রেস ক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশে ফখরুলের দেয়া বক্তব্যের দিকে ইঙ্গিত করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তাহলে এখন স্বীকার করলেন যে পুলিশ বাধা দিচ্ছে না।’ ওবায়দুল কাদের বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলকে হুঁশিয়ার করে বলেন, ‘বেপরোয়া ড্রাইভার এখন ফখরুল সাহেব, বেপরোয়া রাজনীতির চালক কখন যে কোথায় এক্সিডেন্ট ঘটায়! আগুন নিয়ে আসবেন না, বলে দিচ্ছি, সতর্ক করে দিচ্ছি। শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে আপনাদের কেউ বাধা দিচ্ছে না। কিন্তু আগুন সন্ত্রাস নিয়ে যদি নামতে চান, মোকাবিলা করতে চান, তাহলে বলব, সমুচিত জবাব দেয়া হবে।’ বঙ্গবন্ধুর হত্যাকা-ের প্রসঙ্গ তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর খুনিরা থাইল্যান্ডে নিরাপদে পালিয়ে যায়। কে পাঠিয়েছিল? জিয়াউর রহমান। খুনিদের চাকরি দিয়ে পুরস্কৃত করেছিল জিয়াউর রহমান। মোশতাকের দেয়া ইনডেমনিটি অর্ডিন্যান্স পঞ্চম সংশোধনীর মাধ্যমে জিয়াউর রহমান আইনে পরিণত করেছিল, যাতে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচার না হয়। এ ইতিহাস ভুলে গেলে চলবে না। তিনি আরও বলেন, বিএনপির সঙ্গে আমরা শত্রুতা করিনি। ইতিহাস বলে তারাই আমাদের সঙ্গে শত্রুতা করেছে। বার বার করেছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More