মাদকাসক্ত শুধু পরিবার নয় সমাজকেও ধ্বংস করে

আলমডাঙ্গায় মাদক সন্ত্রাস বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে মতবিনিময়সভায় জেলা প্রশাসক

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: আলমডাঙ্গার হারদী ইউনিয়ন পরিষদের আয়োজনে  মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গি, বাল্যবিয়ে ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধে মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুরে হারদী ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে ওই মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় হারদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী নূরুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার।

এ সময় তিনি বলেন, এ সরকার জনবান্ধব সরকার। সরকারের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য ইউনিয়ন পরিষদ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ও শক্তিশালী স্তর। ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় সবচে ভূমিকা রেখেছিলো ইউনিয়ন পরিষদ। বিদ্যুত না থাকলেও সোলার সিস্টেম এনে কম্পিউটার চালিয়েছে। পৃথিবীকে হাতের মুঠোয় এনে দেখিয়েছে। জাতির জনক আজীবন স্বপ্ন দেখেছেন সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশের। ২০০৮ সাল থেকে আমরা সেই লক্ষ্যে কাজ করছি বঙ্গবন্ধুর কন্যার হাত ধরে। মাদক, সন্ত্রাস, নারী নির্যাতন ও বাল্যবিয়ে এই সমস্যাগুলি উন্নয়নের পথে বাধা। এ বাধা দূর করে সামনে এগিয়ে যেতে হবে। এ জন্য প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে জিরোটলারেন্স ঘোষণা দিয়েছেন। মাদকাসক্ত শুধু তার পরিবারকে ধ্বংস করে না, সমাজকেও ধ্বংস করে।

প্রভাষক একেএম ফারুকের উপস্থাপনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার লিটন আলী বক্তব্যে  বলেন, মহামারীতে যারা চেয়ারম্যানের সাথে টিম ওয়ার্ক করেছেন; তাদেরকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। মাদকের সাথে জড়িতদের তালিকা করা হচ্ছে। নির্ভরযোগ্য তথ্য দেবেন। গোপন রাখা হবে। মাদকের থাবা বিস্তারের অনুকূল পরিবেশ যাতে গড়ে না ওঠে সে ব্যাপারে সজাগ থাকতে হবে। মাদকাসক্তদের পুনর্বাসন করা হবে। সন্তানের গতিবিধি মনিটরিং করতে হবে। এ ব্যাপারে গাইডলাইন দেয়া হবে। বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

স্বাগত বক্তব্যে সভাপতি নূরুল ইসলাম বলেন, আমরা মানুষের জন্য কাজ করি, সরকারের আদেশ প্রতিপালন করি। জেলা প্রশাসক সরকারের সবচে প্রভাবশালী মাধ্যম। আমরা চাই জেলা প্রশাসনের হাত জনকল্যাণে ব্যবহৃত হোক। করোনাকালে  জেলা প্রশাসনের সমস্ত আদেশ নির্দেশ নিষ্ঠার সাথে প্রতিপালন করেছি। এ জন্য আমাদের ইউনিয়ন পরিষদকে পুরস্কার দেয়া উচিত ছিলো।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, ওসমানপুর ফাজিল মাদরাসার ভাইস প্রিন্সিপাল শামসুজ্জামান,  ইউপি মেম্বার সিদ্দিকুর রহমান, আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহ আলম মন্টু, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কৃষি কলেজের অধ্যক্ষ হামিদুল ইসলাম, হারদী মীর শামসুল ইসলাম পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ মনিরুজ্জামান, মীর শামসুদ্দিন আহম্মেদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ওমর খৈয়াম, ইউপি সচিব আলমগীর হোসেন, ইউপি সদস্য আবুল কালাম আজাদ, শেখ শাহনুর, আবু বকর সিদ্দিক, মুন্তাজ আলী, সিদ্দিকুর রহমান, মুনছুর আলী, আজিজুর রহমান হীরক, খাইরুল আলম হররোজ, ফরিদ উদ্দীন, পারভীনা খাতুন, মহিলা খাতুন, শারমিন আক্তার, হিসাব সহকারী ও কম্পিউটার অপারেটর জিয়াউর রহমান, ইউডিসি উদ্যোক্তা মাহফুজুর রহমান, মোছা. মেরিনা খাতুন, ফাতেমা খাতুন, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, কাজী, ঈমাম ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More