প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঘর পাচ্ছে আরো সাড়ে ৫৩ হাজার পরিবার

স্টাফ রিপোর্টার: ‘মুজিব শতবর্ষে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না’ এমন ঘোষণা দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধুকন্যা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০১৯ সালের ১২ জানুয়ারি আওয়ামী লীগের যৌথসভায় মুজিববর্ষ উদ্যাপনের সিদ্ধান্তের দিন এ ঘোষণা দিয়েছিলেন টানা চারবারের প্রধানমন্ত্রী। তার এ প্রতিশ্রুতি শুধু মুখের কথা নয়, এটি দৃশ্যমান। ইতিমধ্যে ৭০ হাজার ভূমিহীন মানুষকে চলতি বছরের জানুয়ারিতে ঘর বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। আগামী রোববার আরও ৫৩ হাজার ৩৪০টি অসহায় পরিবারকে দেয়া হবে নতুন ঘর। আগামী ডিসেম্বর মাসেও এক লাখ পরিবারকে বিনামূল্যে জমিসহ ঘর দেয়া হবে। ‘আশ্রয়ণের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’ এই সেøাগানে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর উদ্যোগে মোট ৮ লাখ ৮২ হাজার ৩৩টি পরিবারকে ঘর ও জমি দেয়ার কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এতো মানুষকে বিনামূল্যে বাড়ি-ঘর দেয়ার ঘটনা পৃথিবীতে নজিরবিহীন বলছেন সংশ্লিষ্টরা।
‘আশ্রয়ণের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’ সেøাগানে সারা দেশে তাদের জন্য ঘর নির্মাণ করে দিচ্ছে সরকার। প্রতিটি ঘরে দুটি শয়নকক্ষ, একটি করে বারান্দা, রান্নাঘর, গোসলখানা ও বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা। দেশে কেউ গৃহহীন থাকবে না, প্রধানমন্ত্রীর ওই ঘোষণা অনুযায়ী ভূমিহীনদের দুর্যোগ-সহনীয় ওই ঘর নির্মাণ করে দেয়া হচ্ছে। মুজিববর্ষ উপলক্ষে আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় প্রায় ৯ লাখ মানুষকে পুনর্বাসন প্রক্রিয়া চলছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মের ১০০ বছর পূর্তি উপলক্ষে মুজিব শতবর্ষ পালন করছে সরকার। বছরটিকে স্মরণীয় করে রাখতে জাতির পিতার উত্তরসূরি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের ভূমিহীন ও গৃহহীন ৮ লাখ ৮২ হাজার ৩৩টি পরিবারকে ঘর ও জমি দেয়ার কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছেন। খাসজমিতে গুচ্ছ ভিত্তিতে এসব ঘর তৈরি হচ্ছে। কোথাও কোথাও এসব ঘরের নাম দেয়া হচ্ছে ‘স্বপ্ননীড়’, কোথাও নামকরণ হচ্ছে ‘শতনীড়’, আবার কোথাও ‘মুজিব ভিলেজ’।
আগামী রোববার নতুন করে ৫৩ হাজার ৩৪০টি অসহায় পরিবারকে ঘর দেয়ার তথ্য জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস। তিনি সাংবাদিকদের জানান, আগামী রোববার (২০ জুন) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সে দ্বিতীয় পর্যায়ে এসব পরিবারকে মুজিববর্ষের উপহার হিসেবে বিনামূল্যে দুই শতক জমিসহ সেমিপাকা ঘর দেয়ার কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন।
প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, পর্যায়ক্রমে দেশে দুই ধরনের মানুষকে ঘর করে দিচ্ছে সরকার। প্রথমত, যারা ভূমিহীন ও গৃহহীন। আরেক ধরনের মানুষ আছেন, যাদের ১ থেকে ১০ শতাংশ পর্যন্ত জমি আছে, কিন্তু ঘর নেই কিংবা থাকলেও একেবারে জরাজীর্ণ। গত বছরের জুন পর্যন্ত এই দুই ধরনের মানুষের তালিকাও করা হয়েছে। এর মধ্যে ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবার ২ লাখ ৯৩ হাজার ৩৬১টি। অন্যদিকে অল্প জমি আছে, কিন্তু ঘরহীন বা থাকলেও জরাজীর্ণ এমন পরিবার আছে ৫ লাখ ৯২ হাজার ২৬১টি।
সূত্র আরও জানায়, দ্বিতীয় ধাপে ঘর বরাদ্দ করা হয়েছে ৫৩ হাজার ৫১৪টি। দ্বিতীয় ধাপের এ বরাদ্দ হয়েছে আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এবং দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে। এর মধ্যে ঢাকা বিভাগে আশ্রয়ণ প্রকল্প থেকে ৯১২টি, দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে ৬ হাজার ৪৪৮টি। ময়মনসিংহ বিভাগে আশ্রয়ণ প্রকল্প থেকে ১৪০টি, দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে ২ হাজার ৩৭২টি। চট্টগ্রাম বিভাগে আশ্রয়ণ প্রকল্প থেকে ১ হাজার ৪০১টি, দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে ৯ হাজার ১৬১টি। রংপুর বিভাগে আশ্রয়ণ প্রকল্প থেকে ১২ হাজার ৩৯১টি। রাজশাহী বিভাগে আশ্রয়ণ প্রকল্প থেকে ১ হাজার ৫৬৮টি, দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে ৫ হাজার ৬০৪টি। খুলনা বিভাগে আশ্রয়ণ প্রকল্প থেকে ৮১২টি, দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে ৩ হাজার ৯৯টি। বরিশাল বিভাগে আশ্রয়ণ প্রকল্প থেকে ৭ হাজার ৬২৭টি। সিলেট বিভাগে আশ্রয়ণ প্রকল্প থেকে ২২৩টি, দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে ১ হাজার ৭৫৬টি।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More