মেহেরপুরে ‘মুজিববর্ষে শতঘণ্টা মুজিবচর্চা’ শীর্ষক ভার্চুয়াল আলোচনাসভায় স্পিকার

বঙ্গবন্ধুর অন্তর্নিহিত দর্শন ভবিষ্যত রাজনৈতিক নেতৃত্বের জন্য অনুকরণীয়
মেহেরপুর অফিস: স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আজীবন জেল-জুলুম ও অত্যাচার সহ্য করেছেন কিন্তু অন্যায়ের কাছে মাথানত করেননি। বঙ্গবন্ধু নারী ও পুরুষের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য আজীবন লড়াই-সংগ্রাম করেছেন। নারীর রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নের জন্য বঙ্গবন্ধুর দর্শন ভবিষ্যত রাজনৈতিক নেতৃত্বের জন্য অনুকরণীয়। বঙ্গবন্ধুই নারী ক্ষমতায়নের ভীত রচনা করে গেছেন। গকাল বুধবার রাতে মেহেরপুর জেলা প্রশাসন আয়োজিত ‘মুজিববর্ষে শতঘণ্টা মুজিবচর্চা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে ‘নারীর ক্ষমতায়নে বঙ্গবন্ধু’ বিষয়ে ভার্চুয়াল আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন তিনি। আলোচনা অনুষ্ঠানে সূচনা বক্তব্য রাখেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি।
এ সময় স্পিকার বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ সমাজের সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ বিশেষ করে শিক্ষার্থীদের মাঝে বঙ্গবন্ধুর জীবন, রাজনীতি ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ্যে ‘মুজিববর্ষে শতঘণ্টা মুজিবচর্চা’ কর্মসূচি অত্যন্ত প্রশংসনীয় উদ্যোগ। ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধে বাংলাদেশের অভ্যুদয়ে মেহেরপুরের মুজিবনগর সূতিকাগারের ভূমিকা পালন করে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু নারীর ক্ষমতায়নে কার্যক্রম ও নীতি নির্ধারণ অতুলনীয়। জাতীয় সংসদে নারীদের সরাসরি নির্বাচনের পাশাপাশি সংরক্ষিত আসন রাখা, সরকারি চাকরি কোটা চালুকরণ, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট সেবা, সমুদ্র বিজয়, নারী পুনর্বাসন বোর্ডসহ সবকিছুই বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে শুরু হয়েছিলো বলে তিনি উল্লেখ করেন।
এ সময় তিনি বলেন, স্বাধীনতা অর্জনের পর যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ পুর্নগঠনসহ অর্থনৈতিক ক্ষমতায়ন এবং জনগণের অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর গৃহীত পদক্ষেপসমূহ আজও অসুসরণযোগ্য। এছাড়াও তিনি বাঙালি জাতিকে উপহার দিয়েছেন বিশ্বসেরা সংবিধান। বঙ্গবন্ধু ৫০ বছর আগে যা করে গেছেন তার বিশ্বের ইতিহাসে বিরল।
স্পিকার বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিলো একটি শোষণহীন সমাজ ও রাষ্ট্র যেখানে নারী-পুরুষ সকলের জন্য সমানাধিকার, আইনের শাসন, ন্যায়বিচার ও মৌলিক চাহিদা নিশ্চিত হবে। বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বঙ্গবন্ধুর ছায়াসঙ্গী হিসেবে সবসময় অনুপ্রেরণা যুগিয়েছেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।
অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ‘মুজিববর্ষে শতঘণ্টা মুজিবচর্চা’ শীর্ষক কর্মসূচির মুখ্য উপদেষ্টা ও জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত মেয়েদের অবৈতনিক ছাত্রী ঘোষণা করেন। নারীর ক্ষমতায়নে সংসদে নারীর স্থান দিয়েছিলেন। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হিসেবে শতকরা ৬৫ ভাগ নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই মতে নারীর ক্ষমতায়নে কাজ করে যাচ্ছেন।
মুজিববর্ষে শতঘণ্টা মুজিবচর্চা ‘নারীর ক্ষমতায়নে বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক আলোচনা সভা বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার ড. মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন হাওলাদার। জুমের মাধ্যমে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনের সংসদ সদস্য মুহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খোকন, সাবেক সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, পুলিশ সুপার এস এম মুরাদ আলী, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গাংনী উপজেলা চেয়ারম্যান এম.এ খালেক, জেলা জজ আদালতের পিপি পল্লব ভট্টাচার্য, প্রফেসর হাসানুজ্জামান মালেক, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাড. এসএম ইব্রাহীম শাহীনসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মকর্তাবৃন্দ ও বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More